18.4 C
Toronto
শনিবার, আগস্ট ১৩, ২০২২

ডা. এহসানের সাফল্য !

- Advertisement -
ডা. এহসান

ডা. এহসান ভাইয়াকে আমি চিনি ২০১৭ সাল থেকে। তিনি তার ক্যারিয়ারের জন্য যা যা করছেন তা এখানে অনেকেই করেন না বা করতে পারেন না। উনি বাংলাদেশের একজন ভালো চিকিৎসক এবং একজন ভালো মনের মানুষ। উনার কথা আমি আপনাদের অনেককেই অনেক সময় বলেছি। খুবই উৎসাহপ্রবণ মানুষ। উনি এখানে শত স্ট্রাগল এবং ব্যস্ততার মাঝেও ৪ বছরের পুরা নার্সিং ডিপ্লোমা শেষ করেন এবং পাশ করার পরে মাইকেল গ্যারেন হাসপাতালে চাকরিও পান।

যাহোক আজকে সন্ধ্যায় উনার একটি সুমিষ্ট ফোন কোলের মাধ্যমে জানতে পারলাম ভাবীরও কানাডিয়ান লাইসেন্স হয়ে গেছে এবং ভাবি নিউ ব্রান্সউইকের একটি হাসপাতালে কিছুদিন আগে চাকরি পান। তারপর এহসান ভাইও সেখানে আবেদন করেন এবং আল্লাহর রহমতে তারও একই হাসপাতালে চাকরি হয়ে গেছে। উনারা এখন পুরা পরিবারসহ নিউ ব্রান্সউইকে । এই খবর দেওয়ার জন্যই ফোন করেছিলেন।

এহসান ভাই একজন ভালো নেটওয়ার্কার এবং কমিউনিকেটর। শত ব্যস্ততার মধ্যেও তিনি রেগুলার যোগাযোগ রেখেছেন। কথাবার্তা আমাদের মোস্টলি ক্যারিয়ার বিষয়ই হতো।

আমি খুবই খুশি হয়েছি উনার এই খবরে। মনে হয় ২/৪ মন মিষ্টি দিয়েও এতো খুশি করতে পারতেন না।

আমার ২/১টি পরামর্শে বা উপদেশে যদি আপনার চলার পথে ক্ষুদ্র কোনো কাজে আসে তাহলে আপনাকে আমার জন্য কিছু করা লাগবে না বা আমাকে চা-কফি কিছু খাওয়ানো লাগবে না। শুধুমাত্র এই জাতীয় একটি খবর দিলেই হবে, এবং জীবনে কখনো সুযোগ হলে অন্য কারো জন্য কিছু করবেন।

এহসান ভাই আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ এই সুন্দর খবরটি দিয়ে আমার বছরটি শুরু করতে দেওয়ার জন্য !

আপনি আমার এবং অনেক মানুষের অনুপ্রেরণার উৎস।

আমি নিশ্চিত আল্লাহতালা আপনাদেরকে অনেক অনেক দূরে নিয়ে যাবেন, সেই দোয়াই করি।

কাছাকাছি থাকলে একগোছা ফুল নিয়ে যেতাম। কালিদাসের যজ্ঞের মতো তুষারভরা মেঘের সাথে পাঠিয়ে দিচ্ছি শুভেচ্ছা এবং দোয়া।

ভালো থাকবেন, সুস্থ থাকবেন।

আর যারা নিজেদের ক্যারিয়ার নিয়ে ভাবছেন তাদেরকে বলছি, আপনার গণ্ডিকে একটু প্রসারিত করুন, আপনাকে যে এই টরন্টোর মাটি কামড়ে থাকতে হবে তার কোনো মানে নেই। এখানে থেকে কঠিন জীবনযাপনের থেকে একটু দুরে ভালো থাকা গেলে ক্ষতি কি। আমাদের মতো একবার স্টাক হয়ে গেলে বের হওয়া কঠিন হবে। বাইরে অনেক সুযোগ আছে। আমার বিগত ১৩/১৪ বছরের স্টুডেন্টদের অধিকাংশই টরন্টো থেকে পড়াশুনা শেষ করে চলে গেছে অন্য শহরে বা অন্য প্রভিন্সে, এবং তারা সবাই অনেক ভালো আছে। এহসান ভাইয়দের মতো আমার আরো কিছু বন্ধুবান্ধব এবং পরিচিত জন যারা টরন্টো ছেড়ে গেছেন তারা ভালো আছেন।

আমি নিজেও সুবিধা মতো সুযোগ খুঁজছি এই যান্ত্রিক এলাকা ছাড়ার, আর আপাতত না পারলে চাকরির শেষ দিকে বা রিটায়ারমেন্টের সময় অবশ্যই এখান থেকে ভাগবো।

১০/১১ হাজার কিঃমিঃ দূরে বাবা মা আত্মীয়স্বজন রেখে চলে এসেছি, আর ভালো ক্যারিয়ার জন্য বা একটু কোয়ালিটি লাইফের জন্য না হয় আর একটু দূর গেলাম।

সবাই ভালো থাকবেন, সুস্থ্য থাকবেন।

টরন্টো, কানাডা

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles