22.9 C
Toronto
বৃহস্পতিবার, জুন ২০, ২০২৪

হটেস্ট ২০ ইউটিউবার

হটেস্ট ২০ ইউটিউবার
ছবি সংগৃহীত

ব্রাইটনে বসবাসকারী পেনি পর্টার একজন ১৫ বছরের কিশোরী। দারুণ এক পরিবারে জন্ম ও বেড়ে ওঠা তার। তার বন্ধুর নাম এলিয়ট। একপর্যায়ে পেনির পরিবার তাকে নিয়ে যায় নিউইয়র্কে। গল্পটা চলতে শুরু করে পেনির একটি ব্লগ ভাইরাল হওয়াকে কেন্দ্র করে। রোমান্স আর নাটকীয়তায় মোড়া এ গল্প যে উপন্যাসের সেটির নাম ‘গার্ল অনলাইন’।

এই বইটি ২০১৪ সালের দ্রুত বিক্রীত বই। পাশাপাশি বইটি প্রকাশিত হওয়ার প্রথম সপ্তাহে সর্বোচ্চ বিক্রির রেকর্ড ভেঙেছে। জানতে ইচ্ছে হতেই পারে, কে এই বইয়ের লেখক? মজাটা এখানে। বইটির লেখক এক আমেরিকান ইউটিউবার, নাম জো সুগ। তিনি শুধু লেখক ও ইন্টারনেট সেলিব্রিটিই নন। সম্প্রতি ২০ জন ‘হটেস্ট ইউটিউবার’র তালিকায় তাঁর নাম আছে প্রথমে।

- Advertisement -

মেকআপ ও বিউটি টিউটোরিয়াল থেকে শুরু করে ডাই বা টু ইট ইওর সেলফ প্রোজেক্ট এবং লাইফস্টাইল ভ্লগ করার ক্ষেত্রে পিছিয়ে নেই নারী ইউটিউবারেরা। তাঁরা শুধু প্রতিভা আর অনুপ্রেরণামূলক কাজ দিয়েই নয়, তাঁদের আকর্ষণীয় চেহারার জন্যও জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন। এমনই ২০ জন সুন্দরী নারী ইউটিউবারের তালিকা প্রকাশ করেছে একটি ওয়েবসাইট।

তালিকায় প্রথমেই এসেছে জো সুগ এর নাম, তথ্যটি আগেই জানানো হয়েছে আপনাদের। এটি তাঁর ইউটিউব চ্যানেলেরও নাম। অনলাইনে জোয়েল নামে পরিচিত এই ইউটিউবারের পুরো নাম জো এলিজাবেথ সুগ। তিনি ২০০৭ সালে ইউটিউব প্ল্যাটফর্মে চ্যানেল খোলেন। বর্তমানে তাঁর ইউটিউব চ্যানেলে প্রায় ৫ মিলিয়ন বা ৫০ লাখ সাবস্ক্রাইবার রয়েছে। এ পর্যন্ত চ্যানেলটিতে ৭১৩টি ভিডিও আপলোড করা হয়েছে। ৩৪ বছর বয়সী এই ভ্লগার মূলত লাইফস্টাইল ভ্লগ তৈরি করেন।

আলিয়া শেলেশ
এই তালিকায় তাঁর পরেই আছেন লন্ডনের লিভারপুলে জন্ম নেওয়া আলিয়া শেলেশ। লিয়া নামে পরিচিত এই ইউটিউবারের চ্যানেলটির নাম এস এস স্নাইপার উলফ। তিনি ভিডিও গেম ভিত্তিক কনটেন্ট তৈরি করেন। ২০১৭ সালে ‘গেমিং’ বিভাগে ফোর্বসের শীর্ষ প্রভাবশালীর তালিকায় দশ জনের মধ্যে লিয়া ছিলেন একজন। ২০২১ সালে ইউটিউব থেকে প্রকাশিত মার্কিন শীর্ষ কনটেন্ট ক্রিয়েটরের তালিকায় তৃতীয় স্থানে ছিলেন তিনি। মূলত চেহারার এক্সপ্রেশন, কমেন্ট্রি, ভ্লগ, ডাই এবং গেমিং ভিডিওর জন্য লিয়া বেশি জনপ্রিয়। ইউটিউবে তাঁর চ্যানেলের সাবস্ক্রাইবার সংখ্যা ৩৪ দশমিক ৪ মিলিয়ন। চ্যানেলটিতে ৩ হাজার ৫০০ ভিডিও আপলোড করা হয়েছে এ পর্যন্ত।

ইমানে আনিস
হটেস্ট ইউটিউবারদের তালিকায় তৃতীয় স্থানে আছেন মরক্কোয় জন্ম নেওয়া ইউটিউবার ইমানে আনিস। তিনি পোকিমান নামে জনপ্রিয়। ইমানে তাঁর টুইচ লাইভ স্ট্রিমগুলোর জন্য বেশি পরিচিত। তাঁর চ্যানেলের সাবস্ক্রাইবার সংখ্যা ৬ দশমিক ৫৮ মিলিয়নের বেশি। অ্যানিসকে ২০২১ সালে ফোর্বস ‘৩০ অনূর্ধ্ব ৩০’ সম্মাননায় গেমস বিভাগে বিশেষ সম্মাননা দেয়। কারণ তিনি সেই সময় টুইচ এর সবচেয়ে বড় নারী স্ট্রিমার ছিলেন। সে বছর জুলাই পর্যন্ত টুইচে তাঁর ফলোয়ার ছিল ৮ দশমিক ৫ মিলিয়ন।

আলেকজান্দ্রা মেরি হিরশি
হটেস্ট ইউটিউবারের তালিকয়া চার নম্বরে আছেন অস্ট্রেলিয়ায় জন্ম নেওয়া আলেকজান্দ্রা মেরি হিরশি। অনলাইনে তিনি সুপার কার ব্লন্ডি নামে বিখ্যাত। আলেকজান্দ্রা একজন সোশ্যাল মিডিয়া সেলিব্রিটি, উপস্থাপক এবং ভ্লগার। তাঁর চ্যানেলে ১৯ মিলিয়ন সাবস্ক্রাইবার আছে। গাড়ি বিষয়ক একটি টেলিভিশন শো ‘কার ক্রুস’র উপস্থাপক আলেকজান্দ্রা।

আলিশা মারি
তাঁর পরের তালিকায় আছেন আলিশা মারি। তাঁর চ্যানেলে সাবস্ক্রাইবারের সংখ্যা ৩ দশমিক ৪ মিলিয়নের বেশি। আলিশা মূলত ফ্যাশন ও সৌন্দর্য সামগ্রী নিয়ে ভ্লগ তৈরি করেন। তবে ইউটিউবে কনটেন্ট তৈরি ছাড়াও আলিশা মারি টিভি শো ‘গাইডেন্স’ এ অভিনয় করেছেন।

এই তালিকায় আরও পনেরো জন ইউটিউবারে নাম আছে। এঁরা হলেন কানাডার আজরা ইউটিউবারের, যুক্তরাষ্ট্রের এমা ফ্রান্সিস চেম্বারলেন, যুক্তরাষ্ট্রের ইভা মারিসোল গুটোস্কি, যুক্তরাষ্ট্রের ক্যান্ডি জনসন, ভেনেজুয়েলার ইলেওমোনা পন্স মারোনেসে, কানাডার লিলি সাইনি সিং, যুক্তরাষ্ট্রের এলিজাবেথ শায়লা কোশি, যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাডিসন মিলার, কানাডার শ্যানন অ্যাশলে গার্সিয়া মিচেল, যুক্তরাষ্ট্রের আলিসা ভায়োলেট, যুক্তরাজ্যের স্যাফরন অটাম বার্কার, যুক্তরাষ্ট্রের তানা মারি মঞ্জো, যুক্তরাষ্ট্রের ট্রেসা ব্রক্স, যুক্তরাষ্ট্রের লড়েন গ্রে বিচ, যুক্তরাষ্ট্রের অ্যালেক্সা ব্রুক রিভেরা।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles