20 C
Toronto
সোমবার, আগস্ট ১৫, ২০২২

দয়া করে আমাকে গডমাদার ডাকবেন না : শামীম ওসমান

- Advertisement -
শামীম ওসমান ও সেলিনা হায়াৎ আইভী

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে মেয়রপ্রার্থী তৈমূর আলম খন্দকারকে ‘গডফাদারের প্রার্থী’ বলে অভিহিত করেছিলেন আরেক মেয়রপ্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী। আজ সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে সে প্রসঙ্গে জানতে চাইলে শামীম ওসমান বলেন, ‘আমাকে ব্রাদার, ফাদার, গড ফাদার- যা কিছু ইচ্ছে বলেন। কিন্তু দয়া করে গডমাদার ডাকবেন না। আই অ্যাম আ ম্যান।’

আল্লাহর কাছে মাফ চাইতে বলে সেলিনা হায়াৎ আইভীর হয়ে নাসিক নির্বাচনের প্রচারণায় মাঠে নামার ঘোষণা দিয়েছেন আওয়ামী লীগ নেতা ও নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান। নারায়ণগঞ্জে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘অন্ততপক্ষে আল্লাহর কাছে মাফ চান, এতদিন সেভাবে নামিনি, আজ নামলাম।’

শামীম ওসমান আরও বলেন, ‘মাত্র সোয়া পাঁচ লাখ ভোটারের একটা নির্বাচন এটি। আর এই নির্বাচন এলেই যেন কীসব হয়ে যায়! গরীবের সুন্দরী বউ যেমন সবার ভাবি হয়, আমার হয়েছে সে দশা। সবাই আমাকে একে অপরের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। তবে আমি স্পষ্ট করে বলতে চাই, আমি সত্য কথা বলতে পছন্দ করি। আমি এ ক’দিন চুপ ছিলাম, কারণ এ নিয়ে কথা বলা আমার কাজ না। তবে এই চুপ থাকায় আমার দল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এখন চুপ করে গেলে অসত্য করা হবে।’

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে নৌকার প্রার্থীকে যেকোনো মূল্যে জয়ী করানোর ব্যাপারে দৃঢ় অঙ্গীকার করেন শামীম ওসমান। তিনি বলেন, নারায়ণগঞ্জ নৌকার ঘাঁটি, আওয়ামী লীগের ঘাঁটি, শেখ হাসিনার ঘাঁটি, বঙ্গবন্ধুর ঘাঁটি। তৈমূর আলম খন্দকার সাহেবকে বলবো, আপনি আপনার মতো প্রচারণা চালান। তবে হাতি দিয়ে নৌকা ডোবানোর কথা যখন বলেছেন, সেক্ষেত্রে বলতে চাই, আমি বিশ্বাস করি, নারায়ণগঞ্জে হাতি দিয়ে নৌকা ডোবানো কোনোদিন সম্ভব হবে না।’

এদিকে, সিটি করপোরেশন নির্বাচন আচরণ বিধিমালা অনুযায়ী, সরকারি সুবিধাভোগী অতি গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি এবং সরকারি কর্মকর্তা–কর্মচারীরা নির্বাচন–পূর্ব সময়ে নির্বাচনী এলাকায় প্রচারণায় বা নির্বাচনী কার্যক্রমে অংশ নিতে পারেন না। বিধিমালায় সাংসদদের সরকারি সুবিধাভোগী অতি গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি হিসেবে উল্লেখ করা আছে, যে কারণে তাঁরা স্থানীয় সরকারের এই নির্বাচনের প্রচার বা নির্বাচনী কাজে অংশ নিতে পারেন না। নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গের শাস্তি ৬ মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ড।

১৬ জানুয়ারি নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচন। এখন চলছে প্রচার। এখানে আওয়ামী লীগের প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী। নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনে আওয়ামী লীগ থেকে নির্বাচিত সাংসদ শামীম ওসমানের সঙ্গে আইভীর দ্বন্দ্ব পুরোনো। ২০১১ সালের সিটি নির্বাচনে শামীম ওসমান আইভীর কাছে লক্ষাধিক ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছিলেন। এবার আইভীর প্রধান প্রতিপক্ষ স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপি নেতা তৈমুর আলম। তাঁকে শামীম ওসমান সমর্থন দিচ্ছেন বলে নারায়ণগঞ্জে আলোচনা রয়েছে। গত শনিবার আওয়ামী লীগের প্রার্থী আইভী অভিযোগ করেন, তৈমুর ‘গডফাদার’ শামীম ওসমানের প্রার্থী। এই অবস্থায় আজ সোমবার সংবাদ সম্মেলনে আসেন শামীম ওসমান।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles