-3.4 C
Toronto
মঙ্গলবার, নভেম্বর ৩০, ২০২১

স্কুল মাঠেই শিক্ষকের বাড়ি

- Advertisement -

জামালপুরের মাদারগঞ্জে একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে বাড়ি নির্মাণ করেছেন এক শিক্ষক। এতে দীর্ঘদিন ধরে বিদ্যালয়ের নতুন ভবন, শহিদ মিনার ও ওয়াশ ব্লক নির্মাণসহ শিক্ষার্থীদের খেলাধুলা ব্যাহত হচ্ছে।

- Advertisement -

বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির পক্ষ থেকে স্থানীয় প্রশাসনের কর্মকর্তাদের কাছে বিদ্যালয়ের মাঠ থেকে বাড়ি উচ্ছেদের আবেদন করা হয়। প্রশাসনের কর্মকর্তারা দখলকৃত মাঠের চারপাশে খুঁটি পুঁতে রেখে গেলেও জায়গা উদ্ধারের ব্যবস্থা নিচ্ছেন না।

সূত্র জানায়, ১৯৮৮ সালে উপজেলার মধ্য রায়ের জাঙ্গালিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় নির্মাণের সময় সহকারী শিক্ষক চান মিয়া ৪৮ শতাংশ জমি দান করেন। পরবর্তীতে বিদ্যালয়ের ভবন নির্মাণের জন্য সরকারি অর্থ বরাদ্দ হলে শিক্ষক চান মিয়া অসৎ উদ্দেশ্যে ঠিকাদারকে দিয়ে বিদ্যালয়ের মাঠ পেছনের দিকে রেখে উল্টোদিক মুখ করে একতলা ভবন নির্মাণ করান। পরবর্তীতে তিনি বিদ্যালয়ের পেছনের দিকে মাঠে নিজে বাড়ি নির্মাণ করেন।

- Advertisement -

এ অবস্থায় বিদ্যালয়ের সম্মুখে বারান্দা লাগোয়া অন্যের ফসলি জমি থাকায় স্কুলটি কার্যত মাঠবিহীন হয়ে পড়ে এবং শিক্ষার্থীদের খেলাধুলা পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যায়।

- Advertisement -

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাঈদা আশরাফী জানান, বর্তমানে বিদ্যালয়টির দ্বিতল ভবন, শহিদ মিনার, ওয়াশ ব্লক ও বাউন্ডারি ওয়াল নির্মাণ জরুরি হয়ে পড়েছে। কিন্তু অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক চান মিয়া স্কুলের মাঠ থেকে বাড়ি সরিয়ে না নেওয়ায় কিছুই করা সম্ভব হচ্ছে না।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আরও জানান, বিদ্যালয়টি ঘেঁষে মাদারগঞ্জ-জামালপুর-সরিষাবাড়ী সড়কে সর্বক্ষণ যানবাহন চলাচল করে। এ অবস্থায় বাউন্ডারি ওয়াল ও খেলাধুলার মাঠ না থাকায় অভিভাবকরা এ বিদ্যালয়ে তাদের শিশু সন্তানদের পাঠাতে নিরাপত্তাবোধ করছেন না।

বিদ্যালয়ের নামে জায়গা দান করে সেখানে কেন বাড়ি নির্মাণ করেছেন- এমন প্রশ্নের জবাবে অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক চান মিয়া জানান, তিনি বিদ্যালয়ের নামে জমি দেননি। শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের নামে জমি দান করেছেন। মহাপরিচালকের নামে জমি শিক্ষা অফিসের দায়িত্বে থাকবে; তবে সেখানে বাড়ি নির্মাণের কারণ জানতে চাইলে তিনি কোনো জবাব দেননি।

এ ব্যাপারে মাদারগঞ্জ উপজেলা সহকারী শিক্ষা আফিসার সাইদুর রহমান বলেন, নতুন বিদ্যালয় স্থাপনের সময় অনেকেই শিক্ষা অফিসার, ইউএনও, ডিপিও এমনকি প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের মহাপরিচালকের নামে জমি দেন। মধ্য রায়ের জাঙ্গালিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টির জন্য দ্বিতল ভবন নির্মাণের বরাদ্দ পাওয়া গেছে। আইনগতভাবে বিদ্যালয়ের মাঠ উদ্ধার করে ভবন নির্মাণ করা হবে।

সূত্র : যুগান্তর

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles