7.8 C
Toronto
বুধবার, এপ্রিল ১৭, ২০২৪

এই ৫ গুণ থাকলে বুঝবেন আপনি বুদ্ধিমান

এই ৫ গুণ থাকলে বুঝবেন আপনি বুদ্ধিমান
<br >ছবি সংগৃহীত

বুদ্ধিমান মানুষকে কখনো নিজেকে বলে দিতে হয় না যে সে বুদ্ধিমান। তার আচরণ, কথা, কাজ ইত্যাদি দেখে আপনিই বুঝতে পারবেন। এখন কথা হলো, কী এমন কাজ যে কারণে তাদের বুদ্ধিমান মনে হয়, কেন অন্য সবাই তাদের মতো হয় না? কারণ তারা কিছু বিশেষ গুণের অধিকারী হন বা আয়ত্ব করেন। যেগুলো নিজের ভেতরে আয়ত্ব করতে পারলে আপনিও হয়ে উঠবেন বুদ্ধিমান একজন। চলুন জেনে নেওয়া যাক-

১. বই পড়া

- Advertisement -

বুদ্ধিমান ব্যক্তিরা পড়াকে তাদের দৈনন্দিন রুটিনের একটি অপরিহার্য অংশ করে তোলে। তথ্য শোষণ এবং ধরে রাখার ক্ষমতার কারণে পড়ার অভ্যাস বুদ্ধিমত্তার বিকাশে সাহায্য করে। সাম্প্রতিক গবেষণায় দেখা গেছে যে, বিশেষ করে একা একা পড়ার অভ্যাস মস্তিষ্কের সংযোগ উন্নত করতে সাহায্য করে। আমরা যখন পড়ি, তখন অন্য কারো মনে প্রবেশ করতে পারি এবং অন্য দৃষ্টিকোণ থেকে মানুষ, ধারণা এবং পরিস্থিতি দেখতে পারি। ফলে একই অভিজ্ঞতার মধ্য দিয়ে না গিয়ে একটি চরিত্রের মানসিক বৃদ্ধি এবং চ্যালেঞ্জ অতিক্রম করার ক্ষমতা থেকে উপকৃত হই। সুতরাং, আপনি যদি পড়তে ভালোবাসেন, তাহলে আপনি বুদ্ধিমান ব্যক্তিদের সবচেয়ে সাধারণ অভ্যাসগুলোর একটির অধিকারী এবং আপনি প্রকৃতপক্ষে একজন বুদ্ধিমান ব্যক্তি।

২. কৌতূহলী এবং সৃজনশীল

অনেক বেশি কৌতূহল থাকলে মানুষ আরও অনুসন্ধানী হয়ে ওঠে। ফলস্বরূপ তারা যখন সঠিক গবেষণা পরিচালনা করে বা একটি নির্দিষ্ট বিষয় সম্পর্কে প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করে তখন তারা আরও জ্ঞান অর্জন করে। যখন কেউ কৌতূহলী হয়, তখন সে আরও মৌলিক ধারণা লাভ করে, যা সৃজনশীলতার দিকে নিয়ে যায়। কৌতূহলী হওয়া অত্যন্ত বুদ্ধিমান ব্যক্তিদের অভ্যাসগুলোর মধ্যে একটি।

৩. উৎপাদনশীলতা

সবচেয়ে বুদ্ধিমান ব্যক্তিরা সব ধরনের প্রত্যাশাকে অতিক্রম করে এবং বিশ্বের দীর্ঘস্থায়ী পরিবর্তন করে তাদের ব্যক্তিগত উৎপাদনশীলতা আয়ত্ত করেছে। তারা তাদের মূল্যবোধ এবং নির্দিষ্ট চাহিদার ভিত্তিতে সমগ্র জীবন পরিকল্পনা করেছে। একজন বুদ্ধিমান ব্যক্তির এই উৎপাদনশীলতার বৈশিষ্ট্য থাকে। উৎপাদনশীলতা সিস্টেম ডিজাইন করার কথা ভাবুন যা আপনার জীবন যতই ব্যস্ত হোক না কেন আপনাকে ট্র্যাকে রাখবে।

৪. নিজেকে সমৃদ্ধ করা

বুদ্ধিমান ব্যক্তিরা নিজেকে প্রতিনিয়ত সমৃদ্ধ করে। তারা প্রতিটি সমস্যাকে শেখার সুযোগ হিসাবে দেখে এবং তারা তাদের পরিস্থিতি নিয়ে অজুহাত দেয় না। তাদের জন্য কোনো ব্যর্থ পরীক্ষা বা প্রচেষ্টা কেবল নতুন তথ্য। কঠিন এবং চ্যালেঞ্জিং পরিস্থিতিগুলোকে শেখার সুযোগ হিসাবে দেখার জন্য মানসিকতা পরিবর্তন করার অভ্যাসই সমৃদ্ধির দিকে নিয়ে যায়। আপনার যদি এ ধরনের মানসিকতা থাকে তবে জানবেন, আপনি একজন বুদ্ধিমান ব্যক্তি।

৫. নিজের স্মার্টনেস নিয়ে কথা না বলা

বুদ্ধিমান ব্যক্তিরা অন্যরা কীভাবে তাদের উপলব্ধি করে সে সম্পর্কে উদ্বিগ্ন থাকেন না। তারা তাদের মন বড় করতে ব্যস্ত। তারা তাদের জ্ঞান নিয়ে বড়াই করেন না, তারা এটি প্রয়োগ করেন। তারা মনোযোগী শ্রোতা হন। অন্যের কথা মন দিয়ে শোনেন এবং অন্যকে বলার সুযোগ দেন। বুদ্ধিমান মানুষেরা জটিল কিছুকে এত সহজ এবং সরলভাবে ব্যাখ্যা করতে সক্ষম হন যে প্রায় সবাই তা বুঝতে পারে। নিজের স্মার্টনেস নিয়ে তাই তাদের আলাদা করে কিছু বলতে হয় না, তাদের কথা, আচরণ ও কাজই তাদের স্মার্টনেস ফুটিয়ে তোলে।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles