26.1 C
Toronto
শনিবার, জুলাই ১৩, ২০২৪

পাকিস্তানকে হারিয়ে ফাইনালে অস্ট্রেলিয়া

পাকিস্তানকে হারিয়ে ফাইনালে অস্ট্রেলিয়া - the Bengali Times
ছবি সংগ্রহ

টি-২০ বিশ্বকাপের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে পাকিস্তানকে ৫ উইকেটে হারিয়ে ফাইনালে অস্ট্রেলিয়া। টানটান ম্যাচে শেষ হাসি হাসল অস্ট্রেলিয়া। ৬ বল বাকি থাকতেই ৫ উইকেটে জয় ছিনিয়ে নিল অ্যারন ফিঞ্চের দল। ক্রিকেটপ্রেমীরা বলবেন, এই না হলে সেমিফাইনাল। একেবারে টান টান উত্তেজনা। এক ওভার বাকি থাকতেই ম্যাচ পকেটে পুড়লেন অস্ট্রেলিয় ব্যাটাররা।

এদিন টস জিতে আগে পাকিস্তানকে ব্যাট করতে পাঠান অজি অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ। টসে জিতে অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ বলেন, “আমরা মনে করছি রান তাড়ার জন্য এটি বেশ ভাল উইকেট।” অন্যদিকে, পাক অধিনায়ক বাবর আজম বলেছিলেন, “আমরা স্কোর বোর্ডে ভাল রান রাখার চেষ্টা করব। ভাল খেলার সব ধরনের চেষ্টা থাকবে আজ। এই আবহাওয়া ও পিচ আমাদের পরিচিত।”

- Advertisement -

ম্যাচের শুরুটা অবশ্য ভালই করেছিলেন পাক অধিনায়ক বাবর আজম ও মহম্মদ রিজওয়ান। শুরুতেই অস্ট্রেলিয় বোলারদের চেপে ধরেছিল পাকিস্তানের দুই ব্যাটার। ম্যাচের শুরু থেকেই ছন্দে ছিলেন বাবর। একের পর এক ওভার বাউন্ডারিতে রানের পাহাড় গড়ার লক্ষ্যমাত্রাও নিয়েছিলেন। কিন্তু ছন্দপতন ঘটালেন জাম্পা। দশম ওভারের শুরুতেই ওয়ার্নারের হাতে ক্যাচ আউট হন বাবর। পাঁচটি বাউন্ডারি নিয়ে ৩৪ বলে ৩৯ রান করে প্যাভিলিয়নে ফেরেন পাক অধিনায়ক।

তবে এই ম্যাচে নজর কেড়েছেন মহম্মদ রিজওয়ান। এই হাইভোল্টেজ ম্যাচের শুরুতে তাঁর খেলাই অনিশ্চিত ছিল। সেমিফাইনাল শুরুর আগে দলের দুই অন্যতম নির্ভরযোগ্য ক্রিকেটার মহম্মদ রিজওয়ান ও শোয়েব মালিকের অসুস্থতা নিয়ে সমস্যা দেখা দিয়েছিল পাক শিবিরে। যদিও অস্ট্রেলিয় বোলিংকে চুরমার করে ৫২ বলে ৬২ রানের ইনিংস সাজান রিজওয়ান। ৪টি ওভার বাউন্ডারি আর ৩টি বাউন্ডারি দিয়ে এই ইনিংসে ভর করেই বড় রানের লক্ষ্যমাত্রা দেয় পাকিস্তান। তবে কম যান না ফকর জামানও। তাঁর ২৪ বলে ৪০ রানের ঝোড়ো ইনিংসে ভর করে ৪ উইকেট খুইয়ে ১৭৬ রান তুলেছিল পাকিস্তান।

জেতার জন্য ১৭৭ রানের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে নামে অজিরা। যদিও শুরুতেই ছন্দপতন। শূন্য রানে প্যাভিলিয়নে ফেরেন ক্যাপ্টেন অ্যারন ফিঞ্চ। এরপর পাকিস্তানের বিরুদ্ধে লড়াই জারি রেখেছিলেন অস্ট্রেলিয় ব্যাটাররা। ৫.৪ ওভারে ৫১ রান তুলেছিলেন তাঁরা। ক্রিজে ছিলেন মিচেল মার্শ ২৭ (১৯) এবং ডেভিড ওয়ার্নার ২৩ (১৬)। তবে ৮৪ বলে ১২৫ রান যখন প্রয়োজন সেই সময় সাজঘরে ফেরেন মার্শ। অন্যদিকে, ম্যাচের শুরু থেকে ঝোড়ো ব্যাটিং করেও ৪৯ রানে আউট হন ডেভিড ওয়ার্নার।

একসময় মনে হচ্ছিল পাকিস্তানের বোলিংয়ের সামনে যেন কিছুটা নড়বড়ে অজি ব্যাটাররা। সময় যত এগোচ্ছিল ততই যেন কঠিন পরিস্থিতি তৈরি হচ্ছিল অজিদের জন্য। একসময়ে ফাইনালে যেতে হলে ৪৬ বলে ৮১ রান প্রয়োজন ছিল তাঁদের। সেই সময় মাত্র ৭ রান করে শাদাব খানের বলে ক্যাচ আউট হন দলের নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যান গ্লেন ম্যাক্সওয়েল।

এরপর হাল ধরেন মার্কাস স্টোইনিস, ম্যাথিউ ওয়েড। ব্যাটে ঝড় তুলে ম্যাথিউ ওয়েড ১৭ বলে ৪১ রান করেন, অন্যদিকে, ৩১ বলে ৪০ রান করে দলকে জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে দেন স্টোইনিস। পাকিস্তানের বোলারদের মধ্যে সফল হয়েছেন শাহিন শাহ আফ্রিদি। চার ওভারে ৩৫ রান দিয়ে ৩ উইকেট নেন তিনি। যদিও ম্যাচে শেষ রক্ষা হল না।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles