-1.5 C
Toronto
রবিবার, ফেব্রুয়ারী ৫, ২০২৩

চিকিৎসকের সাবেক স্ত্রীর ‘আপত্তিকর’ ভিডিও বর্তমান স্ত্রীর কাছে!

চিকিৎসকের সাবেক স্ত্রীর ‘আপত্তিকর’ ভিডিও বর্তমান স্ত্রীর কাছে!
গ্রেপ্তার আবু সাঈদ রনি

সাবেক স্ত্রীর সঙ্গে করা আপত্তিকর কিছু ভিডিও বর্তমান স্ত্রীর কাছে পাঠিয়ে ব্ল্যাকমেইল করা হচ্ছিল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) এক চিকিৎসককে। সাবেক স্ত্রীর মাধ্যমেই গত কয়েকদিন ধরে একটি চক্র এ অপরাধ সংগঠিত করে আসছিল। তাদের দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

গ্রেপ্তাররা হলেন তমালিকা আক্তার (২৪) ও আবু সাঈদ রনি (২৮)। তারা ইমো প্ল্যাটফর্মে একেকজনের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন করে আপত্তিকর ভিডিও ধারণ করে ব্ল্যাকমেইলি করতেন। সংশ্লিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে সিআইডি ওই দুজনকে গ্রেপ্তার করেন।

- Advertisement -

গতকাল সোমবার ঢাকার কাফরুল ও চট্টগ্রামের খুলশি এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে পর্নোগ্রাফির কাজে ব্যবহৃত দুটি মোবাইল জব্দ করা হয়। এসব ইলেক্ট্রনিক ডিভাইসে আপত্তিকর ছবি ও ভিডিও পেয়েছে সিআইডি।

সিআইডি জানায়, বিএসএমএমইউর এক চিকিৎসক সাইবার পুলিশ সেন্টারের ফেসবুক পেজে তার ভোগান্তির বিষয়ে অভিযোগ করেন। তিনি জানান, অজ্ঞাতনামা কেউ তার সাবেক স্ত্রীর সঙ্গে তার একান্ত মুহূর্তের ভিডিও টেলিগ্রাম এবং বর্তমান স্ত্রীর ইমো ও মেসেঞ্জারে পাঠিয়ে ভাইরাল করে দেওয়ার ভয় দেখাচ্ছে। তাদের কাছ থেকে মোটা অঙ্কের অর্থও দাবি করা হচ্ছে।

গ্রেপ্তারদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের ভিত্তিতে সিআইডির অতিরিক্ত বিশেষ পুলিশ সুপার আজাদ রহমান জানান, গ্রেপ্তার তমালিকা আক্তার ও অভিযোগকারীর সাবেক স্ত্রী মারিয়া ইসলাম নিকিতা পরস্পর বন্ধু। তারা দুজনই বিভিন্ন ব্যক্তির সঙ্গে টাকার বিনিময়ে ইমু ও মেসেঞ্জারে ভিডিও কলের মাধ্যমে কথা বলেন। এ সময় তাদের মধ্যে একান্ত কর্মকাণ্ড হয়। তারা কৌশলে এসব মুহূর্ত ধারণ করে রাখতেন। পরে এসব ভাইরাল করে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে অর্থ হাতিয়ে নিতেন তারা।

তিনি আরও জানান, বিয়ের আগে সম্পর্ক থাকায় অভিযোগকারীর সঙ্গেও মারিয়া ইসলাম নিকিতা নিজেদের একান্ত মুহূর্তের ভিডিও ধারণ করেন। পরে সেগুলো দেখিয়ে বাধ্য করে তাকে বিয়ে করেন। পরবর্তীতে তাদের মধ্যে বিচ্ছেদ হলে ভিডিওগুলো বান্ধবী তমালিকার কাছে সরবরাহ করেন নিকিতা। এরপর তমালিকা ভিডিওগুলো চট্টগ্রামে অবস্থানকারী তার প্রেমিক আবু সাঈদ রনিকে পাঠাতেন। রনি এসব ব্যবহার করে ওই চিকিৎসক ও তার বর্তমান স্ত্রীকে ব্ল্যাকমেইল শুরু করেন।

গ্রেপ্তাররা বিএসএমএমইউ’র ওই চিকিৎসক ছাড়াও অনেকের সঙ্গে একই কর্মকাণ্ড করেছেন। তাদের বিরুদ্ধে ডিএমপির কলাবাগান থানার ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে বলেও জানান সিআইডির অতিরিক্ত বিশেষ পুলিশ সুপার আজাদ রহমান।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles