22.7 C
Toronto
বুধবার, আগস্ট ১৭, ২০২২

ন্যাটো সম্মেলনে সামরিক ব্যয় নিয়ে প্রশ্নের মুখে পড়তে পারেন ট্রুডো

- Advertisement -
সামরিক ব্যয় নিয়ে কঠিন প্রশ্নের মুখোমুখি হতে পারেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো

ন্যাটো সম্মেলনে সামরিক ব্যয় নিয়ে কঠিন প্রশ্নের মুখোমুখি হতে পারেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। সম্মেলনের আগে জোটের প্রকাশিত নতুন প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সামরিক ব্যয়ের দিক থেকে কানাডা ভুল পথে রয়েছে।

৩০ সদস্যের সামরিক জোটটি ২০১৪ সালে তাদের সামরিক ব্যয় জিডিপির ২ শতাংশে উন্নীত করতে রাজি হয়। বিষয়টি এবার ন্যাটো সম্মেলনের কেন্দ্রে থাকবে বলে ধারণা
করা হচ্ছে।

মাদ্রিদে ন্যাটো নেতাদের সম্মানে মঙ্গলবার রাজা ষোড়শ ফিলিপের দেওয়া নৈশভোজে অংশ নেন জাস্টিন ট্রুডো। সকালেই আনুষ্ঠানিক আলোচনা শুরু হয়।
ন্যাটো মহাসচিব জেন্স স্টোল্টেনবার্গ প্রকাশিত নতুন প্রতিবেদন অনুযায়ী, কানাডার সামরিক ব্যয় এ বছর জিডিপির ১ দশমিক ৭ শতাংশে নেমে এসেছে। ২০১২ সালে এ ব্যয় ছিল জিডিপির ১ দশমিক ৩২ এবং ২০২০ সালে ১ দশমিক ৪২ শতাংশ।

তবে কমে যাওয়ার সুনির্দিষ্ট কারণ উল্লেখ করা হয়নি প্রতিবেদনে। এপ্রিলে ফেডারেল বাজেটে দেওয়া প্রতিশ্রুত ৮ বিলিয়ন ডলারের ব্যয় এতে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে কিনা তারও উল্লেখ নেই। পরিস্কার করা হয়নি এর উদ্দেশ্যও।

জার্মানিতে অনুষ্ঠিত চলতি বছরের জি৭ সম্মেলন শেষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে প্রতিবেদনের বিষয়ে জিজ্ঞাসা করা হলে ট্রুডো বলেন, সরকার বেশ কিছু তাৎপর্যপূর্ণ বিনিয়োগের ঘোষণা দিয়েছে।

উত্তর আমেরিকার আকাশ ও মেরিটাইম খাতে সম্ভাব্য হুমকি সনাক্তে মোকাবেলায় যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার যৌথ ব্যবস্থা নোরাডের আধুনিকায়নে ৪৯০ কোটি ডলার এর মধ্যে অন্তর্ভুক্ত। এছাড়াও আছে কানাডার পুরনো সিএফ-১৮ এর স্থলে নতুন ফাইটার বিমান ক্রয়।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, বিভিন্ন মিশনে সৈন্য ও অস্ত্র মোতায়েনের মধ্য দিয়ে ন্যাটো জোটের প্রতি অঙ্গীকার বারবার প্রমাণ করেছে কানাডা। লরাটভিয়ায় বহুজাতিক ন্যাটো বাহিনীর নেতৃত্বদান এর মধ্যে অন্যতম। কানাডা সব সময়ই ন্যাটো মিশনের অংশ এবং তা অব্যাহত রাখবে। ন্যাটো মিশনে অংশ নেওয়া কতটা গুরুত্বপূর্ণ তা আমরা জানি এবং এটা অব্যাহত রাখা হবে।

স্ট্যান্ডবাই সৈন্য সংখ্যা ৪০ হাজার থেকে বাড়িয়ে ৩ লাখ করার পরিকল্পনার কথা সোমবার ঘোষণা করেন স্টোল্টেনবার্গ। কানাডা আরও সৈন্য প্রস্তুত রাখার জন্য তৈরি কিনা সে ব্যাপারে কিছু বলেননি প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles