19.7 C
Toronto
বৃহস্পতিবার, জুলাই ১৮, ২০২৪

শোয়েবকে বিয়ের আগে কেন শহিদ কাপুরের সঙ্গে প্রেম ভেঙেছিল সানিয়া মির্জার?

শোয়েবকে বিয়ের আগে কেন শহিদ কাপুরের সঙ্গে প্রেম ভেঙেছিল সানিয়া মির্জার?
সানিয়া মির্জা ও শহিদ কাপুর

সানিয়া মির্জা, ভারতের তারকা খেলোয়াড়। দু’দশকের বেশি সময় ধরে টেনিস খেলেছেন তিনি। আন্তর্জাতিক স্তরে দেশের নাম উজ্জ্বল করেছেন সানিয়া। টেনিস থেকে অবসর নিলেও তাকে নিয়ে চর্চার শেষ নেই।

টেনিস তারকা সানিয়ার ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে কাটাছেঁড়া চলে অবিরত। কানাঘুষা শোনা যায়, বলিউড অভিনেতা শহিদ কাপুরের সঙ্গেও নাকি সম্পর্কে জড়িয়েছিলেন তিনি। কিন্তু সেই শহিদ কাপুর সানিয়ার ওপর অধিকারবোধ ফলাতেন বলে সম্পর্কে ইতি টানেন টেনিস তারকা।

- Advertisement -

২০১০ সালের এপ্রিল মাসে পাকিস্তানি ক্রিকেটার শোয়েব মালিককে বিয়ে করেন সানিয়া। বিয়ের আট বছর পর ২০১৮ সালে পুত্রসন্তান ইজহানের জন্ম দেন তিনি। দীর্ঘ দিন এক ছাদের তলায় থাকলেও সংসার ভেঙে যায় সানিয়া এবং শোয়েবের।
২০২৪ সালের জানুয়ারি মাসে সানিয়া সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে জানান, কয়েক মাস আগে শোয়েবের সঙ্গে বিচ্ছেদ হয়ে গিয়েছে তার। বিচ্ছেদের পর পুত্রসন্তানকে নিয়ে একাই থাকেন সানিয়া। টেনিস থেকেও অবসর নিয়েছেন তিনি।

বলিপাড়ার অন্দরমহলে কান পাতলে শোনা যায়, ২০০৯ সালে এক বন্ধুর বাড়ির পার্টিতে সানিয়ার সঙ্গে আলাপ হয় শহিদ কাপুরের। সেখানেই বন্ধুত্ব হয় দু’জনের। টেনিস তারকার সঙ্গে অভিনেতার বন্ধুত্ব ক্রমশ গভীর হতে থাকে।

বলিপাড়ার অধিকাংশের দাবি, কারিনা কাপুরের সঙ্গে দীর্ঘ দিনের সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার পর সানিয়ার সঙ্গে বন্ধুত্ব আরও বাড়তে থাকে শহিদ কাপুরের। দু’জনের বন্ধুত্ব ক্রমে প্রেমের সম্পর্কে পরিণত হয়।

সানিয়া এবং শহিদ দু’জনের কেউ তাদের সম্পর্কের কথা প্রকাশ্যে স্বীকার না করলেও ফটোগ্রাফারদের সঙ্গে লুকোচুরিও খেলতেন না তারা। দু’জনকে একসঙ্গে বহু জায়গায় দেখা গিয়েছে। ফটোগ্রাফারদের ক্যামেরার লেন্সে একসঙ্গে ধরাও দিয়েছেন তারা।

কানাঘুষা শোনা যায়, সানিয়ার সঙ্গে সময় কাটাতে চান বলে পরিচালকের কাছে শুটিংয়ের স্থান এবং সময় পরিবর্তন করার অনুরোধ করেছিলেন শহিদ কাপুর।

২০০৯ সালে বিশাল ভরদ্বাজের পরিচালনায় প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পায় ‘কামিনে’ ছবিটি। এই ছবির আউটডোর শুটিং হয়েছিল হায়দারাবাদে। বলিপাড়ার গুঞ্জন, হায়দারাবাদে যেন শুটিং করা হয় সেই অনুরোধ বিশালের কাছে করেছিলেন শহিদ।

বলিপাড়ার একাংশের দাবি, হায়দারাবাদে শুটিংয়ে গেলে সানিয়ার সঙ্গে সময় কাটাতে পারবেন বলেই শুটিংয়ের স্থান, সময় ঠিক করেছিলেন শহিদ। সানিয়ার সঙ্গে শহিদের সম্পর্ক অবশ্য বেশি দিন টেকেনি।

শোনা যায়, সানিয়াকে নাকি ‘ট্রফি’ হিসেবে দেখতেন শহিদ। টেনিস তারকার প্রতি অধিকারবোধ খাটাতে থাকেন অভিনেতা। তাই শহিদের সঙ্গে সম্পর্কের ইতি টানেন সানিয়া।

বলিপাড়ার গুঞ্জন, সানিয়া এবং শহিদের সম্পর্কে তৃতীয় ব্যক্তি হিসেবে এক তেলুগু অভিনেতা প্রবেশ করেছিলেন। সে কারণেই নাকি দুই তারকার সম্পর্ক ভেঙে যায়।

শহিদের সঙ্গে বিচ্ছেদের পর শোয়েব মালিকের সঙ্গে বিয়ে হয় সানিয়ার। অন্য দিকে ২০১৫ সালে মীরা রাজপুতের সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধেন শহিদ।

করন জোহর সঞ্চালিত ‘কফি উইথ করন’ শোয়ের একটি পর্বে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সানিয়া। করন তাকে প্রশ্ন করেছিলেন যে, শহিদের সঙ্গে তার কোনও সম্পর্ক ছিল কি না।

করনের প্রশ্নে সানিয়া জবাব দিয়েছিলেন, “এগুলো বহু পুরনো কথা। আমার ঠিকঠাক মনেও নেই। এ রকম কিছুই হয়নি। আমাকে তো সারা দিন ঘুরে বেড়াতেই হতো।”

করন মজার ছলে সানিয়াকে জিজ্ঞাসা করেছিলেন- রণবীর কাপুর, রণবীর সিং এবং শহিদ কাপুরের মধ্যে তিনি কার সঙ্গে অন্তরঙ্গ মুহূর্ত কাটাতে চান, কাকে বিয়ে করতে চান এবং কোন অভিনেতাকে প্রাণে মেরে ফেলতে চান।

করনের প্রশ্নে সানিয়ার জবাব ছিল, “আমি রণবীর সিংয়ের সঙ্গে অন্তরঙ্গ মুহূর্ত কাটাতে চাই। রণবীর কাপুরকে বিয়ে করতে চাই এবং শহিদকে মেরে ফেলতে চাই।”

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles