17 C
Toronto
সোমবার, মে ২৭, ২০২৪

দুই স্ত্রী পালিয়েছেন, তৃতীয় স্ত্রীকে তিনি মারলেন পুড়িয়ে

দুই স্ত্রী পালিয়েছেন, তৃতীয় স্ত্রীকে তিনি মারলেন পুড়িয়ে
প্রতীকী ছবি

শ্যালো ইঞ্জিনচালিত সেচপাম্প চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করে ইব্রাহিম প্রধান। বাড়ি চাঁদপুরের মতলব দক্ষিণ উপজেলার নায়েরগাঁও ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের বকচর গ্রামে। যৌতুকের জন্য স্ত্রী খাদিজা আক্তারের (২৩) গায়ে শ্যালো ইঞ্জিনের ডিজেল ঢেলে পুড়িয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তার বিরুদ্ধে। বৃহস্পতিবার ঈদুল ফিতরের দিন সকাল ৭টার দিকে ইব্রাহিম স্ত্রীর শরীরে আগুন ধরিয়ে দেয় বলে অভিযোগ। শুক্রবার রাতে ঢাকার শেখ হাসিনা বার্ন ইনস্টিটিউটে মারা যান খাদিজা।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, চার বছর আগে একই গ্রামের দিনমজুর খোকন মিয়ার মেয়ে খাদিজাকে বিয়ে করে ইব্রাহিম (৩৮)। এর পর থেকেই যৌতুক হিসেবে টাকা দাবি করে নির্যাতন শুরু করে সে। প্রতিবেশীদের ভাষ্য, এটি ইব্রাহিমের তৃতীয় বিয়ে। যৌতুকের জন্য নির্যাতন সইতে না পেরে আগের দুই স্ত্রী পালিয়ে বেঁচেছেন। শেষরক্ষা হয়নি হতদরিদ্র বাবার মেয়ে খাদিজার।

- Advertisement -

প্রতিবেশীরা জানায়, বৃহস্পতিবার সকাল ৭টার দিকে খাদিজার শরীরে ডিজেল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় ইব্রাহিম। দ্রুত এগিয়ে আসেন মনির ও মহসিন নামের দুই প্রতিবেশী। তারা পাটের বস্তা ভিজিয়ে আগুন নেভান। সঙ্গে সঙ্গেই খাদিজাকে উদ্ধার করে স্থানীয় লোকজন নিয়ে যায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে।

চিকিৎসকরা জানান, ওই তরুণীর শরীরের প্রায় ৯০ শতাংশ পুড়ে যায় আগুনে। একদিন পর শুক্রবার (১২) এপ্রিল রাত দেড়টার দিকে বার্ন ইনস্টিটিউটে মারা যান খাদিজা।

বিষয়টি গোপন করে খাদিজার স্বজনদের না জানিয়ে শ্বশুরবাড়ির লোকজন তড়িঘড়ি করে লাশ দাফন করেন। আজ রোববার মেয়ের এমন মৃত্যুর সংবাদ পান খোকন মিয়া। তিনি বলেন, বিয়ের পর থেকেই খাদিজাকে যৌতুকের জন্য মারধর করতো ইব্রাহিম। এসব নিয়ে অনেকবার সালিশ-বৈঠকও হয়েছে। কিন্তু তাঁর যৌতুক দেওয়ার সামর্থ্য নেই দেখে মেয়েটা মুখ বুঝে সবকিছু সহ্য করে গেছে। তিনি এ ঘটনায় জামাতার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।

খোকন মিয়া এ ঘটনায় রোববার মতলব দক্ষিণ থানায় মামলা করেন। বিষয়টি নিশ্চিত করে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রিপন বালা বলেন, খাদিজার শাশুড়ি যায়েদা খাতুনকে (৬৭) বাড়ি থেকে আটক করা হয়েছে। তাকে খোকন মিয়ার মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়েছেন। মৃত্যুর সংবাদ ছড়িয়ে পড়ার পর থেকে খাদিজার স্বামী ইব্রাহিম প্রধান পলাতক। তাকে গ্রেপ্তারে চেষ্টা চলছে।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles