17.5 C
Toronto
রবিবার, মে ২৯, ২০২২

দ্বিতীয়বার কোভিড আক্রান্ত হওয়া অস্বাভাবিক নয়

- Advertisement -
দ্বিতীয়বার কোভিড আক্রান্ত হওয়া অস্বাভাবিক নয় - The Bengali Times
রেজাউল হক

র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন পরীক্ষায় কোভিড-১৯ শনাক্ত হওয়ায় অবাক হয়েছিলেন ক্রিস্টিন এনস। কারণ, দুই ডোজ কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনের পর বুস্টার ডোজ নেওয়া এনস ফেব্রুয়ারির শুরুর দিকে ভাইরাসটিতে সংক্রমিতও হয়েছিলেন। এরপরও সংক্রমিত হওয়া তার জন্য বিরল মনে হয়েছে।

বেকারি মালিক এনস শুক্রবার বলেন, তিন-চারদিন আগে আমি অসুস্থ্য বোধ করি। কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়ে থাকতে পারি বলে আমার মনে হয়েছিল। আমি পাঁচটি পরীক্ষা করিয়েছিলাম এবং আজ পজিটিভ ফলাফল এলো। আমার আশ্চর্য লাগছে এই ভেবে যে, কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত যাতে না হই সেজন্য প্রয়োজনীয় সবকিছুই আমি করেছি। তারপরও এই নিয়ে দ্বিতীয়বার কোভিড-১৯ আক্রান্ত হলাম। আমি নিজেকে কোভিডজয়ী ভাবতে পারছি না।

- Advertisement -

দ্বিতীয়বার কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হওয়া অস্বাভাবিক মনে করা হয়েছিল। এরপর ওমিক্রন ভ্যারেিয়ন্ট এলো। গত সপ্তাহে সাস্কেচুয়ানের চিফ মেডিকেল অফিসার ডা. সাকিব শাহাব বলেন, ওমিক্রন যেহেতু একদমই আলাদা তাই আগের সংক্রমণ আপনাকে সুরক্ষা দিচ্ছে না। জনস্বাস্থ্য বিভাগের উপাত্ত বলছে, যেসব কানাডিয়ানের মধ্যে বিএ.২ সাব-ভ্যারিয়েন্টের উপস্থিতি পাওয়া গেছে তাদের সর্বোচ্চ ১০ শতাংশেল মধ্যে আগে বিএ.১ এর উপস্থিতি ছিল বা তারা ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের মতো অন্য ভ্যারিয়েন্টে সংক্রমিত হয়েছিলেন।

এই তথ্য যুক্তরাজ্যে পরিচালিত সাম্প্রতিক গবেষণার সঙ্গে অনেকটাই সামঞ্জস্যপূর্ণ। গবেষণার ফল অনুযায়ী, যাদের কোভিড-১৯ শনাক্ত হয়েছে তাদের ১০ শতাংশ আগেও আক্রান্ত হয়েছেন। শাহাব বলেন, এটার কারণ হচ্ছে, ওমিক্রনে আক্রান্ত হওয়ার অর্থ আপনি বুলেটপ্রুফ সুরক্ষিত নন।

সব প্রদেশ পুনরায় আক্রান্তের হার প্রকাশ করেনি। তবে অন্টারিওর জনস্বাস্থ্য বিভাগ বলছে, ২০২০ সালের নভেম্বর থেকে প্রায় ১২ হাজার মানুষ দ্বিতীয়বার কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়েছেন এবং তাদের আবারও আক্রান্তের হার উচ্চ।

কুইবেক ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব পাবলিক হেলথ জানিয়েছে, ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টের সংক্রমণ দেখা দেওয়ার পর থেকে পুনরায় আক্রান্তের হার ব্যাপকভাবে বাড়তে বলে মনে করা হচ্ছে। জানুয়ারির এক প্রতিবেদনে কুইবেক প্রতি এক হাজার জনে ৩২ জন পুনরায় কোভিড-১৯ এ আক্রান্তের তথ্য দিয়েছিল। অর্থাৎ ২০২০ সালের মে থেকে ৯ হাজার জন একাধিকবার কোভিড আক্রান্ত হয়েছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ইউনিভার্সিটি অব সাস্কেচুয়ানের রোগতত্ত্ববিদ নাজিম মুহাজেরিন বলেন, ভ্যাকসিন হোক বা আগের সংক্রমণ থেকে তৈরি ইমিউনিটিই হোক এর বিরুদ্ধে সবচেয়ে ভালো কাজ করতে সক্ষম ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট। এটা যে কেবল ইউমিউনিটি ফাঁকি দিয়ে লোকজনকে সংক্রমিত করছে তাই নয়, মানুষের ইমিউনিটি হ্রাস পেলেও তাকে সংক্রমিত করছে ভ্যারিয়েন্টটি। অধিকাংশ কানাডিয়ানদের দুই ডোজ ভ্যাকসিন গ্রহণের পর তিন থেকে পাঁচ মাস এরই মধ্যে পেরিয়ে গেছে।

পাবলিক হেলথ এজেন্সি অব কানাডার তথ্য অনুযায়ী, ৪৭ শতাংশ কানাডিয়ান এখন পর্যন্ত তৃতীয় ডোজ ভ্যাকসিন নিয়েছেন।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles