21.5 C
Toronto
মঙ্গলবার, আগস্ট ৯, ২০২২

কানাডা সীমান্তে বিধিনিষেধে কোন পরিবর্তন নেই

- Advertisement -
কানাডা-যুক্তরাষ্ট্র স্থল সীমান্ত দিয়ে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার ব্যাপারে নীরব ইউএসএ…ছবি/সিবিএসএ

কানাডায় প্রায় ৩৯ লাখ লোককে ভ্যাকসিনের মিশ্র ডোজ দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিন নিয়েছেন ১৪ লাখ মানুষ। অ্যাস্ট্রাজেনেকার উভয় ডোজ ভ্যাকসিন নিয়েছেন ২ লাখ ২৩ হাজার কানাডিয়ান। এ অবস্থায় আন্তর্জাতিক ভ্রমণের ক্ষেত্রে কিছু বিধিনিষেধে সোমবার পরিবর্তন এনেছে হোয়াইট হাউজ। তবে কানাডা-যুক্তরাষ্ট্র স্থল সীমান্ত দিয়ে বিতর্কিত ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার ব্যাপারে নীরব রয়েছে তারা।

হোয়াইট হাউজ বলেছে, কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন ডোজ পূর্ণ করা আকাশপথে ভ্রমণকারীদের নভেম্বরের শুরুর দিকে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে।

মহামারি শুরু হওয়ার পর ২০২০ সালের মার্চে আরোপিত ভ্রমণ বিধিনিষেধ যে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রশাসন শিথিল করতে প্রস্তুত কয়েক মাসের মধ্যে এটা তার সবচেয়ে পরিস্কার ইঙ্গিত। ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট থাকাকালে এই ভ্রমণ বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছিল। তবে কানাডা ও মেক্সিকো থেকে বিনোদন ভ্রমণকারীদের জন্য নিষেধাজ্ঞা ৩১ অক্টোবর বাড়ানো হয়েছে। এ নিয়ে টানা ১৯ মাস বিধিনিষেধের মেয়াদ বাড়ানো হলো।

নতুন নিয়মে ট্রাম্পের আমলে জারি করা ভ্রমণ বিধিনিষেধের স্থলাভিষিক্ত হবে। ওই সময় যারা সাম্প্রতিককালে যুক্তরাজ্য, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, চীন, ভারত, ইরান, আয়ারল্যান্ড, ব্রাজিল ও দক্ষিণ আফ্রিকা ভ্রমণ করেছেন তাদের জন্য যুক্তরাষ্ট্র ভ্রমণে বিধিনিষেধ ছিল। এছাড়া নতুন নিয়মের ফলে যাত্রীদের উড়োজাহাজে ওঠার আগে ভ্যাকসিন গ্রহণের স্বপক্ষে প্রমাণপত্র দেখাতে হবে। একই সঙ্গে অনধিক তিনদিন আগের পরীক্ষায় কোভিড নেগেটিভও হতে হবে।

এ হিসেবে গত গ্রীষ্মে কানাডা যে ধরনের বিধি আরোপ করে এটাও তেমনই। প্রথমে কানাডিয়ান, তারপর মার্কিনী ও স্থায়ীভাবে বসবাসকারী এবং সবশেষে এ মাসের গোড়ার দিক থেকে আন্তর্জাতিক যাত্রীদের কানাডায় প্রবেশের সুযোগ দেওয়া হচ্ছে।

কানাডা থেকে যুক্তরাষ্ট্রে আকাশপথে ভ্রমণ কখনোই বন্ধ করা হয়নি। তবে নতুন ভ্যাকসিনেশন নীতি কার্যকর হওয়ার পর কানাডিয়ান যাত্রীদের ওপর তা আরোপ করা হবে কিনা তা এখনও পরিস্কার নয়। কানাডা-যুক্তরাষ্ট্র স্থল সীমান্তে বিধিনিষেধেও ব্যবসা এবং অত্যাবশ্যকীয় কর্মীদের দুই দেশে আসা-যাওয়ার সুযোগ রয়েছে। আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুও আছে এখানে। যেসব কানাডিয়ান অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিন নিয়েছেন তাদের ক্ষেত্রে কি হবে? কারণ, যুক্তরাষ্ট্র ভ্যাকসিনটি অনুমোদনই করেনি। তবে তাদেরকেও যাতে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হয় তা নিয়ে বাইডেন প্রশাসনের ওপর চাপ দেওয়া হচ্ছে বলে জানান ফেডারেল কর্মকর্তারা।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles