15.2 C
Toronto
মঙ্গলবার, এপ্রিল ১৬, ২০২৪

ডিজিটাল সেফটি কমিশন গঠন করতে চায় লিবারেলরা

ডিজিটাল সেফটি কমিশন গঠন করতে চায় লিবারেলরা
বিচারমন্ত্রী আরিফ ভিরানি বহু প্রতীক্ষিত অনলাইন হার্মস অ্যাক্ট ২৬ ফেব্রুয়ারি বিকালে উত্থাপন করেন নতুন পদক্ষেপ হিসেবে কেবলমাত্র নতুন একটি নিয়ন্ত্রক সংস্থা গঠনের প্রস্তাবই করা হয়েছে

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোকে নিয়ন্ত্রণে ডিজিটাল সেফটি কমিশন অব কানাডা গঠনের পরিকল্পনা করছে লিবারেল সরকার। সামাজিক যোগাযোগ কোম্পানিগুলো যাতে তাদের ব্যবহারকারীদের অনলাইন ক্ষতি কমিয়ে আনতে পদক্ষেপ গ্রহণ করে সেটাই এর উদ্দেশ্য।
বিচারমন্ত্রী আরিফ ভিরানি বহু প্রতীক্ষিত অনলাইন হার্মস অ্যাক্ট ২৬ ফেব্রুয়ারি বিকালে উত্থাপন করেন। নতুন পদক্ষেপ হিসেবে কেবলমাত্র নতুন একটি নিয়ন্ত্রক সংস্থা গঠনের প্রস্তাবই করা হয়েছে।

অনলাইন ক্ষতি থেকে কানাডিয়ান বিশেষ করে তরুণদের উন্নত সুরক্ষায় দীর্ঘদিন ধরে প্রতিশ্রুতি দিয়ে আসছেন প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। কিন্তু তার মন্ত্রীরা বারবারই বলে আসছেন, এ ধরনের আইন তৈরি করাটা জটিল।

- Advertisement -

বিল সি-৬৩ নামে পরিচিত বিলটিতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সেবার জন্য নতুন একটি নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষ গঠনের কথা বলা হয়েছে। সেই সঙ্গে অনলাইন সুরক্ষা নিয়ে উদ্বিগ্ন ব্যবহারকারীদের পক্ষে কথা বলতে ন্যায়পাল প্রতিষ্ঠার কথাও বলা হয়েছে বিলে।
যেসব ক্ষতির এর অন্তর্ভুক্ত হবে তার মধ্যে রয়েছে সম্মতি ছাড়াই অন্তরঙ্গ ছবি বিনিময় করা, আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স দিয়ে তৈরি ডিপফেক এবং সাইবারবুলিং, সহিংসতায় উস্কানি, সন্ত্রাসবাদ ও বিদ্বেষ ছড়ায় এমন আধেয়।

আইনটির আওতায় শিশুদের যৌন হয়রানি করে এমন আধেয় এবং কারো সম্মতি ছাড়াই তার অন্তরঙ্গ ছবি শেয়ার করা হলে তা প্রত্যাহারের আদেশ দেওয়ার ক্ষমতা পাবে কমিশন। আইনে বলা হয়েছে, আদেশ পাওয়ার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে এ ধরনের বিষয়গুলো কোম্পানিগুলোকে অবশ্যই সরিয়ে নিতে হবে।

বিলের অধীনে ব্যবহারকারীরা প্ল্যাটফরমে বা নতুন নিয়ন্ত্রক সংস্থার কাছে অভিযোগ দাখিল করতে পারবেন।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles