14.1 C
Toronto
রবিবার, মে ২৬, ২০২৪

সেই মরিয়ম ও নূরের পাশে দাঁড়ালেন পরীমনি

সেই মরিয়ম ও নূরের পাশে দাঁড়ালেন পরীমনি
মরিয়ম ও নূর ইনসেটে পরীমনি

বাবা রিকশাচালক রনি সিকদার ফিরোজ প্রতিদিন তার দুই শিশু সন্তান মরিয়ম ও নূরকে ঘরে তালাবন্দি করে রেখে যান। কারণ পরিবারে মা নেই, অবুঝ দুই শিশুকে দেখারও কেউ নেই। ফলে প্রস্রাব ও পায়খানা করে নোংরা করার পরও সেখানেই থাকতে হয় অবুঝ দুই শিশুকে।

তবে মরিয়ম ও নূরকে আর এখন তালাবদ্ধ ঘরে থাকতে হচ্ছে না। ইতোমধ্যে রনি সিকদার ফিরোজকে আর্থিক সহায়তা করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও)। সেই সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর বরাদ্দ দেওয়ার বিষয়ে আশ্বস্ত করেছেন। এ ছাড়া তাকে চার্জার রিকশা উপহার দিয়েছেন সহৃদয়বান এক ব্যক্তি। পাশাপাশি অসহায় দুই শিশুকে মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর পরিচালিত দিবাযত্ন কেন্দ্র দেখভাল করছে।

- Advertisement -

সহায়তার সেই তালিকায় এবার যুক্ত হলেন হালের জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা পরীমনি। অসহায় শিশু মরিয়ম ও নূরকে সহায়তার জন্য বৃহস্পতিবার (২০ জুলাই) দুপুরে স্থানীয় কনটেন্ট নির্মাতা সাব্বির খানের সঙ্গে যোগাযোগ করে এ ব্যাপারে নিজের আগ্রহের কথা জানান অভিনেত্রী।

সাব্বির খান ও চিত্রনায়িকা পরীমনির ব্যক্তিগত সহকারী দীপু সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, কীভাবে সাহায্য করবেন তা রিকশাচালক রনি সিকদার ফিরোজের সঙ্গে আলাপ করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

কনটেন্ট নির্মাতা সাব্বির খান বলেছেন, রনি সিকদার ফিরোজের বাসা আর আমার বাসা খুব বেশি দূরত্বে নয়। তাকে নিয়ে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রচারের পর সচরাচর আমার মোবাইলে অনেকেই যোগাযোগ করেছেন। গতকাল এক ব্যক্তি আমার সঙ্গে যোগাযোগ করে এসে একটি রিকশা উপহার দিয়ে গেছেন।

তিনি আরও বলেন, বৃহস্পতিবার দুপুরে চিত্রনায়িকা পরীমনি রিকশাচালক ফিরোজকে সহায়তার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। মূলত তার দুই সন্তান মরিয়ম ও নূরকে তার ছেলে রাজ্যর সঙ্গে লালনপালন করার ইচ্ছা পোষণ করেছেন।

সাব্বির খান আরও বলেন, পরীমনি ছোটবেলায় তার মাকে হারিয়েছিলেন, সেই স্মৃতিচারণও করেন। তিনি বলেছেন, শিশু দুটিকে তালাবদ্ধ করে রেখে যাওয়ার প্রতিবেদনটি দেখার পর রাতে তার ঘুম হয়নি। খুবই মর্মস্পর্শী ঘটনা। এ জন্য তিনি চাইছেন, অসহায় এই পরিবারটিকে সাহায্য করতে। সেজন্য প্রথমে রিকশাচালক ফিরোজের সঙ্গে কথা বলতে চান। আলাপ করে ফিরোজের যেটা সুবিধা হবে সেইভাবে সাহায্য করতে আগ্রহী তিনি।

এ বিষয়ে চিত্রনায়িকা পরীমনির সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তার ব্যক্তিগত সহকারী দীপু পরীমনির সহায়তার আগ্রহের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

উল্লেখ্য, ২০২১ সালের ৩০ ডিসেম্বর আত্মহত্যা করে মৃত্যুবরণ করেন রনি সিকদার ফিরোজের স্ত্রী মারজান। এ ঘটনায় আত্মহত্যায় প্ররোচনা মামলায় ৪ মাস ১৮ দিন কারাবন্দি ছিলেন ফিরোজ। পরবর্তীতে প্ররোচনায় সম্পৃক্ত না থাকায় খালাস পান তিনি।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles