3.6 C
Toronto
রবিবার, এপ্রিল ২১, ২০২৪

কানাডিয়ান তরুণদের মধ্যে মাসল ডিসমরফিয়া বাড়ছে

কানাডিয়ান তরুণদের মধ্যে মাসল ডিসমরফিয়া বাড়ছে
<br >কানাডিয়ান তরুণদের মধ্যে মাসল ডিসমরফিয়ার এমডি উপস্থিতি আগের চেয়ে অনেক বেশি দেখা যাচ্ছে বলে কাসনাডিয়ান গবেষকরা দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন

কানাডিয়ান তরুণদের মধ্যে মাসল ডিসমরফিয়ার (এমডি) উপস্থিতি আগের চেয়ে অনেক বেশি দেখা যাচ্ছে বলে কাসনাডিয়ান গবেষকরা দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন। গত ১৭ জানুয়ারি বডি ইমেজে প্রকাশিত গবেষণার ফলাফল বলছে, প্রতি চারজনের মধ্যে একজনের ক্ষেত্রে মাসল ডিসমরফিয়া দেখা দেওয়ার ঝুকি রয়েছে।

মাসল ডিসমরফিয়া হচ্ছে নিজের পেশি নিয়ে সন্তুষ্ট না থাকা এবং তা সবল করার মধ্যে ডুবে থাকা। এর ফলে বিষন্নতা ভর করে। এর কিছু উপসর্গ হলো শরীরচর্চার দিকে হত্যধিক মনোযোগ এবং পেশি গঠন ও তা ঠিক রাখার জন্য নিদির্তষ্ট খাবার গ্রহণের প্রবণতা। গবেষকরা বলছেন, এই বয়সশ্রেণির কারাডিয়ানদের মধ্যে মাসল ডিসমরফিয়ার উচ্চ উপস্থিতির ব্যাপারে স্বাস্থ্যসেবা পেশাজীবীদের সতর্ক থাকা উচিত।

- Advertisement -

গবেষণার প্রধান লেখক এবং ইউনিভার্সিটি অব টরন্টোর ফ্যাক্টর-ইনওয়েন্টাস ফ্যাকাল্টি অব সোশ্যাল ওয়ার্কের সহকারী অধ্যাপক কাইল গ্যানসন সিটিভি নিউজকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেন, ফিটনেসের দিকে মনোযোগ না দেওয়া শেশি গঠনের দিকে ছুটছে তরুণরা। এটা অনেকটা আলগা পেশি।

বড় নমুনা নিয়ে এমডির উপসর্গ এবং এর উপস্থিতির এটাই প্রথম গবেষণা। আগে এ সম্পর্কে যেসব গবেষণা হয়েছে তার সবই ছিল বডিবিল্ডার বা ছোট একটি গ্রুপকে মাথঅয় রেখে। গবেষণায় দেখা গেছে, নারীদের তুলনায় পুরুষ ও বালকদের মধ্যে এমডির উপসর্গ বেশি। এছাড়া দক্ষিণ এশীয়দের মধ্যে শে^তাঙ্গদের তুলনায় বেশি এমডির উপসর্গ বিদ্যমান।
গবেষণায় বলা হয়েছে, শরীর সম্পর্কিত এমডি ও অন্যান্য মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যা নিয়ে গবেষণার আগে স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠান এবং চিকিৎসকদের তা নিরূপন করা ও চিকিৎসা দেওয়ার সুযোগ নেই। এমডির কারণে ব্যক্তির মধ্যে মানসিক সমস্যাও তৈরি করে, শেষ পর্যন্ত যা আত্মহননের দিকে ধাবিত করে।

গবেষকদের মতে, কানাডায় ইটিং ডিজঅর্ডারের সঙ্গে সঙ্গে শরীর নিয়ে অস্তমুষ্টিও বাড়ছে। এমডিকে বডি ডিসমরফিক ডিজঅর্ডার (বিডিডি) হিসেবে শ্রেণিকরণ করা হয়।

গবেষণাটির জন্য গবেষকরা কানাডিয়ান স্টাডি অব অ্যাডোলেেেসন্ট হেলথ বিহেভিয়র থেকে উপাত্ত সংগ্রহ করেন। সমীক্ষাটিতে তরুণ কানাডিয়ানদের সামজিক ও আচরণগত স্বাস্থ্যের দিকে চোখ রাখা হয়। ১৩টি প্রদেশ ও অঞ্চলের ১৬ থেকে ৩০ বছর বয়সী দুই হাজারের বেশি মানুষ এই সমীক্ষায় অংশ নেন। এক্ষেত্রে তাদের সামনে মাসল ডিসমরফিয়া সিমপ্টোম্যাটোলজি সংক্রান্ত মোট ১৩টি প্রশ্ন রাখা হয় এবং তার ভিত্তিতে স্কোর দেওয়া হয়। তাতে ১৭ দশমিক ২ শতাংশ মানুষের মধ্যে এমডির উপসর্গের ঝুঁকি দেখা যায়। এর মধ্যে ২৫ দশমিক ৭ শতাংশ পুরুষ এবং ১৮ শতাংশ ট্র্যান্সজেন্ডার।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles