এভাবে এক পায়ে দাঁড়াতে ফ্লেমিঙ্গোদের আলাদা কোনও পেশীশক্তি খরচ হয় না
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
ফ্লেমিঙ্গো-রা যদি দুপায়ের বদলে এক পায়ে দাঁড়িয়ে থাকে, তাহলে তারা বেশি শক্তি সাশ্রয় করতে পারে - এটা বিজ্ঞানীরা নিশ্চিত করেছেন। ফ্লেমিঙ্গোদের বেশির ভাগ সময় এক পায়েই দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়।

এটাকে এক রকম তাদের সিগনেচার পোজ বলেই ধরা যায়, যদিও কেন তারা এভাবে দাঁড়ায় সেটা বহুদিন ধরেই একটা রহস্য হয়ে ছিল। এখন আমেরিকার একদল বিজ্ঞানী প্রমাণ করেছেন এক পায়ে দাঁড়িয়ে থাকলে ফ্লেমিঙ্গোদের আলাদাভাবে সক্রিয় কোনও পেশী-শক্তি খরচ করতে হয় না - ফলে তাতে তাদের এনার্জিও কম খরচ হয়।

আগে বিজ্ঞানীরা ভাবতেন, যেহেতু এক পাঁয়ে দাঁড়ানোর সময় ফ্লেমিঙ্গোরা একটু বাদে বাদে পা বদলায়, তাই বোধহয় তারা মাসল ফ্যাটিগ বা পেশীর ক্লান্তি কাটানোর জন্যই ওরকম করে।

কোনও কোনও গবেষকের ধারণা ছিল, শরীরের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করার জন্যই বোধহয় ফ্লেমিঙ্গোরা এক পায়ে দাঁড়ায়।

এখন আটলান্টার জর্জিয়া ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজির (জর্জিয়া টেক) অধ্যাপক ইয়ং-হুই চ্যাং এবং আটলান্টার এমোরি ইউনিভার্সিটির লেনা এইচ টিং ফ্লেমিঙ্গোর এই এক পায়ে খাড়া থাকার পেছনে মেকানিক্যাল রহস্যটা উদ্ধার করেছেন।

এই গবেষকরা তাদের পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালিয়েছেন জীবিত ও মৃত, দুধরনের ফ্লেমিঙ্গো নিয়েই।

আশ্চর্যজনকভাবে তারা দেখেছেন, একটা মৃত ফ্লেমিঙ্গোকেও বাইরের কোনও সাহায্য ছাড়াই এক পায়ে খাড়া করে দাঁড় করানো সম্ভব। রয়্যাল সোসাইটি জার্নাল বায়োলজি লেটার্সে প্রকাশিত এক গবেষণাপত্রে তারা এই পদ্ধতির নাম দিয়েছেন 'প্যাসিভ গ্র্যাভিটেশনাল স্টে মেকানিজম'।

 

 

২৫ মে, ২০১৭ ১২:৪৯:০৭