24.5 C
Toronto
শুক্রবার, জুলাই ১৯, ২০২৪

চলন্ত ট্রেনে প্রথমে অশালীন আচরণ, তারপর সংঘবদ্ধ ধর্ষণ

চলন্ত ট্রেনে প্রথমে অশালীন আচরণ, তারপর সংঘবদ্ধ ধর্ষণ
প্রতীকী ছবি

সিলেট থেকে চট্টগ্রামগামী চলন্ত ট্রেনে এক তরুণীকে (১৯) সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে রেলওয়ে পুলিশ। গতকাল বুধবার ভোরে কুমিল্লার লাকসাম পার হওয়ার পর উদয়ন এক্সপ্রেস ট্রেনে এই ঘটনা ঘটে।

গ্রেপ্তার তিনজন হলেন— মো. জামাল (২৭), মো. শরীফ (২৮) ও মো. রাশেদ (২৭)। তারা ওই ট্রেনে খাবার সরবরাহকারী (ক্যাটারিং সার্ভিস) এস এ করপোরেনের কর্মচারী।

- Advertisement -

রেল পুলিশ সূত্র জানায়, বুধবার ভোরে চলন্ত ট্রেনে ধর্ষণের এই ঘটনা ঘটলেও ঘটনাটি জানাজানি হয় গতকাল সন্ধ্যার পর। উদয়ন এক্সপ্রেস সিলেট থেকে মঙ্গলবার রাত ১০টায় চট্টগ্রামের উদ্দেশে ছেড়ে আসে। চট্টগ্রামে পৌঁছায় বুধবার সকাল আটটায়।

রেলওয়ে চট্টগ্রামের পুলিশ সুপার (এসপি) হাছান চৌধুরী বলেন, ‘সিলেট থেকে উদয়ন এক্সপ্রেস ট্রেনটি গত (মঙ্গলবার) রাত দশটায় শিডিউল অনুযায়ী চট্টগ্রামের উদ্দেশে রওনা দেয়। সকাল আটটায় ট্রেনটি চট্টগ্রামে পৌঁছে। এরপর এক তরুণী জিআরপি থানায় গিয়ে অভিযোগ করেন, ট্রেনে তার সঙ্গে কয়েকজন কর্মী প্রথমে অশালীন আচরণ করেন এবং পরে তাকে ধর্ষণ করেন। অভিযোগ পেয়ে তিনজনকে গ্রেপ্তার করি।’

জানা গেছে, ঘটনার শিকার আনুমানিক বিশ বছর বয়সী ওই তরুণীর বাড়ি বান্দরবান জেলায়। তিনি আত্মীয়ের সঙ্গে কিশোরগঞ্জের ভৈরব উপজেলায় থাকেন।

এস এ করপোরেশন চট্টগ্রাম-সিলেট রুটে চলাচলরত উদয়ন ও পাহাড়িকা এক্সপ্রেসে খাবার সরবরাহের কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছিল। প্রতিষ্ঠানটির মালিক কুমিল্লা জেলার লাকসামের মোহাম্মদ শাহ আলম।

রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) নাজমুল ইসলাম জানান, এই ঘটনায় এস এ করপোরেশনের কার্যক্রম স্থগিত করা হয়েছে। একই ঘটনায় উদয়ন এক্সপ্রেসের পরিচালক (গার্ড) আবদুর রহিমকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles