19.2 C
Toronto
সোমবার, আগস্ট ১৫, ২০২২

মমতার ঘনিষ্ঠ মন্ত্রীর আত্মীয়ের বাড়িতে মিলল কয়েক বস্তা টাকা!

- Advertisement -
ছবি সংগৃহীত

পশ্চিমবঙ্গে শিক্ষক নিয়োগে দুর্নীতি সংক্রান্ত মামলায় দিনভর তল্লাশি শেষে বড়সড় সাফল্য কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা ইডির। শুক্রবার (২২ জুলাই) সন্ধ্যায় দক্ষিণ কলকাতার একটি ফ্ল্যাট থেকে বস্তায় বস্তায় টাকা উদ্ধার করেছে কেন্দ্রীয় এই গোয়েন্দা সংস্থা। এখন পর্যন্ত বেসরকারিভাবে এ টাকার অংক ২০ কোটির বেশি।

উদ্ধার হয়েছে ২০ টি মোবাইল ফোনসহ বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র। অর্পিতা মুখোপাধ্যায় নামে এক নারীর ফ্ল্যাট থেকে এই বিপুল পরিমাণ অর্থ উদ্ধার করা হয়। অর্পিতা মুখোপাধ্যায় পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারের প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ বলে গোয়েন্দা সূত্র দাবি করছে।

পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধেই মূলত পশ্চিমবঙ্গে শিক্ষক নিয়োগ সংক্রান্ত দুর্নীতির বড়সড় অভিযোগ। কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে এ সংক্রান্ত মামলা তদন্ত করছে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সিবিআই এবং তার সহযোগী ইডি। শুক্রবার (২২ জুলাই) ভোর থেকে কলকাতা, কলকাতার পার্শ্ববর্তী এবং কোচবিহারের মেখলিগঞ্জ এলাকায় অন্তত ১৪ টি জায়গায় একযোগে তল্লাশি অভিযান শুরু করেন গোয়েন্দারা।

গোয়েন্দা সূত্র নিশ্চিত করছে জব্দকৃত অর্থ সরাসরি শিক্ষক নিয়োগের দুর্নীতি প্রমাণ করছে। টাকাগুলো শিক্ষক নিয়োগের সময়ে নেয়া হয়েছে বলেও দাবি কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার। যদিও বিষয়টি নিয়ে এখনো পর্যন্ত তৃণমূল কংগ্রেস এবং পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে কোনো বিবৃতি প্রকাশ করা হয়নি। কবে তৃণমূল কংগ্রেসের একজন সাংসদ চিকিৎসক নেতা ডাক্তার শান্তনু সেন দাবি করেন যেহেতু বিষয়টি তদন্ত চলছে, তাই দলীয়ভাবে তারা কিছু বলতে পারবেন না। তবে অর্পিতা মুখোপাধ্যায় তৃণমূলের সঙ্গে জড়িত নন বলেও দাবি করেন তিনি।

তৃণমূল কংগ্রেস পরিচালিত পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারের বেশ কয়েকজন মন্ত্রী আমলা এবং নেতার বিরুদ্ধে শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি ছাড়াও কয়লা পাচার গরু পাচার সোনা পাচার সংক্রান্ত বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ মামলা সিবিআই তদন্ত করছে। ইতিমধ্যে বেশ কয়েকজন মন্ত্রী জেলেও খেটেছেন।

একই সঙ্গে রাজ্যের ১৩টি জায়গায় তল্লাশি অভিযান শুরু করেছে ইডি। ইডি তল্লাশি চালাচ্ছে রাজ্যের শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী পরেশ অধিকারীর মেখলিগঞ্জের বাড়িতেও। এছাড়াও এসএসসি-র সাবেক উপদেষ্টা শান্তিপ্রসাদ সিনহার বাড়িতেও তারা অভিযান চালিয়েছে বলে ইডি সূত্রে জানা গেছে। পরেশ বলেছেন, বাড়িতে থাকলে তিনি ইডিকে মুড়ি খাওয়াতেন।

২১ জুলাইয়ের সভায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাগুলির বিরুদ্ধে সরব হয়েছিলেন। বিজেপি রাজনৈতিক কারণে ওই সংস্থাগুলিকে ব্যবহার করছে বলে অভিযোগ করেছিলেন। বলেছিলেন, ইডি, সিবিআই বাড়িতে এলে তাদের মুড়ি খাওয়াতে। সেই কথার রেশ ধরেই এদিন পরেশের এই মন্তব্য।

কিছুদিন আগে সাবেক শিক্ষামন্ত্রী এবং বর্তমান শিল্পমন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে নিজাম প্যালেসে ডেকে জেরা করেছিল সিবিআই। এসএসসি দুর্নীতি মামলায় তাকে তলব করা হয়েছিল। এরপর পার্থের বাড়িতে ইডির তল্লাশি তাৎপর্যপূর্ণ।

আরও পড়ুন: মমতার সভা ঘিরে পশ্চিমবঙ্গে সাজ সাজ রব

পরেশ অধিকারীর বিরুদ্ধেও দুর্নীতির অভিযোগ আছে। বেআইনিভাবে তিনি তার মেয়েকে স্কুলে চাকরি পাইয়ে দিয়েছিলেন বলে অভিযোগ। বস্তুত, আদালতের নির্দেশে তার মেয়েকে কাজ থেকে সরে যেতে হয়েছে। চাকরিকালীন অর্থও ফেরত দিতে হচ্ছে। এদিন পরেশের বাড়িতে ইডি-র তল্লাশি রাজনৈতিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ।

দীর্ঘদিন ধরেই কলকাতার রাজপথে আন্দোলন চালাচ্ছিলেন এসএসসি চাকরিপ্রার্থীরা। রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে বহুদিন ধরেই তারা দুর্নীতির অভিযোগ করছিল। সম্প্রতি আদালতের হস্তক্ষেপে বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু হয়েছে।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles