19.3 C
Toronto
সোমবার, জুন ২৭, ২০২২

রকিবুলের নেতৃত্বে যুব বিশ্বকাপে বাংলাদেশ

- Advertisement -

রকিবুলের নেতৃত্বে যুব বিশ্বকাপে বাংলাদেশ - The Bengali Times

ভারতে বাংলাদেশের যুবাদের তিন দলীয় যুব ওয়ানডে টুর্নামেন্ট জয়ের দিনেই আসন্ন অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের দল দিয়েছে বিসিবি। দলকে নেতৃত্ব দেবেন গত আসরের শিরোপা জয়ী দলের সদস্য রকিবুল হাসান।

সেই দলের আরও দুই জন আছেন এবারের ১৫ জনের দলে- প্রান্তিক নওরোজ নাবিল ও তানজিম হাসান সাকিব।

ভারতে খেলা দলটাই মূলত যাচ্ছে ওয়েস্ট ইন্ডিজে হতে যাওয়া বিশ্বকাপে। ১৬ সদস্যের দল থেকে বাদ পড়েছেন কেবল জিশান আলম। তবে তিনি আছেন রিজার্ভ হিসেবে। যেখানে তার সঙ্গী আহসান হাবিব লিওন।

অপেক্ষমান হিসেবে আছেন মহিউদ্দিন তারেক, তৌহিদুল ইসলাম, শাকিব শাহরিয়ার ও গোলাম কিবরিয়া।

বিশ্বকাপের দলটাই খেলবে সংযুক্ত আরব আমিরাতে হতে যাওয়া অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপে।

কলকাতার ইডেন গার্ডেন্সে মঙ্গলবার ভারত অনূর্ধ্ব-১৯ ‘বি’ দলকে ১৮১ রানে হারিয়ে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয় বাংলাদেশের যুবারা। এই টুর্নামেন্টেও দলকে নেতৃত্ব দেন রকিবুল।

দক্ষিণ আফ্রিকায় হওয়া গত অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে আকবর আলীর নেতৃত্বে বাংলাদেশের শিরোপা জয়ে বড় অবদান ছিল রকিবুলের। আসরে দলের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি ছিলেন বাঁহাতি এই স্পিনার। ৬ ম্যাচে ১২ উইকেট নিয়েছিলেন ১০.১৬ গড় ও ওভারপ্রতি মাত্র ৩ রান দিয়ে।

ডানহাতি পেসার তানজিম গত আসরে ৬ ম্যাচে নিয়েছিলেন ৭ উইকেট। ভারতে হওয়া তিন দলীয় টুর্নামেন্টে চার ম্যাচে ১৩.৫০ গড় ও ওভারপ্রতি ৩.৬৮ রান দিয়ে ৮ উইকেট নিয়ে তিনিই সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি।

গতবারের স্কোয়াডে থাকা নাবিল দুটি প্রস্তুতি ম্যাচে খেললেও মূল টুর্নামেন্টে সুযোগ পাননি। ভারতের টুর্নামেন্টে এই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান ছিলেন সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক। যেখানে ৪ ম্যাচে ৫৬.৫০ গড়ে তার রান ২২৬। সেঞ্চুরি ও ফিফটি একটি করে। দুইশ স্পর্শ করতে পারেননি আর কেউ।

গত যুব বিশ্বকাপে বাংলাদেশের সাফল্যের পেছনে বড় কারণ ছিল আগের দুই বছরে প্রচুর আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলে প্রস্তুতি নেওয়ার। কিন্তু এবারের অনূর্ধ্ব-১৯ দল কোভিড পরিস্থিতির কারণে ম্যাচ অনুশীলনের সুযোগ পায়নি খুব বেশি।

কোভিড পরিস্থিতিতে কয়েক দফায় ক্যাম্প শুরু ও বন্ধ হওয়ার পর গত সেপ্টেম্বরে আফগানিস্তানের বিপক্ষে সিরিজ দিয়ে শিরোপা ধরে রাখার প্রস্তুতি শুরু করে বাংলাদেশ। যেখানে তারা পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ জিতেছিল ৩-২ ব্যবধানে। হেরেছিল একমাত্র যুব টেস্ট।
এরপর শ্রীলঙ্কা সফরে পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে সবগুলোতেই হারে যুবারা। আর সবশেষ খেলল ভারতের এই টুর্নামেন্টে।

এশিয়া কাপে অংশ নিতে আগামী ২০ ডিসেম্বর আরব আমিরাতে উড়াল দেবে যুবারা। টুর্নামেন্টে ‘বি’ গ্রুপে বাংলাদেশের সঙ্গে আছে শ্রীলঙ্কা, নেপাল ও কুয়েত। ২৩ ডিসেম্বর শারজাহ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে নিজেদের প্রথম ম্যাচে নেপালের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ।

ভারত, পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও স্বাগতিক আরব আমিরাত খেলবে ‘এ’ গ্রুপে। দুই গ্রুপের শীর্ষ দুটি করে দল যাবে সেমি-ফাইনালে। এরপর ফাইনাল হবে ১ জানুয়ারি।

যুব বিশ্বকাপে ‘এ’ গ্রুপে বাংলাদেশের সঙ্গী ইংল্যান্ড, কানাডা ও সংযুক্ত আরব আমিরাত। ‘বি’ গ্রুপে আছে ভারত, আয়ারল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা ও উগান্ডা। ‘সি’ গ্রুপে পড়েছে পাকিস্তান, আফগানিস্তান, পাপুয়া নিউ গিনি ও জিম্বাবুয়ে। আর ‘ডি’ গ্রুপে স্বাগতিক ওয়েস্ট ইন্ডিজের সঙ্গে আছে অস্ট্রেলিয়া, শ্রীলঙ্কা ও স্কটল্যান্ড।

দেশে ফিরে অপ্রাপ্তবয়স্ক ক্রিকেটারদের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে বলে আসর থেকে নাম প্রত্যাহার করে নেয় নিউ জিল্যান্ড। তাদের জায়গায় সুযোগ পেয়েছে স্কটল্যান্ড।

আগের আসরগুলোর মতো প্রতি গ্রুপের শীর্ষ দুই দল সুপার লিগ নকআউট পর্বে উঠবে। এরপর হবে সেমি-ফাইনাল। সুপার লিগে উঠতে না পারা প্রতি গ্রুপের বাকি দুই দল খেলবে প্লেট চ্যাম্পিয়নশিপে।

আগামী ১৬ জানুয়ারি ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে শিরোপা ধরে রাখার অভিযান শুরু করবে বাংলাদেশ। ২০ জানুয়ারি কানাডা ও ২২ জানুয়ারি আরব আমিরাতের মুখোমুখি হবে তারা।

এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ চারবার যুব বিশ্বকাপ জিতেছে ভারত। অস্ট্রেলিয়া তিনবার, পাকিস্তান দুইবার, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ইংল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা ও বাংলাদেশ জিতেছে একবার করে।

বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল: রকিবুল হাসান (অধিনায়ক), প্রান্তিক নওরোজ নাবিল (সহ-অধিনায়ক), মাহফিজুল ইসলাম, ইফতেখার হোসেন ইফতি, মেহরব হাসান, আইচ মোল্লা, আব্দুল্লাহ আল মামুন, তাহজিবুল ইসলাম, আরিফুল ইসলাম, মোহাম্মদ ফাহিম, মুশফিক হাসান, রিপন মন্ডল, আশিকুর জামান, তানজিম হাসান সাকিব, নাইমুর রহমান নয়ন।

রিজার্ভ: আহসান হাবিব লিওন, জিশান আলম।

স্ট্যান্ড বাই: মহিউদ্দিন তারেক, তৌহিদুল ইসলাম, শাকিব শাহরিয়ার ও গোলাম কিবরিয়া।

সূত্র : বিডিনিউজ

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles