-13.8 C
Toronto
শনিবার, জানুয়ারী ২২, ২০২২

চেয়ারম্যান পদে জামানত হারিয়ে এবার এমপি নির্বাচন করতে চান ‘ভিক্ষুক’ মুনসুর

- Advertisement -
ভিক্ষুক আবুল মুনসুর।

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করে জামানত বাজেয়াপ্ত হওয়ার পর এমপি পদে নির্বাচনের ঘোষণা দিয়েছেন ময়মনসিংহের ত্রিশালের ভিক্ষুক আবুল মুনসুর। তিনি স্থানীয়দের কাছে মানসিক প্রতিবন্ধী হিসেবে পরিচিত। রোববার (২৮ নভেম্বর) অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে চশমা প্রতীকে ৩৭৭ ভোট পেয়েছেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘এবার চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করে ফেল করেছি। তাতে কী? আগামীতে এমপি নির্বাচন করমু। গরিব অসহায় মানুষ ভালোবেসে আমারে ভোট দিয়েছে। ফেল করলেও আমি সবার হৃদয় জয় করেছি। আমিই বৈলরের গরিব অসহায় মানুষের চেয়ারম্যান’।

- Advertisement -

হাসিমুখে কথাগুলো বলেছেন ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলার বৈলর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থী হওয়া ভিক্ষুক আবুল মুনসুর ফকির। সরকারের দেয়া উপহারের ঘর চেয়ে না পেয়ে ভিক্ষার টাকা জমিয়ে চেয়ারম্যানের প্রতিদ্বন্দ্বী হয়ে নির্বাচনে অংশ নেন মুনসুর ফকির।

আবুল মুনসুর ত্রিশাল বৈলর ইউনিয়নের বড়পুকুরপার এলাকায় একটি ঝুপরি ঘরে থাকেন। প্রতিবেশী সিরাজ মিয়া জানান আবুল মনসুরের মানসিক সমস্যা আছে। সে ভিক্ষা করে। এলাকার কয়েকজন তাকে উৎসাহ দিয়ে ভোটে দাঁড় করিয়েছিল। তবে মানুষের কথায় পরে নির্বাচনে দাড়িয়ে আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে তিনি। স্থানীয়দের চা পান বিড়ি খাইয়ে টাকা খরচ করেছে তিনি।

তবে হেরেও খুশি মুনসুর বলেন, এই নির্বাচনে অংশ নিয়ে আমি মানুষের অনেক ভালোবাসা পেয়েছি। নির্বাচনে হারলেও আমি মানুষের অনেক ভোট পেয়েছি। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত মানুষের সেবা করে যেতে চাই। আমি আবার ভিক্ষা করে টাকা জমাবো। মুনসুর ফকির বলেন, ভিক্ষা করে ৪০ হাজার টাকা জোগাড় করেছিলাম। এরমধ্যে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র কেনার জন্য সরকারি ফি বাবদ ছয় হাজার টাকা খরচ হয়েছে। পোস্টার করতে লেগেছে চার হাজার টাকা। বাকি টাকা গাড়ি ভাড়া, চা পানসহ অন্যান্য কাজে খরচ হয়েছে।

আবুল মুনসুর ফকিরের স্ত্রী সমলা বেগম জানান, সংসারে চার ছেলে ও এক মেয়ে আছে। দুই ছেলে পোশাক কারখানায় কাজ করলেও বাকিরা কর্মহীন। ঘরভিটা ছাড়া আবাদি কোনও জমি নেই। সোমবার সকাল থেকেই তাকে দেখার জন্য ঢাকা-ময়মনসিংহ সড়কের বৈলরের বড়পুকুরপাড় খালের ওপর ঝুপড়ি ঘরের চারপাশে ভিড় করতে দেখা গেছে স্থানীয়দের।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles