4.9 C
Toronto
মঙ্গলবার, অক্টোবর ২৬, ২০২১

আবাসন বাজারের চাঙ্গাভাবই মূল্যস্ফীতি বৃদ্ধিতে ভূমিকা রেখেছে

স্ট্যাটিস্টিকস কানাডা

কানাডায় মূল্যস্ফীতি বৃদ্ধিতে সবচেয়ে বেশি যা ভূমিকা রেখেছে তা হলো আবাসন বাজারের চাঙ্গাভাব। গত জুনে এক বছর আগের তুলনায় কানাডায় বাড়ির দাম বেড়েছে ১২ দশমিক ৯ শতাংশ। ১৯৮৭ সালের পর এটাই সবচেয়ে বেশি বৃদ্ধি। স্ট্যাটিস্টিকস কানাডা বলছে, চলতি বছরের জুনে গ্যাসোলিনের দাম বেড়েছে আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় ৩২ শতাংশ। মে মাসে যেখানে বেড়েছিল ৪৩ দশমিক ৪ শতাংশ। কারণ, মহামারির ধাক্কা সামলে ২০২০ সালের জুনের দিকে গ্যাসোলিনের দাম কিছুটা ঘুরে দাঁড়িয়েছিল। গ্যাসোলিনের দাম বাদ দিলে জুনে বার্ষিক মূল্যস্ফীতি দাঁড়ায় ২ দশমিক ২ শতাংশ।

সিআইবিসির জ্যেষ্ঠ অর্থনীতিবিদ রয়েস মেন্ডেস বলেন, সাম্প্রতিক সময়ের মূল্যস্ফীতি সাময়িক সময়ের জন্য বলে ব্যাংক অব কানাডার যে পর্যবেক্ষণ, জুনের মূল্যপতন তারই প্রতিফলন। মহামারি সংশ্লিষ্ট ব্যয়ের ধরন সম্পর্কিত তথ্য আরও ভালোভাবে জানতে ভোক্তা মূল্য পরিমাপের পণ্যে গত সপ্তাহে পরিবর্তন এনেছে স্ট্যাটিস্টিকস কানাডা। তবে জুনের মূল্যস্ফীতিতে এ পরিবর্তনের খুব একটা প্রভাব নেই বলে জানিয়েছে সংস্থাটি।

বার্ষিক ভিত্তিতে জুনে কানাডার মূল্যস্ফীতি ছিল ৩ দশমিক ১ শতাংশ। তবে মে মাসের তুলনায় জুনের এ মূল্যস্ফীতি অনেকটাই কম। বার্ষিক ভিত্তিতে গত মে মাসে কানাডার মূল্যস্ফীতি ছিল ৩ দশমিক ৬ শতাংশ। গত এক দশকে এটাই সর্বোচ্চ মূল্য বৃদ্ধি। জুনে বার্ষিক মূল্যস্ফীতি কমায় ভূমিকা রেখেছে নারীদের পোশাক ও খাদ্যসহ অন্যান্য পণ্যের মূল্য হ্রাস। বাড়ির মালিকদের গৃহঋণের সুদ কমে যাওয়াও এতে ভূমিকা রেখেছে। এক বছরে এ হার কমেছে ৮ দশমিক ৬ শতাংশ, গত এক দশকে যা সর্বোচ্চ।

২০২০ সালের জুনের তুলনায় চলতি বছরের জুনে সবজির দাম কমেছে ৭ দশমিক ৫ ও গরুর মাংসের ১১ দশমিক ১ শতাংশ। কোভিড-১৯ মহামারির কারণে প্ল্যান্টগুলো বন্ধ হয়ে যাওয়ায় ও সরবরাহ বিঘ্নিত হওয়ায় গত বছরের জুনের দিকে এসব পণ্যের দাম অস্বাভাবিক বেড়ে গিয়েছিল। বার্ষিক হিসেবে জুনে গরুর মাংসের দাম যে পরিমাণে কমেছে, ১৯৮২ সালের পর তা সর্বোচ্চ।

- Advertisement - Visit the MDN site

Related Articles

- Advertisement - Visit the MDN site

Latest Articles