19.7 C
Toronto
বৃহস্পতিবার, জুলাই ১৮, ২০২৪

কাঙ্ক্ষিত চেয়ারে বসে যা জানালেন জায়েদ খান

কাঙ্ক্ষিত চেয়ারে বসে যা জানালেন জায়েদ খান - the Bengali Times

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারন সম্পাদক পদে জায়েদ খান জয় লাভ করার পর আপিল বোর্ডে তার পদ বাতিল করে নিপুণকে জয়ী ঘোষণা করেন। এর পর জায়েদ খান উচ্চ আদালতের শরণাপন্ন হয়। নিপুণও আদালতের শরণাপন্ন হয়ে আপিল করেছেন। অবশেষে জল্পনা কল্পনা অবসান ঘটিয়ে আজ বুধবার (২ মার্চ) আদালতের রায় পেয়েছে টানা তৃতীয়বারের মতো শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হলেন চিত্রনায়ক জায়েদ খান।

- Advertisement -

সাধারণ সম্পাদকের চেয়ারে বসে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেন, আমি শিল্পীদের ভোটে টানা তৃতীয় বার নির্বাচিত হয়েছি। তারপরও নানা নাটকীয় ঘটনা তৈরি করা হয়। যা সিনেমার গল্পকেও হার মানায়। আমি আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল ছিলাম। অবশেষে সত্যের জয় হয়েছে।

এ সময় জায়েদ খানের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন কালজয়ী অভিনেত্রী সুচরিতা, অরুনা বিশ্বাস, চিত্রনায়ক জয় চৌধুরীসহ শিল্পী সমিতির কয়েকজন সদস্য। এছাড়া বিভিন্ন গণমাধ্যমের সংবাদকর্মীরাও উপস্থিত ছিলেন।

বুধবার (২ মার্চ) আদালতের রায় পাওয়ার পর বিকেলেই এফডিসিতে যান জায়েদ খান। প্রায় এক মাস পর সেখানে গেলেন তিনি। কিন্তু শিল্পী সমিতিতে প্রবেশ করতে পারছিলেন না নায়ক। কারণ সমিতির গেটে তালা দেওয়া ছিলো।

সমিতির কার্যালয়ে প্রবেশের আগে জায়েদ বলেন, ‘আমি যদি হারতাম, তাহলে ফুল দিয়ে বরণ করে সুন্দরভাবে চলে যেতাম। শিল্পী সমিতির নির্বাচন মাত্র দুই বছরের ব্যাপার। এটা নিয়ে এত বাড়াবাড়ি করার প্রয়োজন নেই।’

প্রসঙ্গত, গত ২৮ জানুয়ারি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনে সাধারণ সম্পাদক পদে ১৩ ভোটে জয়ী হন জায়েদ খান। পরাজিত প্রার্থী নিপুণ আক্তার পুনরায় ভোট গণনা করার আবেদন জানান। সেখানেও জয় পান জায়েদ। এরপর তার বিরুদ্ধে ভোট কেনার অভিযোগ তুলে আপিল করেন নিপুণ। সুরাহা না-হওয়ায় বিষয়টি আদলত পর্যন্ত গড়ায়। অবশেষে আজ হাইকোর্টের রায়ে দেশব্যাপী আলোচিত শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক পদ নিয়ে জায়েদ-নিপুণের লড়াইয়ের অবসান হলো।যদিও নিপুণ জানিয়েছেন, তিনি আদালতের রায়ে সন্তুষ্ট নন। শিগগিরই এই রায়ের বিপরীতে আপিল করবেন তিনি।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles