8.2 C
Toronto
বুধবার, মে ১৮, ২০২২

প্রযুক্তি জায়ান্ট ও সংবাদ মাধ্যমের মধ্যে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ডের দাবি

- Advertisement -
প্রযুক্তি জায়ান্ট ও সংবাদ মাধ্যমের মধ্যে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ডের দাবি - The Bengali Times
সংবাদ মাধ্যম এবং মেটা ও গুগলের মতো বৃহৎ প্রযুক্তি কোম্পানির মধ্যে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরিতে কানাডা সরকারের কাছ থেকে জরুরিভিত্তিতে উদ্যোগ গ্রহণ প্রয়োজন বলে জানিয়েছে পাবলিক পলিসি ফোরাম।

সংবাদ মাধ্যম এবং মেটা ও গুগলের মতো বৃহৎ প্রযুক্তি কোম্পানির মধ্যে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরিতে কানাডা সরকারের কাছ থেকে জরুরিভিত্তিতে উদ্যোগ গ্রহণ প্রয়োজন বলে জানিয়েছে পাবলিক পলিসি ফোরাম। গণমাধ্যম শিল্পের রাজস্ব কমতে থাকায় এই দাবি জানিয়েছে তারা।

‘দ্য শ্যাটার্ড মিরর: ৫ ইয়ার্স অন’ এক সংবাদ প্রতিবেদনে সংস্থাটি জনস্বার্থ ও তথ্যভিত্তিক সাংবাদিকতার প্রতি সহায়তার ওপর গুরুত্বারোপ করেছে। এটা গণতন্ত্রের অপরিহার্য অংশ বলে দাবি করেছে তারা।

- Advertisement -

কমিউনিটি নিউজপেপারের বিজ্ঞাপন আয় হ্রাস-সংক্রান্ত নিউজ মিডিয়া কানাডার উপাত্তও তুলে ধরেছে সংস্থাটি। তাতে দেখা গেছে, ২০১১ থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত এক দশকে প্রায় ৩০০ স্থানীয় পত্রিকা হয় বন্ধ হয়ে গেছে অথবা অন্যান্য প্রকাশনার সঙ্গে একীভূত হয়েছে।

পিপিএফ মিডিয়ার সম্পাদক ও পাবলিক পলিসি ফোরামের পলিসি প্রধান কেটি ডেভি এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলেছেন, গুগল ও মেটার কাছে যে আমাদের স্থানীয় ও আঞ্চলিক সংবাদ মাধ্যমগুলো খুবই নাজুক সেটা উপেক্ষা করার আর উপায় নেই।
সংবাদ প্রতিবেদনটিতে এ ব্যাপারে অস্ট্রেলিয়ার গৃহীত মডেল প্রয়োগের সুপারিশ করা হয়েছে। সেখানে প্রযুক্তি জায়ান্টদের সাংবাদিকতার ব্যয় বহনের আওতায় এনে আইন পাস করা হয়েছে। অন্য যেসব সুপারিশ করা হয়েছে তার মধ্যে আছে লোকাল জার্নালিজম ইনিশিয়েটিভ ও সংবাদ মাধ্যমগুলোর সাংবাদিক নিয়োগে ২০১৯ সালে ফেডারেল সরকারের চালু করা ৫ কোটি ডলারের সহায়তা কর্মসূচি শক্তিশালীকরণ।

উল্লেখ্য, পাবলিক পলিসি ফোরামের মূল ‘শ্যাটার্ড মিরর’ প্রতিবেদনের পাঁচ বছর পর এই প্রতিবেদনটি প্রকাশিত হলো। আগের প্রতিবেদনে কানাডার সংবাদ শিল্পের সামনে আসা গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুগুলো নিয়ে বিস্তইরত আলোচনা ছিল। ওই প্রতিবেদনে সুপারিশ ছিল ১২টি।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles