21.3 C
Toronto
রবিবার, জুন ২৩, ২০২৪

নারী নৃত্যশিল্পীকে অপহরণ, ৯৯৯ এ কল পেয়ে উদ্ধার

নারী নৃত্যশিল্পীকে অপহরণ, ৯৯৯ এ কল পেয়ে উদ্ধার
সংগৃহীত ছবি

বগুড়ার গাবতলীতে এক নারী নৃত্যশিল্পীসহ ৫ জনকে অপহরণের ঘটনা ঘটেছে। পরে জাতীয় জরুরি সেবা নম্বরে (৯৯৯) এ কল পেয়ে তাদের উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ সময় ৪ অপহরণকারীকে গ্রেপ্তার করে বুধবার বিকেলে আদালতে পাঠানো হয়েছে। মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১০টা থেকে বুধবার ভোর ৬টা অব্দি এ ঘটনা ঘটে। গতকাল সন্ধ্যায় গাবতলীর থানার তদন্ত কর্মকর্তা আব্দুস শুকুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলো— গাবতলীর পাঁচকাতুলী পশ্চিমপাড়ার মো: সাফিন মিয়া (২২), মো: আব্দুস ছালাম (২০), মো: মামুনুর রশিদ ওরফে নীরব হোসেন (২০) এবং মো: মোস্তাকিম (১৯)।

- Advertisement -

অপহরণের শিকার ভুক্তভোগীরা হলেন— বগুড়া সদরের বুজর্গধামা এলাকার মো: মোন্তাসির ছিদ্দিক শিশির (২৩), সদরের নারুলী দক্ষিণপাড়া এলাকার তাহাজ্জত ইসলাম (২৪), পালশা মধ্যপাড়া এলাকার শ্রী অর্কো কুমার শীল মিথুন (১৯), একই এলাকার জয় শেখ (১৮) এবং শহরের ঠনঠনিয়া কলোনি এলাকার নৃত্যশিল্পী মোছা: সামিয়া ওরফে পপি (২২)। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী মো: মোন্তাসির ছিদ্দিক শিশির বাদী হয়ে গাবতলী থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

গাবতলী থানায় মামলা সূত্রে জানা যায়, স্থানীয়ভাবে নাচের প্রশিক্ষণ নেওয়া ওই তরুণী বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে থাকেন। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ওই তরুণী ও তার বন্ধুরা তাহাজ্জতের গ্রামের বাড়ি গাবতলীর রামেশ্বরপুরের পাঁচকাতুলী পশ্চিমপাড়ায় একটি পারিবারিক নাচের অনুষ্ঠানে যান। সেখানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়ায় তার রাত ১০টার দিকে ওই এলাকা থেকে সিএনজি করে শহরে ফেরার জন্য রওনা দেন। পথিমধ্যে তাদের সিএনজি বিকল হলে তারা হেটে সামনের স্ট্যান্ড মগার মোড়ের হেঁটে এগোতে থাকেন। বুড়িরতলা এলাকায় পৌঁছালে পাঁচকাতুলী পশ্চিমপাড়ার আরিফুর রহমান রাঙ্গার নেতৃত্বে সিএনজি নিয়ে ৮/১০ জন দুর্বৃত্ত দেশীয় অস্ত্রের মুখে তাদের অপহরণ করে নিয়ে যায়। এ সময় তাদের কাছে থাকা নগদ সাড়ে ১২ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয় এবং ২ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। টাকা দিতে অস্বীকার করলে অপহরণকারীরা তাদের এলোপাথাড়ি মারপিট করে ও প্রাণনাশের হুমকি দেয়।

চুরি যাওয়া শিশু দেড় মাসেও উদ্ধার হয়নিচুরি যাওয়া শিশু দেড় মাসেও উদ্ধার হয়নি
পুলিশ জানায়, মুক্তিপণ দিতে অস্বীকার করলে অপহরণকারীরা ওই নারী নৃত্যশিল্পীর মাথায় ইট দিয়ে আঘাত করেন। নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে তরুণী তার এক নিকটাত্মীয়কে এবং এক বন্ধু তার চাচাকে ফোন করে মুক্তিপণের টাকা দিয়ে তাদেরকে ছাড়িয়ে নেওয়ার আকুতি জানান। ফোন পেয়ে তরুণীর ওই নিকটাত্মীয় তাৎক্ষণিক ৯৯৯ নম্বরে ফোন করে অপহরণের শিকার পাঁচজনকে উদ্ধারে সহযোগিতা চান। খবর পেয়ে রাতেই অভিযানে নামে পুলিশ। পরে পাঁচকাতুলী এলাকায় একটি পরিত্যক্ত গোডাউন থেকে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় তাদের উদ্ধার করা হয়। এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ঘটনার মূল হোতা আরিফুর রহমান রাঙ্গাসহ বেশ কয়েকজন পালিয়ে যায় এবং ঘটনাস্থল থেকে ৪ অপহরণকারীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরে অপহরণ হওয়া ৫ জনকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে গাবতলী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য প্রেরণ করে।

বুধবার রাত ৯টার দিকে ভুক্তভোগী সামিয়া ওরফে পপি মুঠো ফোনে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, আমরা অনুষ্ঠান থেকে ফেরার পথে এ ঘটনা ঘটে। কিছু বুঝে ওঠার আগে তারা আমাদের বেধে নিয়ে যায়। বর্তমানে তিনিসহ সকলে সুস্থ আছেন।

বুধবার রাত ৯টার দিকে গাবতলী থানার তদন্ত কর্মকর্তা আব্দুস শুকুর জানান, গ্রেপ্তারকৃত আসামীদের বুধবার বিকেলে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনার মূল হোতা আরিফুর রহমান রাঙ্গা সহ অন্যান্য আসামীদের ধরতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles