14.1 C
Toronto
বুধবার, মে ২৯, ২০২৪

সরকারী ওয়েবসাইট থেকে লাখ লাখ বাংলাদেশির ব্যক্তিগত তথ্য ফাঁস

সরকারী ওয়েবসাইট থেকে লাখ লাখ বাংলাদেশির ব্যক্তিগত তথ্য ফাঁস

বাংলাদেশ সরকারের একটি ওয়েবসাইট থেকে লাখ লাখ নাগরিকের ব্যক্তিগত ও গোপন তথ্য ফাঁস হয়েছে। এসব তথ্যের মধ্যে রয়েছে পূর্ণ নাম, ফোন নম্বর, ইমেইল ঠিকানা এবং জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বর। দক্ষিণ আফ্রিকাভিত্তিক আন্তর্জাতিক সাইবার নিরাপত্তাবিষয়ক প্রতিষ্ঠান বিটক্র্যাক সাইবার সিকিউরিটির গবেষক ভিক্টর মারকোপাওলোস এ দাবি করেছেন। আর তথ্যপ্রযুক্তির খবর দেওয়া যুক্তরাষ্ট্রের অনলাইন সংবাদমাধ্যম টেকক্রাঞ্চ এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানিয়েছে।

- Advertisement -

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মারকোপাওলোস গত ২৭ জুন হুট করেই এসব তথ্য ফাঁসের বিষয়গুলো দেখতে পান। এরপরেই তিনি বাংলাদেশ সরকারের কম্পিউটার ইনসিডেন্ট রেসপন্স টিমের (বিজিডি ই-গভ সার্ট) সঙ্গে যোগাযোগ করেন।

মারকোপাওলোস বলেছেন, এতে লাখ লাখ বাংলাদেশি নাগরিকের তথ্য ফাঁস হয়েছে।

তথ্য ফাঁস হওয়ার সত্যতা যাচাই করেছে টেকক্রাঞ্চ। তাদের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, সংশ্লিষ্ট ওয়েবসাইটের একটি ‘পাবলিক সার্চ টুলে’ প্রশ্ন করার অংশটি ব্যবহার করে এ পরীক্ষা চালানো হয়েছে। এতে করে ফাঁস হওয়া ডেটাবেজের মধ্যে থাকা অন্য তথ্যগুলোও ওই ওয়েবসাইটে পাওয়া গেছে।

এর উদাহরণ হিসেবে বলা হয়েছে, নিবন্ধনের জন্য আবেদন করা ব্যক্তির নাম, কারও কারও বাবা-মায়ের নাম পাওয়া গেছে। টেকক্রাঞ্চ বলছে, আমরা ১০টি ভিন্ন ধরনের ডেটা ব্যবহার করে এ পরীক্ষা চালিয়েছি।

তবে টেকক্রাঞ্চ জানিয়েছে, তারা বাংলাদেশের সরকারি ওই ওয়েবসাইটটির নাম প্রকাশ করবে না কারণ সেটিতে এখনো ফাঁসকৃত তথ্যগুলো রয়েছে।

ভিক্টর মার্কোপোলোস জানান, তথ্য ফাঁস করার বিষয়ে তিনি বাংলাদেশের সরকারি যেসব প্রতিষ্ঠানকে ইমেইল বা অন্যান্য মাধ্যমে অবহিত করেছেন, সেগুলোর কোনোটিই তাকে কোনো জবাব দেয়নি।

টেকক্রাঞ্চের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাংলাদেশে ১৮ বছর বা তার বেশি বয়সী নাগরিকদের জাতীয় পরিচয়পত্র দেওয়া হয়। এই কার্ডের মাধ্যমে গাড়ি চালানোর লাইসেন্স পাওয়া, পাসপোর্ট করা, জমি বেচাকেনা, ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খোলাসহ বিভিন্ন সেবা নেওয়ার ক্ষেত্রে দেখাতে হয়।

টেকক্রাঞ্চ জানিয়েছে, তারা তথ্য ফাঁসের বিষয়ে জানতে বাংলাদেশের বিজিডি ই-গভ সার্ট, সরকারের প্রেস অফিস, ওয়াশিংটন ডিসিতে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস এবং নিউইয়র্ক সিটিতে বাংলাদেশি কনস্যুলেটের সঙ্গে যোগাযোগ করে। তবে এ বিষয়েও তারা সাড়া পায়নি ।

ভিক্টর মার্কোপোলোস এ নিয়ে টেকক্রাঞ্চকে বলেছেন, ফাঁসকৃত তথ্যগুলো পাওয়া খুব সহজ। এগুলো গুগলের ফলাফল হিসেবে সামনে আসে। এসকিউএল ইরর নিয়ে গুগলিং করছিলাম, আর এটি দ্বিতীয় ফলাফলে চলে আসে।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles