15.3 C
Toronto
বুধবার, মে ২৫, ২০২২

দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে ফ্লাইট বন্ধ

- Advertisement -
দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে ফ্লাইট বন্ধ - The Bengali Times
পরিবহনমন্ত্রী ওমর আলঘাবরা বলেন, এই মুহূর্তে অন্যান্য দেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হচ্ছে না। তবে সরকার পরিস্থিতি নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছে

করোনাভাইরাসের নতুন ধরণ সনাক্ত হওয়ার পর তাৎক্ষণিকভাবে দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে ফ্লাইট বন্ধ করে দিয়েছে অটোয়া। ২০২২ সালের ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত এ নিষেধাজ্ঞা বলবৎ থাকবে। ওমিক্রন নামে ভাইরাসের নতুন ধরনটি সনাক্ত হওয়ার পর বিদেশি নাগরিক ও কানাডিয়ানদের ব্যাপারে শুক্রবার নতুন ভ্রমণ বিধিনিষেধ ঘোষণা করেন ফেডারেল কর্মকর্তারা।
কানাডার প্রধান জনস্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. তেরেসা ট্যাম শুক্রবার নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে বলেন, বর্ধিত সংক্রমণ ও ভ্যাকসিনের কারণে সৃষ্ট সুরক্ষার বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলার সম্ভাবনার কারণে নতুন ধরনটি নিয়ে আমরা উদ্বিগ্ন এবং পরিস্থিতির ওপর নজর রাখছি।

এর পরিপ্রেক্ষিতে গত ১৪ দিন দক্ষিণ আফ্রিকায় অবস্থানরত সব বিদেশি নাগরিকের কানাডায় প্রবেশ নিষিদ্ধ করেছে ফেডারেল সরকার। যেসব দেশ এ ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার আওতায় এসেছে সেগুলো হলো দক্ষিণ আফ্রিকা, মোজাবি¥ব, বতসোয়ানা, এসওয়াইতিনি, জিম্বাবুয়ে, লেসোথো ও নামিবিয়া।

- Advertisement -

পরিবহনমন্ত্রী ওমর আলঘাবরা বলেন, এই মুহূর্তে অন্যান্য দেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হচ্ছে না। তবে সরকার পরিস্থিতি নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছে। প্রাপ্ত তথ্য ও চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী তালিকা পরিবর্তন করার প্রয়োজন হলে আমরা তা করবো। আপাতত এই সাতটি দেশের ক্ষেত্রে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা বলবৎ থাকবে। তবে তালিকায় থাকা দেশগুলোর পরিস্থিতি আমরা অব্যাহতভাবে মূল্যায়ণের মধ্যে রাখবো।

দক্ষিণ আফ্রিকা ভ্রমণকারী কানাডিয়ান ও স্থায়ী নাগরিকদের দেশে ফেরামাত্রই কোভিড পরীক্ষা করা হবে। সেই সঙ্গে কোভিড নেগেটিভ না হওয়া পর্যন্ত কেন্দ্রীয়ভাবে অনুমোদিত স্থানে তাদেরকে কোয়ারেন্টিনে রাখা হবে। পরীক্ষার ফলাফল নেগেটিভ হলে তাদেরকে বাড়িতে কোয়ারেন্টিন করতে হবে এবং কোয়ারেন্টিনের দশম দিনে আরেকটি পরীক্ষা করতে হবে। দক্ষিণ আফ্রিকা ত্যাগকারী যেসব কানাডিয়ান পরোক্ষভাবে অন্য দেশের মধ্য দিয়ে কানাডায় ফিরবেন তাদেরকে ফেরার আগে ওই দেশে কোভিড পরীক্ষা করতে হবে।

এছাড়া আপাতত দক্ষিণ আফ্রিকা ভ্রমণকে নিরুৎসাহিত করে গ্লোবাল অ্যাফেয়ার্সও ভ্রমণ নির্দেশনা জারি করেছে। বর্তমানে কানাডা থেকে দক্ষিণ আফ্রিকায় সরাসরি কোনো ফ্লাইট নেই বলে শুক্রবার জানান ওমর আলঘাবরা।
এদিকে ভাইরাসের ওমিক্রম ধরনটি এখন পর্যন্ত কানাডায় সনাক্ত হয়নি বলে জানিয়েছেন ডা. তেরেসা ট্যাম। তিনি বলেন, ভ্রমণকারীদের পরীক্ষা করে কারও মধ্যেই এখন পর্যন্ত ধরটি সসনাক্ত করা যায়নি।

সেসব দেশে সংক্রমণের ঝুঁকি আছে সেসব দেশের সঙ্গে তাৎক্ষণিকভাবে ফ্লাইট বন্ধে শুক্রবার অটোয়ার প্রতি আহ্বান জানান অন্টারিওর প্রিমিয়ার ডগ ফোর্ড।

প্রাদেশিক কর্মকর্তাদের তথ্য অনুযায়ী, ২০২১ সালের জুন থেকে এখন পর্যন্ত ৯ হাজার ভ্রমণকারী দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে কানাডায় ফিরেছেন।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles