16.1 C
Toronto
সোমবার, জুন ২৭, ২০২২

জিটিএর আবাসন বাজারে এখনও অনিশ্চয়তা

- Advertisement -
জিটিএর আবাসন বাজারে এখনও অনিশ্চয়তা
ছবি/স্কট ওয়েব

আাবাসন বাজারে দুই বছরের উত্তাপের পর প্রতি মাসেই বিক্রি কমছে। উপাত্ত বলছে, এ কথা অস্বীকারের উপায় নেই যে মহামারির কারণে আবাসন বাজারের ফুলে ফেপে উঠার হঠাৎই সমাপ্তি ঘটেছে। আবাসন বাজারে সত্যিই কি ঘটছে?

আপনি যদি টরন্টোর কোর এলাকার বাসিন্দা হয়ে থাকেন তাহলে তেমন কিছু চোখে পড়বে না। তবে হ্যা, ক্রেতাদের সংখ্যা কমেছে। এর কারণ হতে পারে সুদের হার বৃদ্ধি ও অনিশ্চয়তা। আবার বছরাধিককাল ধরে অস্বাভাবিক সংখ্যায় বিক্রয় কার্যক্রমও এর কারণ হতে পারে।

স্বল্প সংখ্যক ক্রেতা ও থিতিয়ে আসা প্রতিযোগিতার কারণে বিক্রেতাদের ক্ষমতা কিছুটা খর্ব হয়েছে এবং অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির গতিও থেমেছে। তবে ভুল করা যাবে না। ভালো পণ্যের দাম এখনও বাড়ছে এবং ভালো দামে বিক্রিও হচ্ছে। যদিও বিক্রেতাদের প্রত্যাশার চেয়ে তা কিছুটা কম।

নগরীর বাইরের গল্পটা একেবারেই আলাদা। মহামারির শুরুর দিকে যেসব বাজার দ্রুত গতিতে চাঙ্গা হয়েছিল সেসব বাজার এখন অবাধে পড়ছে। তথ্য উপাত্ত ব্যাপক মূল্য পতনের প্রমাণ দিচ্ছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ ধরনের অসংখ্য উদাহরণ দেখা যাচ্ছে। মাত্র কয়েক সপ্তাহের ব্যবধানে কোনো কোনো বাড়ির দাম কয়েক হাজার ডলার কমে গেছে। এই অবস্থায় একদা সুখী ক্রেতা এখন কি করা উচিত তা নিয়ে ভেবে পাচ্ছেন না।

মে মাসের হাওয়া চলে যাওয়ায় সুদের হার আওেশ দফা বাড়ানোর লক্ষ্যে জুনেই বৈঠকে বসতে যাচ্ছে ব্যাংক অব কানাডা। গুঞ্জন আছে, এ দফায় সুদের হার ২৫ বা ৫০ বেসিস পয়েন্ট বাড়তে পারে। স্বাভাবিকভাবেই আবাসন বাজারে আরও অনেক গল্পই তখন তৈরি হবে।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles