0.3 C
Toronto
শনিবার, জানুয়ারী ২৮, ২০২৩

আলবার্টার প্রস্তাবিত সভরেনটি আইন যেভাবে কাজ করবে

আলবার্টার প্রস্তাবিত সভরেনটি আইন যেভাবে কাজ করবে
প্রিমিয়ার ড্যানিয়েলে স্মিথ

আলবার্টা সরকার একটি বিল উত্থাপন করেছে, যা প্রিমিয়ার ড্যানিয়েলে স্মিথ ও তার মন্ত্রিসভাকে প্রাদেশিক আইন পুনর্লিখনের অনুমতি দেবে। একই সঙ্গে প্রস্তাবিত আইনটি মন্ত্রিসভাকে প্রাদেশিক বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে আলবার্টার স্বার্থের জন্য ক্ষতিকর বিবেচিত কোনো ফেডারেল আইন বাস্তবায়নে প্রদেশের কাছ থেকে প্রাপ্ত তহবিল ব্যবহার না করার নির্দেশনা প্রদানের ক্ষমতাও দেবে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে ক্রাউন-টন্ট্রোলড সংস্থা, মিউনিসিপালিটি, স্কুল বোর্ড, প্স্টে সেকেন্ডারি স্কুল, মিউনিসিপাল পুলিশ ফোর্স, আঞ্চলিক স্বাস্থ্য কর্র্তৃপক্ষ এবং প্রাদেশিক অর্থ গ্রহণকারী যেকোনো সামাজিক সংস্থা।

আলবার্টা সভরেনটি উইদিন আ ইউনাইটেড কানাডা আইন উত্থাপনের পর সাংবাদিকদের স্মিথ বলেন, অতীতে ফেডারেল সরকারের সঙ্গে কাজ করার উদ্যোগ ফলপ্রসূ হয়নি। জ¦ালানি থেকে শুরু করে স্বাস্থ্য পর্যন্ত সংবিধানের মাধ্যমে সুরক্ষিত প্রাদেশিক কর্তৃত্বে ফেডারেল সরকার হস্তক্ষেপ অব্যাহ রেখেছে। এ কারণেই আমরা নতুন কিছুর চেষ্টা করছি। আমরা মনে হয় আমরা তাদের মনোযোগ আকর্ষণ করতে পেরেছি। আমরা মনে হয় সেটা গঠনমূলক সম্পর্কের সূচনা করেছে এবং সেটাই লক্ষ্য। ধাক্কা দেওয়া ছাড়া আপনি এই সম্পর্ক বদলাতে পারবেন না। এটাই সে ধাক্কা।

- Advertisement -

বিলটি ব্যবহারের প্রয়োজন পড়বে না বলে স্মিথ আশা প্রকাশ করলেও সাংবাদিকদের সরবরাহ করা নথি অনুযায়ী, একাধিক ইস্যুতে অটোয়ার সঙ্গে লড়াইয়ের অংশ হিসেবে বসন্তের আগেভাগেই এটি ব্যবহার করতে চায় সরকার। এসব ইস্যুর মধ্যে আছে জ¦ালানি, কৃষি, স্বাস্থ্যসেবা, শিক্ষা, আগ্নেয়াস্ত্র, চাইল্ড কেয়ার, সম্পত্তির অধিকার এবং সামাজিক কর্মসূচি।

বিরোধিদল এনডিপির নেতা সারাহ হফম্যান এ প্রসঙ্গে বলেন, প্রিমিয়ারের অগণতান্ত্রিক ক্ষমতা কুক্ষিত করার চেষ্টা হচ্ছে এই বিল, যিনি এ ধরনের পরিবর্তনের জন্য জনগণের মতামত চাননি। স্মিথ যেটা যাইছেন তা হলো যে আইনই তিনি চান না কেন তা তৈরি করতে স্বৈরতান্ত্রিক ক্ষমতা। কানাডার কোনো সরকারেরই এ ধরনের ক্ষমতা নেই এবং যা করার অধিকার স্মিথ ড্যানিয়েলি ও ইউসিপির নেই। দলীয় নেতা নির্বাচিত হতে মাত্র ১ শতাংশীয় আলবার্টান তাকে ভোট দিয়েছেন। যে কারণেই তিনি আজ আমাদের প্রদেশের প্রিমিয়ার।

এটা ফেডারেল সরকারের বিষয় নয়। এটা একটা অজুহাত। এটা আলবার্টানদের বিরুদ্ধে আইনের শাসন লঙ্ঘন। এটা জরুরি অবস্থাকালীন ক্ষমতা, যা তারা জরুরি অবস্থার অবর্তমানে চাইছেন। এর মাধ্যমে আইনসভাকে পাশ কাটিয়ে মন্ত্রিসভাকে একতরফাভাবে আইন পরিবর্তনের অনুমতি দিচ্ছেন আপনি।

This article was written by Sohely Ahmed Sweety as part of the LJI.

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles