18.2 C
Toronto
মঙ্গলবার, মে ২১, ২০২৪

বাংলাদেশি পণ্যের ইবিএ সুবিধা ২০৩২ সাল পর্যন্ত বাড়ানোর আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

বাংলাদেশি পণ্যের ইবিএ সুবিধা ২০৩২ সাল পর্যন্ত বাড়ানোর আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

বেলজিয়াম ও লুক্সেমবার্গের বাজারে ইবিএ (অস্ত্র ছাড়া সবকিছু) পরিকল্পনার আওতায় ২০২৯ সালের পরিবর্তে ২০৩২ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশি পণ্যের শুল্ক ও কোটামুক্ত প্রবেশ (ইবিএ) সুবিধা বাড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
বৃহস্পতিবার বেলজিয়ামের প্রধানমন্ত্রী আলেকজান্ডার ডি ক্রু এবং লুক্সেমবার্গের প্রধানমন্ত্রী জেভিয়ার বেটেলের সঙ্গে পৃথক দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে এ আহ্বান জানান তিনি।

- Advertisement -

বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ ২০২৬ সালে এলডিসি থেকে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হতে যাচ্ছে। এ উত্তরণকে পুরস্কৃত করতে ২০২৯ সালের পরিবর্তে ২০৩২ সাল পর্যন্ত ইবিএ সুবিধা অব্যাহত রাখুন। কোভিড-১৯ মহামারি ও রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের জন্য বাংলাদেশ সমস্যায় রয়েছে। ইউরোপীয় ইউনিয়নের ইবিএ সুবিধা বৃদ্ধি আমাদের উন্নয়নের জন্য সহায়ক হবে।

বেলজিয়ামের প্রধানমন্ত্রী আলেকজান্ডার ডি ক্রুকে বাংলাদেশে বৃহত্তর বিনিয়োগ করার অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, বেলজিয়াম নবায়নযোগ্য শক্তির পাশাপাশি জাহাজ নির্মাণখাতে আমাদের সঙ্গে কাজ করতে পারে। আমরা এখন জাহাজ তৈরি করছি, বেলজিয়াম আমাদের কাছ থেকে উচ্চমানের জাহাজ তৈরি করিয়ে নিতে পারে।

শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ ফার্মাসিউটিক্যালস খাতে আগের চেয়ে অনেক অনেক সমৃদ্ধ। আমরা বর্তমানে ১১৭টি দেশে ওষুধ রফতানি করছি।

লুক্সেমবার্গের প্রধানমন্ত্রী জেভিয়ার বেটেলের সঙ্গে বৈঠকে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী বলেন, লুক্সেমবার্গের ব্যাংকিং খাত অনেক সমৃদ্ধ। তারা বাংলাদেশের ব্যাংকিং খাতকে তাদের দক্ষতা বিনিময়ের মাধ্যমে পরিণত করতে পারে। এছাড়া অন্যান্য সহযোগিতার মাধ্যমে দুই দেশের সম্পর্ক আরো চমৎকার হয়ে উঠতে পারে।

বৈঠক শেষে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন এক ব্রিফিংয়ে জানান, শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে গত ১৫ বছরে বাংলাদেশের অভূতপূর্ব উন্নয়নের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন বেলজিয়াম ও লুক্সেমবার্গের প্রধানমন্ত্রী।

তিনি আরো জানান, দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য ও ব্যবসা বাড়াতে শিগগিরই বাংলাদেশ ও লুক্সেমবার্গের মধ্যে একটি এয়ার সার্ভিস চুক্তি স্বাক্ষরিত হতে যাচ্ছে। এছাড়া আইসিটি ও নবায়নযোগ্য জ্বালানি খাতে দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতার বিষয়েও আলোচনা হয়েছে।

ব্রিফিংয়ে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম উপস্থিত ছিলেন।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles