19.9 C
Toronto
শনিবার, জুলাই ১৩, ২০২৪

কানাডায় ফুটবল

কানাডায় ফুটবল
কানাডায় ফুটবল

১৯৯৩ সালে প্রথম যখন আমেরিকায় এলাম তখন আমেরিকা কানাডায় ফুটবল বললে বুঝতো ওদের ফুটবল, আমেরিকান ফুটবল অনেকটা রাগবির মত। অনেকক্ষণ বুঝানোর পর বলতো, ওহ তুমি সকারের কথা বলছো। আমিতো কখনো সকার শব্দ শুনি নি, জানতামও না, সকার কী জিনিষ।

তবে বুঝলাম যে ওরা সকার বলতে আমাদের জনপ্রিয় ফুটবলকে বুঝাচ্ছে। ওরা জানলেও সকারকে ফুটবল বলবে না। দুটি দেশেই বড় বড় স্টেডিয়ামগুলো দর্শকে পরিপূর্ণ হয়ে যেত, পাড়া মহল্লায় হৈ হুল্লোড় শুরু হয়ে যেত NBL বা NFL শুরু হলে। ফুটবল, বাস্কেটবল, আইস হকি, লং টেনিস এসব ওদের জনপ্রিয় খেলা।

- Advertisement -

তবে আজ দীর্ঘ তিন দশকে অবস্হার অনেক পরিবর্তন হয়ে গেছে। এখন ক্রিকেটে আমেরিকা একটা বড় শক্তি যা গত টি টুয়েন্টিতে প্রমাণ হয়েছে। ফুটবল তথা সকারেও অনেক শক্তিশালী। কানাডাতো এবার প্রথমবার কোপা আমেরিকা গেমসে সেমিতে খেলে ফেললো যা উত্তর আমেরিকায় যুগান্তকারী পরিবর্তন।

১৯৯৪ সালে আমেরিকায় বিশ্বকাপ ফুটবল ভেন্যু দেবার পর থেকেই পরিবর্তন শুরু হয়েছে। ২০২৬ সালে কানাডার দুটি শহরে বিশ্বকাপ ফুটবল আমরা দেখতে পাব। অর্থাৎ কানাডা আমেরিকা হবে ২০২৬ সালের হোষ্ট কান্ট্রি। ফলে এসব দেশে ক্রিকেট এবং ফুটবলের আরো ব্যাপক উন্নতি হবে বলে আমার বিশ্বাস।

তুলনা করতে চাই না তবে আমাদের মাতৃভুমি বাংলাদেশ ফুটবল খেলছে কত যুগ তা সকলেই জানেন। একসময় আবাহনী মোহামেডানের নামে সারা দেশ মাতাল হয়ে যেত। সেই দেশটি আজ পর্যন্ত ফুটবলে কোন উন্নতি করতে পারে নাই, চরম রসাতলে চলে গেছে। অথচ টাকা পয়সা দিয়ে বাফুফে পালা হয়, যুগ যুগ ধরে। ১৯৭৭ সাল থেকে আমি ক্রিকেট খেলা দেখছি বাংলাদেশে। এখন পর্যন্ত তেমন অগ্রগতি নেই। বললেই বলেন, আমাদের টার্গেট পরবর্তী বিশ্বকাপ! কি লজ্জা!

তবে আজ কানাডা বনাম আর্জেন্টিনার খেলাটা জমে নাই। উভয় দলই ভাল খেলা উপহার দিতে ব্যর্থ হয়েছে। বরং ইউরো কাপের প্রথম সেমিতে স্পেন বনাম ফ্রান্সের খেলা উপভোগ্য ছিল। সবশেষে কোপা আমেরিকার ফাইনালে উঠায় প্রিয় দল আর্জেন্টিনাকে জানাই অভিনন্দন। কানাডার জন্যে শুভ কামনা।

স্কারবোরো, কানাডা

- Advertisement -
পূর্ববর্তী খবর
পরবর্তী খবর

Related Articles

Latest Articles