-4.7 C
Toronto
শনিবার, ফেব্রুয়ারী ৪, ২০২৩

ব্লু মানডের আগে মানসিক স্বাস্থ্য ঠিক রাখবেন যেভাবে

ব্লু মানডের আগে মানসিক স্বাস্থ্য ঠিক রাখবেন যেভাবে
সেন্টার ফর অ্যাডিকশন অ্যান্ড মেন্টাল হেলথের সিএএমএইচ তথ্যমতে বছরের যেকোনো সময় প্রতি পাঁচজন কানাডিয়ানের মধ্যে একজন মানসিক স্বাস্থ্য

তৃতীয় সোমবার অর্থাৎ ১৬ জানুয়ারি ব্লু মানডে হিসেবে পালিত হবে। এটা ধরা হয় বছরের সবচেয়ে দুঃখের দিন এবং অনেকের জন্যই কঠিন সময়।
ছুটি উদযাপন শেষ এবং লোকজন তাদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরছে। সেই সঙ্গে আমাদের তীব্র ঠান্ডা ও কনকনে শীত মৌসুম মোকাবিলা করতে হচ্ছে। ছুটি পরবর্তী ব্যস্ততা শুরু হতে যাওয়ার পাশাপাশি আমরা নতুন বছরের অঙ্গীকারগুলোর বাস্তবতাও আমরা মনে করছি, যা আমাদের মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য চ্যালেঞ্জিং।
সেন্টার ফর অ্যাডিকশন অ্যান্ড মেন্টাল হেলথের (সিএএমএইচ) তথ্যমতে, বছরের যেকোনো সময় প্রতি পাঁচজন কানাডিয়ানের মধ্যে একজন মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যায় ভুগে থাকেন। এছাড়া ২ থেকে ৩ শতাংশ কানাডিয়ান সিজনাল অ্যাফেক্টিভ ডিজঅর্ডারে (স্যাড) ভোগেন।

ঋতু পরিবর্তনের সঙ্গে স্যাড সম্পর্কিত এবং প্রায় সময়ই অটামের শেষ দিকে এটি দেখঅ যায়। এর ফলে মনের ওপর দুঃখ ভর করে, শক্তি হারিয়ে যায়, সাধারণ কর্মকা-ে উদ্যোম নষ্ট হয়ে যায়। সেই সঙ্গে অতিরিক্ত ঘুম হয় এবং এর ফলে ওজন বেড়ে যায়।

- Advertisement -

ব্লু মানডে মূলত একটি মার্কেটিং কৌশল, ব্রিটিশ ভ্রমণ কোম্পানি স্কাই ট্রাভেল ২০০৫ সালে যা চাল করে। এরপর থেকেই নানা কারণে দিনটিকে বছরের সবচেয়ে বিষন্ন দিন হিসেবে বিবেচনা করা হয়। কারণগুলোর মধ্যে রয়েছে দীর্ঘ ও অধিক ঠান্ডা রাত, ছুটি শেষে ক্রেডিট কার্ডের বিল পরিশোধের ব্যস্ততা, সামাজিক পরিকল্পনা কমে যাওয়া এবং স্যাডের শুরুর দিনগুলো, যা এই সোমবারকে কঠিন করে তোলে।

নতুন বছরের যে অঙ্গীকার তা থেকে উৎসারিত অনুপ্রেরণা এক্ষেত্রে কার্যকর হতে পারে। এই সময়ে নতুন বছরের লক্ষ্য অর্জনে খুব বেশি চাপ নেওয়ার পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। অন্যের সঙ্গে নিজেকে তুলনা করতে না যাওয়ারও পরামর্শ দেন তিনি। একইসঙ্গে তিনি লোকজনকে সহায়তা ব্যবস্থার সাহায্য নেওয়ার এবং এর সঙ্গে সংযুক্ত থাকার পরামর্শ দেন। উদাহরণ হিসেবে তিনি বুক ক্লাবে যোগ দেওয়ার কথা বলেন। এর ফলে অনুভুতিগুলো কীভাবে বিনিময় ও ব্যবস্থাপনা করা যায় সে সম্পর্কে আরও ভালো ধারণা পাওয়া যায় বলে মনে করেন তিনি। এর ফলে আপনার ইমোশনাল ও মানসিক স্বাস্থ্য শক্তিশালী হবে।

এই পরিস্থিতির সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার আরেকটি কৌশলের কথা বলেছেন কেউ কেউ। অর্থবহ প্রাত্যহিক কর্মকা- যেমন ভালো ঘুম, ভালো খাবার গ্রহণ, শারীরিকভাবে সক্রিয় থাকা, ব্যয়ের অভ্যাস যাতে সাধ্যের মধ্যে থাকে সেজন্য সঠিক বাজেট ব্যবস্থাপনা করার পরামর্শ দেন তিনি। তিনি বলেন, এগুলো সবই বাস্তব এবং অর্জনযোগ্য, যা আপনাকে অধিক ভারসাম্যপূর্ণতার অনুভূতি দেবে।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles