21.5 C
Toronto
মঙ্গলবার, আগস্ট ৯, ২০২২

ইত্তেফাকের ৬৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে কানাডায় অভিবাসী বাংলাদেশি লেখক ও সাংবাদিকদের শুভেচ্ছা

- Advertisement -
Lutfar Rahman Riton, Sumon Rahman, Shahidul Islam Mintu, Mahbubul Haque Osmani and Sakibur Rahman Khan.

On the occasion of the 69th founding anniversary of Daily Ittefaq, Bangladeshi writers and journalists living in Canada extended their best wishes and congratulations. They are Lutfar Rahman Riton, Sumon Rahman, Shahidul Islam Mintu, Mahbubul Haque Osmani and Sakibur Rahman Khan.

Prominent writer Lutfar Rahman Riton greets me with reminiscences and says, Ittefaq is the first mouthpiece of my debut. It was a coincidence in my childhood and adolescence that the magazine would have become a state in the whole country if its name had been printed in any of the news of the newspaper. Daily Ittefaq topped the circulation numbers. Adding the circulation of all the other dailies of the country together, the difference with Ittefaq was at the underground level.

ঊনপঞ্চাশ বছর আগে, আমার বালক বয়েসে ১৯৭২ সালে ইত্তেফাকের ছোটদের পাতা কচি-কাঁচার আসরের মাধ্যমেই ছড়াকার হিশেবে আমার প্রথম আত্মপ্রকাশ ঘটেছিলো। এরপর আমার পুরো বিকাশকালটা পল্লবিত হয়েছে ইত্তেফাকের পরম মমতা আর ভালোবাসায়। ইত্তেফাকের রোকনুজ্জামান খান দাদাভাইয়ের কল্যাণেই সেদিনের খুদে লেখক লুৎফর রহমান রিটনের যৌবনপ্রাপ্তি ঘটেছিলো। ইত্তেফাক তাই আমার কাছে প্রথম প্রেমের নাম। প্রথম ভালোবাসার নাম। শুভ জন্মদিন ইত্তেফাক। ভালো থেকো তুমি।

অধুনালুপ্ত দৈনিক বাংলা সাবেক সাব-এডিটর ও শিফট ইনচার্জ সুমন রহমান বলেন, দৈনিক ইত্তেফাক আমাদের ইতিহাস ও ঐতিহ্যের অবিচ্ছেদ্য অংশ। বাংলাদেশের স্বাধিকার আন্দোলন ও স্বাধীনতা সংগ্রামের পক্ষে আপোসহীন ঐতিহাসিক ভূমিকা পালন করে এসেছে ইত্তেফাক। বাংলাদেশের অভ্যুদয়, তার বিবর্তন ও ক্রমবিকাশের বিবরণ লিপিবদ্ধ আছে ইত্তেফাকের পাতায়।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ইত্তেফাকের প্রকাশনা ‘প্রথম পাতা ১৯৫৩ – ১৯৭২’ এক অসামান্য ঐতিহাসিক দলিল। নতুন ও ভবিষ্যৎ প্রজন্ম এই পাতাগুলোর ওপর নজর বুলালেই একটি জাতির সচিত্র ইতিহাস ও সেইসঙ্গে ইত্তেফাকের ভূমিকা পরিস্ফুট হয়ে উঠবে তাদের সামনে।

এখন শুধু মাত্র ঢাকা থেকেই প্রকাশিত হচ্ছে ৫০২টি দৈনিক। সেখানে সর্ব শীর্ষে ইত্তেফাক। সোশ্যাল মিডিয়া ও ফেক নিউজের এই ডামাডোলের মাঝে দৈনিক ইত্তেফাক গণমানুষের নির্ভরযোগ্য মিডিয়ার ভূমিকা পালন করুক এটাই কাম্য।

স্থানীয় এন আর বি টিভির সিইও, এবং সাপ্তাহিক বাংলা মেইলের সম্পাদক শহিদুল ইসলাম মিন্টু জানান, বাংলাদেশের ইতিহাস ও সংস্কৃতির ‘আর্কাইভ’ ইত্তেফাক। প্রাচীনতম এই পত্রিকাটির সবচেয়ে বড় সাফল্য হচ্ছে যুগের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে আধুনিকায়ন। মুক্তিযুদ্ধ, বাংলাদেশ, শিল্প কিংবা সংস্কৃতি, সবকিছুতেই ইত্তেফাকের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। সাংবাদিকতা জীবনের শুরুতে এই পত্রিকাটির সঙ্গে আমার নিবিড় সম্পর্ক ছিলো। প্রতি শুক্রবারে প্রকাশিত ‘তরুণকন্ঠ’ ফিচার পাতার নিয়মিত প্রদায়ক ছিলাম টানা কয়েকবছর। অনেক স্মৃতি এই প্রকাশনাটিকে ঘিরে। ইত্তেফাক আরও এগিয়ে যাক। শততম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী দেখার প্রত্যাশা রইলো। বাংলামেইল ও এনআরবি টিভি পরিবারের পক্ষ থেকে ইত্তেফাক সংশ্লিষ্ট সকলকে অভিনন্দন।

সিবিএন২৪’এর সম্পাদক মাহবুবুল হক ওসমানী বলেন, সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক এবং ছাত্র হিসেবে আমরা ইত্তেফাকের মাধ্যমে অনেক অভিজ্ঞতা অর্জন করেছি। দেখেছি- স্বাধীনতার অনেক আগে থেকেই এই পত্রিকা নানা ভাবে ঐতিহাসিক ভূমিকা পালন করছে, যা আমাদের জন্য গর্বের। এবং এখনো সেই তা অব্যাহত রয়েছে। বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতায় ইত্তেফাকের বিরল অবদান অতুলনীয়। দীর্ঘ সাত দশকে অনেক দৈনিক হারিয়ে গেলেও ইত্তেফাকের গৌরবোজ্জ্বল পতাকা এখনো পত পত করে উড়ছে। সেই ধারা অব্যাহত থাকবে, এই প্রত্যাশা করছি।

Sakibur Rahman Khan, unpaid reporter of Daily Prothom Alo, said from UNIPEC that the role played by Ittefaq for the independence of Bangladesh is impeccable. Yet the fact that Ittefaq is publishing news from different regions, including Manitoba, Canada, at home and abroad, is certainly commendable. From Tofazzal Hossain Manik Mia, the founder of this magazine, to all those who have brought Ittefaq to this stage and are taking it to this stage, including our Canadian correspondent, I extend my best wishes.

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles