25.5 C
Toronto
সোমবার, আগস্ট ৮, ২০২২

পার্থ ও অর্পিতাকে মুখোমুখি বসিয়ে জেরা করা হবে

- Advertisement -
পার্থ ও অর্পিতাকে মুখোমুখি বসিয়ে জেরা করা হবে
পার্থ ও অর্পিতা

দুর্নীতির মাধ্যমে টাকার পাহাড় গড়ার অভিযোগে গ্রেফতার ও মন্ত্রিপদ থেকে বরখাস্ত পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের কেলেঙ্কারিতে ঝাঁকুনি খাওয়া পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি তাঁর সরকার ঢেলে সাজাচ্ছেন। তবে এটা হবে ছোটখাটো রদবদল। সর্বশেষ খবর : পার্থ ও তাঁর বান্ধবী অর্পিতাকে মুখোমুখি বসিয়ে জেরা করবে তদন্তকারী সংস্থা।

দুর্নীতির টাকা সম্পর্কে তাঁরা আলাদা যে বিবরণ দিয়েছেন তা কতটুকু সত্য তা যাচাই করারা জন্যই এ জেরা। রাজ্যের সচিবালয় ‘নবান্ন’য় গতকাল সংবাদ সম্মেলনে মমতা বলেন, ‘গোটা মন্ত্রিসভা ভেঙে নতুন মন্ত্রিসভা গড়ার পরিকল্পনা আমাদের নেই। ছোট্ট একটা রদবদল করা হবে। কারণ সিনিয়র মন্ত্রী সুব্রত মুখার্জি ও সাধন পাণ্ডে মারা গেছেন। পার্থ চ্যাটার্জি কারাগারে। এ তিনজনের মন্ত্রণালয় ফাঁকা পড়ে আছে। কাউকে না কাউকে তো এ কাজগুলো করতেই হবে। আমার একার পক্ষে সবটা নিজের ঘাড়ে রাখা সম্ভব নয়।’

এ প্রসঙ্গে মমতা বলেন, চার-পাঁচ জনকে মন্ত্রিসভা থেকে সরিয়ে দলের কাজে লাগানো হবে। এবং পাঁচ-ছয় জনকে নতুনভাবে মন্ত্রিসভায় নেওয়া হবে।

এদিকে, তৃণমূল কংগ্রেসের সাংগঠনিক জেলায় সাধারণ সম্পাদক ও সভাপতি পদে বদল আনা হয়েছে। পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও তাঁর বান্ধবী অভিনেত্রী অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হওয়া শিক্ষক নিয়োগ বাণিজ্যের ২১ কোটি ৯০ লাখ রুপির একটি অংশ বাংলাদেশে পাচার হয়ে থাকতে পারে। ২২ জুলাই অর্পিতা মুখার্জির টালিগঞ্জের বহুতল আবাসনের (ডায়মন্ড সিটি সাউথ) ফ্ল্যাট থেকে এ টাকা উদ্ধার করে তদন্ত সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিপার্টমেন্ট (ইডি)

ওইদিন রাতেই ইডির তরফে টুইট করা হয়। যেখানে উদ্ধারকৃত ওই বিপুল অর্থের চারটি ছবি আপলোড করা হয়। আর সেখানেই বিপুল অর্থের মধ্যে একটি নামী বস্ত্র বিপণনী সংস্থার (সাহা টেক্সটাইল) ব্যাগ পাওয়া যায়। ব্যাগের গায়ে আবার লাগানো ছিল বঙ্গবন্ধুর ছবি। মুহূর্তেই বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘুরপাক খেতে থাকে ওই নির্দিষ্ট ছবিটি। প্রশ্ন উঠেছে, বঙ্গবন্ধুর ছবি দেওয়া ওই ব্যাগ মন্ত্রীঘনিষ্ঠ ব্যক্তির বাড়িতে কেন? তাদের অভিযোগ, হাওলার মাধ্যমে শিক্ষক দুর্নীতির এ বিপুল অর্থ বাংলাদেশে চলে গিয়ে থাকতে পারে।

বিষয়টি নিয়ে শোরগোল পড়তেই ইডি কর্মকর্তারা নড়েচড়ে বসেন। শুরু হয় তদন্ত। এর পরই ইডির নজরে আসে বারাসাতের ওই বিখ্যাত বস্ত্র বিপণনী সংস্থার দিকে। ওই বস্ত্র বিপণনীর সঙ্গেই প্রচুর সখ্য পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের। একাধিক অনুষ্ঠানে দেখা গেছে ওই বস্ত্রপ্রতিষ্ঠানের কর্ণধার কান্তি সাহা ও পার্থকে স্টেজ শেয়ার করতে। এমনকি বারাসাতের ওই প্রতিষ্ঠানের অফিসে গিয়ে মুড়িমাখা খেতে খেতে অন্যদের সঙ্গে খোশগল্পে মেতে উঠতে দেখা গেছে পার্থকেও। সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে সেই ছবিও সামনে এসেছে। জানা গেছে, প্রায়ই বারাসাতে গিয়ে ওই সংস্থার প্রচুর শাড়িও কিনে আনতেন পার্থ। কিন্তু সেই শাড়ি কার কাছে যেত? জানার চেষ্টা করছেন ইডির তদন্ত কর্মকর্তারা। গুঞ্জন চলছে, পার্থ এবং অর্পিতার সম্পত্তি কেবল পশ্চিমবঙ্গে নয়, বাংলাদেশেও থাকতে পারে। নিয়োগ দুর্নীতির মামলার রুপি দিয়েই বাংলাদেশে বেনামে সম্পত্তি কিনে থাকতে পারেন অপা। আর এ সন্দেহ থেকেই বাংলাদেশ যোগের হদিস পেতে চাইছে ইডি। এ ব্যাপারে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সাহায্য নিতে পারেন ইডি কর্মকর্তারা।

 

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles