19.8 C
Toronto
শনিবার, মে ২৮, ২০২২

সেফ সাপ্লাই প্রকল্পে আশার আলো

- Advertisement -
সেফ সাপ্লাই প্রকল্পে আশার আলো - The Bengali Times
ইউনিভার্সিটি অব ভিক্টোরিয়ার কানাডিয়ান ইনস্টিটিউট ফর সাবস্ট্যান্স ইউজ রিসার্চের গবেষক জিলিয়ান কোল্লা বলেন, মূল্যায়নটি করা হয়েছে কানাডিয়ানদের জীবনযাত্রার প্রভাবকে কেন্দ্র করে

পরীক্ষামূলক সেফ সাপ্লাই প্রকল্পে আশা দেখছেন সংশ্লিষ্টরা। তবে মাদকের বিষক্রিয়ার ঝুঁকিতে থাকা কানাডিয়ানদের বড় অংশের চাহিদা প্রকল্পটি এখনও মেটাতে পারছে না বলেও জানান তারা।

১০টি কর্মসূচির প্রাথমিক ফলাফল মার্চে প্রকাশ করেছে ফেডারেল সরকার। তাতে ব্রিটিশ কলাম্বিয়া, অন্টারিও ও নিউ ব্রান্সউইকের

- Advertisement -

অংশগ্রহণকারীদের বিভিন্ন ধরনের সুফলপ্রাপ্তির বিষয় উঠে এসেছে। মাদক গ্রহণে লক্ষ্যণীয় পরিবর্তনের কথা তুলে ধরেছেন অংশগ্রহণকারী ও কর্মীরা। ওভারডোজ ও রাস্তার পাশে মাদক গ্রহণ হ্রাস এর মধ্যে অন্যতম। অংশগ্রহণকারীরা বলেছেন, তারা কম চাপ অনুভব করতেন এবং অনেকটাই সুস্থির ছিলেন। সেই সঙ্গে চাকরি খোঁজার পেছনেও তারা বেশি সময় দিতে পারতেন।

ইউনিভার্সিটি অব ভিক্টোরিয়ার কানাডিয়ান ইনস্টিটিউট ফর সাবস্ট্যান্স ইউজ রিসার্চের গবেষক জিলিয়ান কোল্লা বলেন, মূল্যায়নটি করা হয়েছে কানাডিয়ানদের জীবনযাত্রার প্রভাবকে কেন্দ্র করে। এছাড়া তারা যেসব চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েন সেগুলোরও একটা জায়গা এখানে দেওয়া হয়েছে।

তবে পরীক্ষামূলক কর্মসূচিগুলোর একটির ব্যাপারে তার অভিজ্ঞতা ইতিবাচক নয় বলে জানিয়েছেন ভ্যানকুভার এরিয়া নেটওয়ার্ক অব ড্রাগ ইউজার্সের একজন সদস্য ও সংগঠনের ইনজেকশন রুমের সুপারভাইজর হিউ লাম্পকিন। কর্মসূচিতে ড্রাগ ডিসপেন্সের জন্য দৈনিক এক বা দুইবার অংশগ্রহণকারীকের আসতে হয়, যার কোনো অর্থ হয় না। বিষয়টা অনেকটা পায়ে শিকল পরানোর মতো, যাতে আপনি কোথাও না যেতে পারেন।

 

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles