19.2 C
Toronto
সোমবার, আগস্ট ১৫, ২০২২

অর্পিতার ফ্ল্যাটের শৌচাগারেও মিলল কোটি কোটি টাকা

- Advertisement -
ছবি : সংগৃহীত

দুর্নীতি মামলায় গ্রেপ্তার ভারতের পশ্চিমবঙ্গের শিল্প ও বাণিজ্যমন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠ সহযোগী অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের বেলঘরিয়ার ফ্ল্যাটের শৌচাগার থেকেও কোটি কোটি টাকা খুঁজে পেয়েছে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)। ব্যাগে, প্লাস্টিকের প্যাকেটে ভরে রাখা ছিল ওই টাকা। জিনিউজ, আনন্দবাজার পত্রিকাসহ ভারতের একাধিক গণমাধ্যমের খবরে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বেলঘরিয়ায় উদ্ধার হওয়া টাকার পরিমাণ অর্পিতার টালিগঞ্জের ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হওয়া ২২ কোটিকেও ছাপিয়ে গেছে। অর্পিতার বেলঘরিয়ার ফ্ল্যাটের শুধু ওয়ারড্রোব থেকে নয়, শৌচাগার থেকেও টাকা উদ্ধার হয়েছে। ওই ফ্ল্যাট থেকে ৪ দশমিক ৩১ কোটি টাকার স্বর্ণও উদ্ধার হয়েছে বলে জানিয়েছে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকা আবাসন কমিটির সম্পাদক অঙ্কিত চুরারিয়া জানিয়েছেন, বেলঘরিয়ায় উদ্ধার হওয়া টাকার পরিমাণ ২৭ কোটি ৯০ লাখ। এ ছাড়া উদ্ধার হয়েছে বেশ কিছু সম্পত্তির দলিল, সম্পত্তি সংক্রান্ত নথিপত্র এবং কয়েক হাজার টাকার বাতিল নোট। যদিও ইডির পক্ষ থেকে এই বিষয়ে আনুষ্ঠানিক কোনো বিবৃতি এখনো দেওয়া হয়নি।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, বুধবার দুপুরে বেলঘরিয়ার ওই ফ্ল্যাটের তালা ভেঙে সেখানে ঢোকেন ইডির তদন্তকারী অফিসারেরা। সেখানেও টাকার পাহাড় দেখে তারা সিদ্ধান্ত নেন বিশেষ যন্ত্র আনানোর। অর্পিতাকে জেরা করেই তারা ওই টাকার হদিস পান বলে সূত্রের বক্তব্য। ইডির একটি সূত্রের এমনও বক্তব্য যে, অর্পিতা তাদের বলেছেন, তার বিভিন্ন ফ্ল্যাটকে নগদ টাকা গচ্ছিত রাখার জন্য ‘মিনি ব্যাংক’ হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে।

রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের কর্মীদের ডেকে এনে মোট চারটি বৃহদাকার যন্ত্রে চলছিল টাকা গোনা। কলকাতার একটি শাখা থেকে যন্ত্রগুলো বেলঘরিয়ার ফ্ল্যাটে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল বলে ইডি সূত্রে খবর। সাধারণত ওই যন্ত্র ব্যবহার হয় ‘কারেন্সি চেস্ট’-এ।

ইডির একটি সূত্রের দাবি, প্রথমে পাঁচটি সাধারণ যন্ত্র নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। কিন্তু টাকার পরিমাণ দেখে বড়মাপের যন্ত্র আনার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

বুধবার সন্ধ্যা সোয়া ৬টা নাগাদ শুরু হয় টাকা গোনা। যা শেষ হতে হতে বৃহস্পতিবার ভোর হয়ে যায়। নোটগণনার সাক্ষী হিসেবে একজনকে উপরে নিয়ে গিয়েছিলেন তদন্তকারী অফিসারেরা। তার আগেই ২০টি ট্রাঙ্কসহ একটি বড় ট্রাক নিয়ে আসা হয়েছিল ওই আবাসনে। ওই ট্রাঙ্কে ভরেই উদ্ধার করা টাকা নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

এর আগে, বেলঘরিয়ার ‘ক্লাব টাউন’ আবাসনে বুধবার দুপুর ১২টা নাগাদ পৌঁছায় ইডি। ওই আবাসনে দুটি ফ্ল্যাট রয়েছে মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের ‘ঘনিষ্ঠ’ অর্পিতার। দুটি ফ্ল্যাটের একটিতে টাকার সন্ধান পান তদন্তকারীরা। তল্লাশির পর অন্য ফ্ল্যাটটি ‘সিল’ করে দেওয়া হয়। তারপর শুরু হয় অন্য ফ্ল্যাটে টাকা গোনা।

এর আগে, গত শুক্রবার টালিগঞ্জের একটি আবাসনে অর্পিতার ফ্ল্যাট থেকে নগদ প্রায় ২২ কোটি টাকা, সোনার গয়না এবং বিদেশি মুদ্রা উদ্ধার করে ইডি। তারপর জানা যায়, বেলঘরিয়াতেও ফ্ল্যাট রয়েছে অর্পিতার। বুধবার সেখানেই অভিযান চালায় ইডি।

উল্লেখ্য, গত ২২ জুলাই ভারতের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা ইডির ২৭ ঘণ্টা জেরার পর গ্রেপ্তার হন মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় এবং তার বান্ধবী অর্পিতা মুখোপাধ্যায়। এ ঘটনায় অস্বস্তিতে পশ্চিমবঙ্গে ক্ষমতাসীন তৃণমূল কংগ্রেস।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles