22.7 C
Toronto
বুধবার, আগস্ট ১৭, ২০২২

মন্দার আশঙ্কায় অধিকাংশ কানাডিয়ান

- Advertisement -
টিডি গ্রুপের ডেপুটি চিফ অর্থনীতিবিদ ডেরেক বার্লেটন বলেন, আমার মতে মন্দা বোঝার সহজ উপায় হচ্ছে টানা দুই প্রান্তিক অর্থনৈতিক, পণ্য উৎপাদন ও সেবার সংকোচন

গ্যাস ও খাদ্যের অব্যাহত মূল্য বৃদ্ধির মধ্যেই সুদের হার আরেক দফা বাড়ছে বলে ধারণা তৈরি হয়েছে। এই অবস্থায় মন্দা আসন্ন কিনা সেই দুশ্চিন্তায় রয়েছেন কানাডিয়ানরা। পাশাপাশি সম্ভাব্য মন্দায় কীভাবে প্রস্তুতি নেওয়া যায় তাও ভাবছেন তারা।

ইয়াহু কানাডা/মারু পাবলিক ওপিনিয়ন প্রকাশিত সমীক্ষা অনুযায়ী, কানাডা মন্দার দিকে এগোচ্ছে বলে মনে করেন ৬৮ শতাংশ কানাডিয়ান। তবে ১৭ শতাংশ মনে করেন মন্দা এরইমধ্যে এসে গেছে। আর মন্দা নিয়ে উদ্বেগকে অতিরঞ্জিত মনে করেনে ১৫ শতাংশ কানাডিয়ান।

কিন্তু মন্দা যদি আসেই কানাডিয়ানদের কাছে তার অর্থ কী? কীভাবেই বা তারা এর প্রস্তুতি নেবেন? সহজ কথায় কমপক্ষে ছয় মাস অর্থনৈতিক কর্মকা- কমে গেলে তাকে মন্দা বলা হয়। ভোক্তার চাহিদা হ্রাস পেলে এটা হতে পারে, যার কারণে বিক্রি কমে যায় এবং এর ফলে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে খরচ কমানোর প্রয়োজন পড়ে, যার ফলে শেষ পর্যন্ত চাকরিচ্যুতির ঘটনা বেড়ে যায়।

টিডি গ্রুপের ডেপুটি চিফ অর্থনীতিবিদ ডেরেক বার্লেটন বলেন, আমার মতে মন্দা বোঝার সহজ উপায় হচ্ছে টানা দুই প্রান্তিক অর্থনৈতিক, পণ্য উৎপাদন ও সেবার সংকোচন। সার্বিক কর্মকা- পরিমাপের উপায় হলো মোট দেশীয় উৎপাদন বা জিডিপি। টানা দুই প্রান্তিক যদি কর্মকা-ে নি¤œগতি থাকে তাহলে মন্দার পরীক্ষায় উৎরে যায় অর্থনীতি।

কানাডায় সর্বশেষ মন্দা দেখা দিয়েছিল ২০২০ সালে কোভিড-১৯ মহামারির চরম পর্যায়ে। এবারও কী মন্দায় পড়তে যাচ্ছে কানাডা? মূল্যস্ফীতির হার ৪০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ পর্যায়ে রয়েছে এবং ব্যাংক অব কানাডা সুদের হার আরেক দফা বাড়াতে যাচ্ছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এগুলোই আরেকটি মন্দা সূচনা করতে পারে।
স্ট্যাটিস্টিকস কানাডা বলছে, ভোক্তা মূল্য সূচক মে মাসে আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় ৭ দশমিক ৭ শতাংশ বেড়েছে। ১৯৮৩ সালের পর ভোক্তা মূল্য সূচকের এটাই সবচেয়ে দ্রুত বৃদ্ধি।

বিএমওর জ্যেষ্ঠ অর্থনীতিবিদ রবার্ট কোভাসিস সিপি২৪কে বলেন, এটা জ¦ালানি তেলের বা খাদ্যপণ্যের মূল্য বৃদ্ধির ইস্যু নয়, এটা সমগ্র অর্থনীতিতে মূল্যস্ফীতির ইস্যু, আমাদেরকে এবং নীতি নির্ধারকদের এটাই জানিয়ের দিচ্ছে যে, অর্থনীতি দীর্ঘ সময়ের জন্য উত্তপ্ত পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে হাঁটছে। মূল্যস্ফীতির ইস্যুটি কানাডিয়ান ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোর মনস্তত্ত্বের মধ্যে ঢুকে গেছে এবং এটাকে আমাদের মোকাবেলা করতে হবে।
কেন্দ্রীয় ব্যাংক সুদের হার এরই মধ্যে তিন দফা বাড়িয়ে ১ দশমিক ৫ শতাংশে উন্নীত করেছে। বার্লেটন ও কোভাচিচের পাশাপাশি অনেক অর্থনীতিবিদেরই ধারণা ফেডারেল রিজার্ভের পদাঙ্ক অনুসরণ করে ব্যাংক অভ কানাডাও সুদের হার আরও অন্তত ৭৫ শতাংশীয় পয়েন্ট বাড়াবে। বার্লেটন বলছেন, সুদের হার বৃদ্ধি ভোক্তার ক্রয়ক্ষমতা কমিয়ে দেবে, যা শেষ পর্যন্ত মন্দাকে উস্কে দেবে।

ইয়াহু কানাডা/মারু পাবলিক ওপিনিয়ন ১৭ থেকে ১৯ জুন পর্যন্ত দৈবচয়নের ভিত্তিতে ১ হাজার ৫১৫ জনের ওপর সমীক্ষাটি পরিচালন করে।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles