4.2 C
Toronto
শনিবার, অক্টোবর ২৩, ২০২১

চীনের সঙ্গে কানাডার স্বাভাবিক মনোভাবের কঠোর সমালোচনা

কনজার্ভেটিভ এমপি জন উইলিয়ামসন

মাইকেল স্প্যাভর ও মাইকেল কভরিগ নামে কানাডার দুইজন ব্যবসায় পরামর্শক গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে ২০২৮ সাল থেকে চীনে হাতে বন্দি আছেন। এই ঘটনার পরও চীনের সঙ্গে কানাডার বিদ্যমান সম্পর্ক নিয়ে কানাডিয়ানরা বিরক্ত বলে ধারণা কনজার্ভেটিভ এমপি জন উইলিয়ামসনের। নিউ ব্রান্সউইকের এই এমপির দাবি, চীনের হাতে কানাডিয়ানরা বন্দি থাকার পরও দেশটির সঙ্গে ব্যবসায়িক সম্পর্কের কোনো অর্থ হয় না। এ অবস্থায় উইলিয়ামসনের বক্তব্য, আমাদের মিত্র বিশেষ করে অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে মিলে আমাদের মূল্যবোধ ও নাগরিকদের রক্ষায় শক্তিশালী পদক্ষেপ না নেওয়াটা সরকারের ভুল।

চীনের ব্যাপারে স্বাভাবিক মনোভাবের কারণে সরকারের কড়া সমালোচনাও করেন উইলয়ামসন। কারণ, দুই মাইকেল চীনের হাতে বন্দি হওয়ার পরও গত বছর ফেডারেল সরকারের বিভিন্ন বিভাগ ও সংস্থা চীনকে ৫৮ লাখ ডলারের কাজ দিয়েছে। চীনের মূল ভূখ-ের সঙ্গে সম্পর্কিত কোম্পানিকে কানাডা সরকারের কার্যাদেশ দেওয়ার ব্যাপারে কানাডিয়ানদের সতর্ক হওয়া উচিত বলে মনে করেন উইলিয়মাসন।

কানাডার বিভিন্ন সংস্থা ও বিভাগ চীনের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে যে কার্যাদেশ দিয়েছে তা সরাসরি অনুদানের চেয়েও বেশি। কারণ, চীনা কোম্পানিগুলোকে ৫৮ লাখ ডলারের কার্যাদেশ দেওয়া হলেও কানাডার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দেওয়া সরসারি অনুদানের পরিমাণ ২৩ লাখ ডলার।

কনজার্ভেটিভ পার্টির আরেক এমপি এন্ড্রু শিয়ার বলেন, কানাডার করদাতাদের কোনো অর্থ অর্থ চীনে পাঠানো উচিত বলে আমি মনে করি না। আমরা একটি কমিউনিস্ট একনায়ক সরকারের কথা বলছি, যারা মানবাধিকার, ব্যক্তি স্বাধীনতা, নাগরিক অধিকার লঙ্ঘন তো করছেই সেই সঙ্গে গোটা অঞ্চলে অত্যন্ত আগ্রাসী পররাষ্ট্রনীতি অবলম্বন করছে।

- Advertisement - Visit the MDN site

Related Articles

- Advertisement - Visit the MDN site

Latest Articles