17.5 C
Toronto
রবিবার, মে ২৯, ২০২২

‘তোমার সাহস তো কম নয়, হলে যেন আর না দেখি’

- Advertisement -
‘তোমার সাহস তো কম নয়, হলে যেন আর না দেখি’ - The Bengali Times
হলে নিজের কক্ষের সামনে ভুক্তভোগী আকিব জাভেদ (বাঁয়ে) ও ছাত্রলীগ নেতা মোস্তাফিজুর রহমান ওরফে রাতুল

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) শের-ই-বাংলা হলের এক আবাসিক ছাত্রকে বের করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে হলটির নতুন দায়িত্বপ্রাপ্ত সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান ওরফে রাতুলের বিরুদ্ধে।

আজ মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে হলের ১২৯ নম্বর কক্ষ থেকে আকিব জাভেদ নামের ওই ছাত্রকে বের করে দেওয়া হয়। ভুক্তভোগী ছাত্র এখন নিজ কক্ষের সামনে অবস্থান করছেন।

- Advertisement -

এর আগে গতকাল সোমবার রাত ১২টার দিকে তাকে কক্ষ থেকে চলে যাওয়ার হুমকি দেন ছাত্রলীগ নেতা। পরে সকালে বৈধ আবাসিক ছাত্রকে বের করে দিয়ে অনাবাসিক কমল কুমার পাল নামের এক শিক্ষার্থীকে কক্ষে তুলে দেন।

ভুক্তভোগী ও সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, গতকাল রাত ১২টার দিকে হলের ছাত্রলীগ সভাপতি মোস্তাফিজুর ওই ছাত্রের কক্ষে যান। তাকে বলেন, ‘তোমাকে কে তুলেছে এই বেডে। তোমার সাহস তো কম নয়, তুমি এই বেডে উঠেছ! এই হলে তোমাকে যেন আর না দেখি। কাল সকাল ৯টার মধ্যে এখান থেকে বের হয়ে যাবি।’ এরপর সভাপতি ওই কক্ষ ত্যাগ করেন। পরের দিন সকাল ৯টায় সাত থেকে আটজন গিয়ে ওই ছাত্রের বইপত্রসহ সব জিনিস বাইরে ফেলে দেন।

এ বিষয়ে ভুক্তভোগী ছাত্র আকিব জাভেদ বলেন, ‘হঠাৎ করে গতকাল রাতে এসে তারা বলে যে, এই রুম সকালের মধ্যে ছাড়তে হবে। পরে রাতে সেহরি খেয়ে ঘুমিয়েছিলাম। সকালে তারা কয়েকজন কক্ষে এসে আমাকে ধাক্কা দিয়ে বের করে দেয়। তারপর আমার সব জিনিসপত্র রুমের বাইরে বের করে দেয়। আমি প্রাধ্যক্ষ স্যারকে কল দিয়েছি। কিন্তু তিনি ফোন রিসিভ করেননি। আমার যাওয়ার কোনো জায়গা নেই। তাই রুমের সামনেই অপেক্ষা করছি।’

অভিযোগ অস্বীকার করে ছাত্রলীগ নেতা রাতুল বলেন, ‘ওই ছেলেটির হলের আবাসিকতা থাকতে পারে। তবে তার ওই রুমের কোনো কার্ড বা আবাসিকতা নাই। আমার এক ব্যাচমেট বন্ধু রুমটায় থাকত, তার চলে যাওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে আমি আমার এক ছোট ভাইকে তুলতে চেয়েছিলাম। আমার ব্যাচমেট বন্ধু হঠাৎ চলে যাওয়ায় গত পরশুদিন আকিব নামে ছেলেটি রুমে ওঠে যায়।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে হল প্রাধ্যক্ষ মো. হবিবুর রহমান বলেন, ‘ঘটনাটি জেনেছি। ভুক্তভোগী হলের একজন আবাসিক শিক্ষার্থী। তাই তার হলে থাকার সব ব্যবস্থা আমরা করছি।’

সূত্র : আমাদের সময়

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles