4.4 C
Toronto
বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ৮, ২০২২

এসকর্ট সার্ভিসের দুই ব্যক্তির সাজা বহাল

এসকর্ট সার্ভিসের দুই ব্যক্তির সাজা বহাল - the Bengali Times
৭-২ রায়ে সর্বোচ্চ আদালত বলেছে, ফৌজদারি কোডের যে ধারায় তাদেরকে দোষী সাব্যস্ত করা হয় সে সময় ধারাটি কার্যকর ছিল। যদিও তা অসাংবিধানিক

এসকর্ট সার্ভিসের দুই ব্যক্তিকে দেওয়া সাজা বহাল রেখেছে কানাডার সুপ্রিম কোর্ট। সেই সঙ্গে যে সময় অপরাধ সংঘটিত হয় সে সময় আইনের বৈধতা নিয়ে বিরোধের মীমাংস করে দিয়েছে আদালত।
৭-২ রায়ে সর্বোচ্চ আদালত বলেছে, ফৌজদারি কোডের যে ধারায় তাদেরকে দোষী সাব্যস্ত করা হয় সে সময় ধারাটি কার্যকর ছিল। যদিও তা অসাংবিধানিক।

২০১৩ সালের এক আদেশে সুপ্রিম কোর্ট যৌন কর্মীর অর্থে জীবিকা নির্বাহের বিরুদ্ধে আদেশকে অধিকার ও ব্যক্তি স্বাধীনতার পরিপন্থী বলে ঘোষণা করে। উদাহরণ হিসেবে তাহলে যৌনকর্মীদের নিরাপত্তায়

- Advertisement -

বডিগার্ডের কাজও অপরাধের মধ্যে পড়ে। ২০১৪ সালের ২০ ডিসেম্বর সর্বোচ্চ আদালত এ ঘোষণাকে স্থগিত করে সংসদকে এ নিয়ে নতুন আইন প্রণয়ন করতে বলে। স্থগিতের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই তা করা হয়।
ব্রিটিশ কলাম্বিয়ায় এসকর্ট সার্ভিস দেওয়া সংক্রান্ত একাধিক অপরাধে ২০১৮ সালে কাসরা মোহসেনপুর ও তামিম আল বশিরকে দোষী সাব্যস্ত করেন আদালত। যৌনকর্মী থেকে অর্থ নেওয়ার আভিযোগও ছিল তাদের বিরুদ্ধে। সুপ্রিম কোর্ট আইনটি অসাংবিধানিক ঘোষণা করেছে এই যুক্তিতে বিচারিক আদালত

যৌনকর্মী থেকে অর্থের বিষয়টি বাতিল করে দেয়। কিন্তু ব্রিটিশ কলাম্বিয়ার আদালত এ সিদ্ধান্ত বাতিল করে।
আপিল কোর্ট তাদের রায়ে উল্লেখ করে, আইনটি অবৈধতা ঘোষণা স্থগিতের সময় অপরাধ সংঘটিত হওয়ায় ও তার পরবর্তী সময়ে অভিযোগ গঠন করায় ওই দুই ব্যক্তি অপরাধেল দায় এড়াতে পারেন না। সুপ্রিম কোর্ট অবৈধতা ঘোষণার ওপর স্থগিতাদেশ আরোপের মধ্য দিয়ে আইনটিকে নতুন প্রাণ দিয়েছে।

এরপর দুই ব্যক্তি মামলাটি সুপ্রিম কোর্টে নিয়ে যান। সংখ্যাগরিষ্ঠের রায়ে বিচারপতি অ্যান্ড্রোমাশ কারাকাতসানিস বলেন, স্থগিতাদের উদ্দেশ্য ছিল ঝুঁকিপূর্ণ যৌনকর্মীদের সুরক্ষা দেওয়া। সেই দৃষ্টিকোণ থেকে বলা যায়, অবৈধ ঘোষণা স্থগিতাদেশের মেয়াদ শেষ হওয়া পর্যন্ত কার্যকর ছিল, যা ওই দুই ব্যক্তিকে স্থগিতাদেশের সময়কালে তাদের কাজের জন্য দায়বদ্ধ করেছে।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles