18.2 C
Toronto
মঙ্গলবার, মে ২১, ২০২৪

বিশ্বনবি (সা.) সকালের নাস্তায় যা খেতেন

বিশ্বনবি (সা.) সকালের নাস্তায় যা খেতেন

ইসলামী জীবনব্যবস্থার মূলভিত্তিই কোরআন এবং সুন্নাহ। কোরআন মানুষের জন্য গাইডলাইন। এর ব্যাখ্যা হচ্ছে বিশ্বনবি (সা.)-এর সুন্নাহ। রাসুল (সা.)-এর দিকনির্দেশনা মানুষের জন্য একমাত্র মুক্তির পথ। বিশ্বনবি (সা.) যে আমল করেছেন, সেগুলো নিয়মিত করা মানুষের জন্য অনুকরণীয় শিক্ষা। মূলত, মহানবি (সা.)-এর সব কাজই ছিল মানবজাতির জন্য আদর্শ। রাসুল (সা.)-এর ঘুম, খাওয়া, হাঁটাচলা এই সব বিষয়ের মাঝেই রয়েছে উত্তম আদর্শ।

- Advertisement -

বিশ্বনবি (সা.) যেসব খাবার খেতেন, তা ছিল সর্বোচ্চ স্বাস্থ্যসম্মত ও পুষ্টিগুণে সমৃদ্ধ। তিনি লাউ, বার্লি, খেজুর, ডুমুর, আঙ্গুর, মধু, তরমুজ, দুধ, মাশরুম, অলিভ অয়েল, ডালিম, ভিনেগার ও পানি পছন্দ করতেন। তবে এগুলোর মধ্যে মহানবি (সা.) সকালে সাতটি খেজুর ও দুধ দিয়ে নাস্তা করতেন।

এ বিষয়ে সাহাবারা নবি (সা.)-এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, সাতটি খেজুর ও দুধ দিয়ে নাস্তা করা মস্তিষ্কের জন্য ভালো। এরপরে সাহাবিরাও সাতটি খেজুর ও দুধ দিয়ে নাস্তা করতেন।

রাসুল (সা.) বলেন, যে ব্যক্তি প্রতিদিন সকালবেলা সাতটি আজওয়া (উৎকৃষ্ট) খেজুর খাবে, সেদিন কোনো বিষ ও জাদু তার ক্ষতি করবে না (বোখারি)।

হজরত ইবনে ওমর রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, তিনটি বস্তু ফিরিয়ে দেওয়া যায় না- বালিশ, সুগন্ধি তেল বা সুগন্ধি দ্রব্য এবং দুধ (তিরমিজি)।’

এ দিকে বিজ্ঞানীদের গবেষণায়ও দেখা গেছে, প্রতিদিন সকালে সাতটি খেজুর ও দুধ দিয়ে নাস্তা করলে মানুষের শরীরের হাইড্রোক্লোরিক অ্যাসিড ও এনজাইমগুলো দ্রুত কাজ করা শুরু করে। এতে মানুষের শরীর ভালো থাকে। মস্তিষ্কের বুদ্ধিমত্তা বৃদ্ধি পায়। লিভার ভালো থাকে। ত্বক সুন্দর হয়।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles