অসুস্থ বাবাকে দেখতে যশোরে গিয়েছিল ‘নিখোঁজ’ তিন বোন

- Advertisement -
ছবি সংগ্রহ

রাজধানীর আদাবর এলাকার খালার বাসা থেকে বেরিয়ে যাওয়া তিন বোন তার অসুস্থ বাবাকে দেখতে যশোর গিয়েছিল বলে জানিয়েছে র‌্যাব। তারা কাউকে কিছু না জানিয়ে যশোরে গিয়েছিল। তাদের সন্ধান পাওয়ার পর র‌্যাব-২–এর অধিনায়ক লে. কর্নেল আবু নাঈম মো. তালাত এ তথ্য জানান। বলেন, ‘আমরা ভিডিও কলে তাদের সঙ্গে কথা বলেছি। তাদের চাচাদের সঙ্গেও আমাদের কথা হয়েছে। ভিডিও কলে তারা তাদের খালার সঙ্গেও কথা বলেছে। তারা নিখোঁজ হয়নি।’

যদিও বৃহস্পতিবার বাসা থেকে বের হয়ে যাওয়ার পর থেকেই তাদের কোন সন্ধান পাচ্ছিল না তাদের খালা সাজেদা নওরীন। এরপর রাতে আদাবর থানায় নিখোঁজ হয়েছে দাবি করে একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন।

- Advertisement -

সেখানে তিনি জানান, রোকেয়া (১৮), জয়নব আরা (১৭) ও খাদিজা আরা (১৬)- এই তিন বোনের দুই জন এসএসসি পরীক্ষার্থী। পরীক্ষা চলাকালীন তারা পিএসসি, জেএসসির সার্টিফিকেট, পরীক্ষার অ্যাডমিট কার্ড ও রেজিস্ট্রেশন ফর্মসহ বাসা থেকে বেরিয়ে যায়।

তারা তিনজনই টিকটকে আসক্ত ছিল। পরিবারের সন্দেহ, টিকটকার কোনো চক্রের প্ররোচনায় তারা বাসা থেকে বেরিয়ে গেছে।

- Advertisement -

যদিও তাদের খালাকে বিষয়টি না জানিয়ে কেন বাসা থেকে বেরিয়ে গেল তা জানতে পারেনি র‌্যাব। এ বিষয়ে জানতে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলে জানান র‌্যাব-২- এর অধিনায়ক।

- Advertisement -

এর আগে, ওই তিন ছাত্রীর খালা সাজেদা নওরীন বৃহস্পতিবার (১৮ নভেম্বর) রাতে আদাবর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন। এরপর র‍্যাব-২ ও সদরদপ্তরের গোয়েন্দা শাখা ছায়া তদন্ত শুরু করে। তদন্তের এক পর্যায়ে র‍্যাব-২ এর একটি দল তাদের যশোরে শনাক্ত করে হেফাজতে নেয়।

ওই তিন ছাত্রী বাসা থেকে বের হওয়ার পর সাজেদা নওরীন সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছিলেন, তার বড় বোন তিন বছর আগে মারা গেছে। আর দুলাভাই অন্য জায়গায় বিয়ে করেছে। এরপর তিন বোনের মধ্যে মেজো ও ছোট বোন থাকত খিলগাঁও তার ছোট খালার বাসায়। তাদের বড় বোন থাকত আদাবরে বড় খালার বাসায়।

কিন্তু এসএসসি পরীক্ষা শুরু হলে জয়নব আরা এবং খাদিজা আরার পরীক্ষার সেন্টার পড়ে ধানমণ্ডি গার্লস হাই স্কুলে। সে কারণে আদাবরে তার নিজের কাছে নিয়ে আসেন সাজেদা নওরীন। এর মধ্যেই তারা হঠাৎ তিনজন বাসা থেকে কাউকে কিছু না বলে বেরিয়ে যান।

তিনি জানান, বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা ৫০ মিনেটে তার বাসায় তিন বোন ছাড়া আর কেউ ছিল না। এ সুযোগে সকাল ১১টার দিকে নিজেদের কাপড়চোপড় নিয়ে তারা বের হয়ে যায়। ১১টা ১০ মিনেটের দিকে তাদের খালা সাজেদা নওরীন বাসায় ফিরে দেখেন, তারা বাসায় নেই। বাড়ির সিসি ক্যামেরায় তাদের বের হওয়ার দৃশ্য দেখা গেছে। খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে থানায় জিডি করেন। তারা যাওয়ার সময় তাদের বই-খাতা, পরীক্ষার অ্যাডমিট কার্ড রেজিস্ট্রেশন ফর্মসহ সব কিছু নিয়ে গেছে।

তিনি জানান, মেজো ও ছোট বোন টিকটকে আসক্ত ছিল। তাদের দেখাদেখিতে বড় বোনও মাঝেমধ্যে টিকটক করত।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles