26.1 C
Toronto
শনিবার, জুলাই ১৩, ২০২৪

রাশিয়ার ট্যাঙ্ক রুখতে সেতুসহ নিজেকে উড়িয়ে দিলেন ইউক্রেনীয় সৈন্য

রাশিয়ার ট্যাঙ্ক রুখতে সেতুসহ নিজেকে উড়িয়ে দিলেন ইউক্রেনীয় সৈন্য - the Bengali Times
<br >ভিতালি স্কাকুন ভোলোদিমিরোভিচ

রাশিয়ান ট্যাঙ্কের গতি রুখতে একটি সেতুসহ নিজেকে উড়িয়ে দিয়েছে একজন ইউক্রেনীয় সৈন্য । ইউক্রেনের দক্ষিণাঞ্চলীয় খেরসন প্রদেশে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত ওই সৈনিকের নাম ভিতালি স্কাকুন ভোলোদিমিরোভিচ। তিনি ইউক্রেনের মেরিন ব্যাটালিয়ন প্রকৌশলী। রাশিয়ান ট্যাঙ্ক প্রতিরোধ করতে ভোলোদিমিরোভিচের এই আত্মত্যাগ এখন ইউক্রেনীয় সামরিক বাহিনীতে ব্যাপক প্রশংসিত হচ্ছে। সবাই তাকে এই যুদ্ধের একজন নায়ক হিসেবে অভিহিত করেছেন।

- Advertisement -

ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মেরিন ব্যাটালিয়ন প্রকৌশলী ভিতালিকে খেরসন প্রদেশে হেনিচেস্ক সেতুতে মোতায়েন করা হয়েছিল।

রাশিয়া অধিকৃত ক্রাইমিয়া থেকে ইউক্রেনের মূল ভূখণ্ডে প্রবেশের জন্য প্রশস্ত রাস্তা খেরসন প্রদেশ হয়ে যায়। সেই রাস্তার উপর হেনিচেস্ক সেতু। রাশিয়ার সাঁজোয়া গাড়ি ও ট্যাঙ্ক সেই পথ দিয়েই মূল ইউক্রেনে ঢুকে পড়ার পরিকল্পনা করেছিল।

রাশিয়ান ট্যাঙ্কগুলি যখন হেনিচেস্ক সেতুর দিকে এগিয়ে আসছিলভিতালির সহযোদ্ধারা জানিয়েছেন সেই মুহূর্তের কথা। তারা জানিয়েছেন,ভিতালি একাই সেতুর উপর মাইন বসানোর কাজ করছিলেন। হঠাৎ করেই দূরে রাশিয়ার ট্যাঙ্ক বাহিনীকে দেখতে পেয়ে তারা ভিতালিকে জানান। মাইন বসানোর কাজ তখনও কিছুটা বাকি। ভিতালি বুঝতে পারছিলেন, মাইন সেট করার এবং নিরাপত্তার জন্য পর্যাপ্ত সময় তার হাতে নেই। তাই তিনি নিজেকে উড়িয়ে দিয়ে সেতুটি ধ্বংসের সিদ্ধান্ত নেন। এ কারণে ভিতালি তার সহযোদ্ধাদের জানান, এখন মাইন বসিয়ে তিনি ফিরে আসার চেষ্টা করলে ট্যাঙ্ককে আটকানো যাবে না। তাই নিজেকেই উড়িয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন তিনি। এরপরই সহযোদ্ধারা বিকট বিস্ফোরণের আওয়াজ পান। ধোঁয়া সরে গেলে তারা দেখতে পান, মাঝখান থেকে নদীতে ভেঙে পড়ে আছে হেনিচেস্ক সেতু। দূরে থমকে দাঁড়িয়ে রাশিয়ার ট্যাঙ্ক বাহিনী।

নিউ ইয়র্ক পোস্ট, দ্য সানসহ আন্তর্জাতিক সব গণমাধ্যমে মেরিন ব্যাটালিয়ন প্রকৌশলী ভিতালির এই আত্মত্যাগের ভূয়সী প্রশংসা করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন তার সেনাদের ইউক্রেনে সামরিক অভিযান শুরুর নির্দেশ দিয়েছেন। এরপরই ইউক্রেনীয় শহরগুলিতে ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ শুরু করে রাশিয়া। তিন দিক থেকে রাশিয়ান সৈন্যরা ইউক্রেনে ঢুকতে শুরু করে। স্থানীয় সময় শনিবার সকালে রাশিয়ান বাহিনী ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভের কাছে অবস্থান নিয়ে যুদ্ধ শুরু করে।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles