-13.8 C
Toronto
শনিবার, জানুয়ারী ২২, ২০২২

কোভিডমুক্ত সনদেই আফ্রিকা থেকে ঢোকা যাবে কানাডায়

- Advertisement -
ফেডারেল স্বাস্থ্যমন্ত্রী জঁ-ইভস ডুকলস

দক্ষিণ আফ্রিকার দেশগুলোর ভ্রমণকারীদের ওপর কানাডায় প্রবেশের ক্ষেত্রে যে বিশেষ বিধান চালু করা হয়েছিল তার অবসান ঘটেছে। এখন থেকে কানাডায় প্রবেশ করতে হলে সবাইকে কোভিডমুক্ত সনদ দেখাতে হবে। এমনকি যেসব কানাডিয়ান ৭২ ঘণ্টার কম সময়ের জন্য কানাডার বাইরে ভ্রমণে গেছেন তাদের ক্ষেত্রেও একই নিয়ম প্রযোজ্য।

ফেডারেল স্বাস্থ্যমন্ত্রী জঁ-ইভস ডুকলস শুক্রবার বলেন, কানাডায় প্রবেশের আগে কোভিড পরীক্ষার নিয়ম সবার ক্ষেত্রেই বলবৎ থাকবে। কানাডার বাইরে অন্য দেশে ভ্রমণকারীদের অবশ্যই কোভি পরীক্ষা করতে হবে। ২১ ডিসেম্বর থেকে এ নিয়ম কার্যকর হয়েছে।

- Advertisement -

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলের কয়েকটি দেশ ভ্রমণকারীদের ওপর কানাডায় প্রবেশের ক্ষেত্রে আরোপিত বিশেষ বিধানের অবসান ঘটাচ্ছে সরকার। ওমিক্রনের বিস্তার রোধে বিশেষ ওই বিধান আরোপ করা হয়েছিল।

কানাডায় ওমিক্রনের দ্রুত বিস্তারের মধ্যেই এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হলো। ওমিক্রনের কানাডা ও বিশে^র অন্যান্য দেশ আক্রান্তের সংখ্যা দ্রুত বাড়ছে। আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলের ১০টি দেশ ভ্যমণকারীদের কানাডায় প্রবেশের ক্ষেত্রে তৃতীয় কোনো দেশে কোভিড পরীক্ষার পাশাপাশি কোভিডমুক্ত সনদ প্রদর্শন ও সরকার নির্ধারিত হোটেলে কোয়ারেন্টিনের বিধান ছিল এবং এ নিয়ে ব্যপক সমালোচনার সৃষ্টি হয়। বিধানটি রোববার থেকে আর থাকছে না।

দক্ষিণ আফ্রিকার বিজ্ঞানী ও চিকিৎসকদের তৎপরতাই ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টটি দ্রুত সনাক্ত হয় এবং এই বিধিনিষেধকে ওই সব দেশের ওপর শাস্তি হিসেবে সমালোচনা করেন অনেকে। অনেকেই এ পদক্ষেপকে বর্ণবিদ্বেসী হিসেবে আখ্যায়িত করেন। কারণ, ইউরোপ ও বিশে^র অন্যান্য অঞ্চলেও দ্রুত ওমিক্রন ছড়িয়ে পড়লেও এসব বিধিনিষেধ আরোপ করা হয় কেবল আফ্রিকার দেশগুলোর ওপর।

একই সঙ্গে ডুকলস কানাডিয়ানদের ভ্রমণের বিষয়েও কড়া ভাষায় সতর্ক করে দেন। তিনি বলেন, ভ্রমণের সময় এখন নয় এবং ভ্রমণের পরিকল্পনাকারী কেউ বিদেশে আটকা পড়লে তা হবে তাদের নিজেদের কারণে।

বেশ কয়েক মাস পর বিদেশ ভ্রমণ সহজ হওয়ার পর অনেক দেশই ওমিক্রনের বিস্তার রোধে নতুন করে স্থানীয় কার্যক্রম ও ভ্রমণের ওপর বিধিনিষেধ আরোপ শুরু করেছে।

সরকারের তরফ থেকে শুক্রবার আরও বলা হয়েছে, কানাডায় প্রবেশের পর বিমানবন্দরে যাত্রীদের পরীক্ষার সক্ষমতা বাড়ানো হচ্ছে। এখন দৈনিক ২১ হাজার মানুষকে পরীক্ষা করা সম্ভব। এক সপ্তাহ আগে যেখানে বিমানবন্দরগুলোতে দৈনিক ১৭ হাজার মানুষের কোভিড পরীক্ষা করার সুযোগ ছিল।

 

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles