নির্বাচনী সংস্কারে ব্যর্থ হলে নেতৃত্ব থেকে সরে দাঁড়াবেন ডেলা ডুকার

- Advertisement -
২০২২ সালের জুনে অনুষ্ঠেয় প্রাদেশিক নির্বাচনে লিবারেল পার্টি জয়লাভ করলে ভবিষ্যত প্রাদেশিক নির্বাচনগুলো যাতে র‌্যাংকড ব্যালটে অনুষ্ঠিত হয় সেটা নিশ্চিত করতে চান ডেল ডুকা

র‌্যাংকড ব্যালট পদ্ধতিতে ভোটাররা একক কোনো প্রার্থীকে ভোট দেওয়ার পরিবর্তে প্রার্থীদের র‌্যাংকিং করে থাকেন। প্রথম ব্যালটে কোনো প্রার্থী নিরুঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পেলে সবশেষে অবস্থানকারী প্রার্থী বাদ পড়ে যান এবং তার সমর্থকদের দ্বিতীয় পছন্দের ভোট গণনা করা হয়। কোনো প্রার্থী ৫০ শতাংশেল বেশি ভোট না পাওয়া পর্যন্ত এ পদ্ধতিতে গণনা চলতে থাকে। অন্যদিকে বিদ্যমান ফার্স্ট-পাস্ট-দ্য-পোস্ট ভোটিং ব্যবস্থায় কোনো প্রার্থী সর্বোচ্চ ভোট পাওয়া মানেই তিনি বিজয়ী। ৫০ শতাংশের ওপরে ভোটের কোনো কিষয় নেই এখানে।

প্রাদেশিক নির্বাচনে র‌্যাংকড ব্যালট ব্যবস্থা চালুর প্রতিশ্রুত দিলেন অন্টারিও লিবারেল নেতা স্টিভেন ডেল ডুকা। রোববার অনুষ্ঠেয় দলের বার্ষিক সাধারণ সভাতেই বিষয়টি তুলতে যাচ্ছেন তিনি।

- Advertisement -

২০২২ সালের জুনে অনুষ্ঠেয় প্রাদেশিক নির্বাচনে লিবারেল পার্টি জয়লাভ করলে ভবিষ্যত প্রাদেশিক নির্বাচনগুলো যাতে র‌্যাংকড ব্যালটে অনুষ্ঠিত হয় সেটা নিশ্চিত করতে চান তিনি। মিউনিসিপ্যালিটি নির্বাচনেও এটি চালু করার পক্ষে ডেল ডুকা। প্রথম দফা দায়িত্ব পালনকালে নির্বাচনী সংস্কারে ব্যর্থ হলে লিবারেল পার্টির নেতৃত্ব থেকে সরে দাঁড়াবেন বলেও ঘোষণা দিয়েছেন তিনি।

রোববারের সভায় ডেল ডুকা যে বক্তব্য দেবেন তার একটি কপি পেয়েছে দ্য কানাডিয়ান প্রেস। তাতে ডেল ডুকা বলেছেন, আপনারা হয়তো ভাবছেন অন্য নেতারা নির্বাচনী সংস্কার সংক্রান্ত অনেক প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। কিন্তু বাস্তবায়ন করেননি।
প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো ২০১৫ সালে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন যে, ওই বছরই হবে ফার্স্ট-পাস্ট-দ্য-পোস্ট পদ্ধতিতে (সবচেয়ে জনপ্রিয় প্রার্থীই বিজয়ী) অনুষ্ঠিত শেষ নির্বাচন। কিন্তু তিনিও শেষ পর্যন্ত তার প্রতিশ্রুতি রাখেননি।

- Advertisement -

ডেল ডুকা তার লিখিত বক্তৃতায় উল্লেখ করেছেন, মহামারি থেকে বেরিয়ে আসার পর জনগণ পরিবর্তনের দিকে তাকিয়ে আছেন। র‌্যাংকড ব্যালট পদ্ধতিতে দল ও প্রার্থীদেরকে ভোটারদের দ্বিতীয় পছন্দের জন্যও প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে হবে। ফলে দল ও প্রার্থীদের একে অপরকে দানব হিসেবে চিত্রিত করার সুযোগ থাকবে না। সাবেক কেবিনেট মন্ত্রী হিসেবে তিনি নিজেও এজন্য দায়ী।

- Advertisement -

গত বছর অনুষ্ঠিত মিউনিসিপ্যালিটি নির্বাচনে র‌্যাংকড ব্যালট ভোটিং ব্যবস্থা বাতিল করে প্রোগ্রেসিভ কনজার্ভেটিভ সরকার। একই পদ্ধতির মাধ্যমে দলীয় নেতা নির্বাতি হওয়ার পরও প্রিমিয়ার ডগ ফোর্ড বিদ্যমান ব্যবস্থা সমুন্নত রাখার পক্ষে সরব হন। ভোটারদের বিভ্রান্তি থেকে মুক্ত রাখতেই এ সিদ্ধান্ত বলে সে সময় যুক্তি দেখান তিনি।

র‌্যাংকড ব্যালট পদ্ধতিতে নির্বাচনে যাওয়া অন্টারিওর প্রথম মিউিনিসিপ্যালিটি হচ্ছে সিটি অব লন্ডন। ২০১৮ সালে এই পদ্ধতিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় সেখানে।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles