14.3 C
Toronto
মঙ্গলবার, এপ্রিল ২৩, ২০২৪

৪০ বছর পর খোঁজ মিলল হারিয়ে যাওয়া ওয়ালেটের

৪০ বছর পর খোঁজ মিলল হারিয়ে যাওয়া ওয়ালেটের
গত মাসে অপিরিচিত এক ব্যক্তি অক্ষত অবস্থায় ওয়ালেটটি অস্টিনের গুয়েল্ফের অফিসে অক্ষত অবস্থায় ফেলে যওয়ার পর সেই স্মৃতি ফিরে এসেছে

ভ্যানেসা অস্টিন তার শৈশবে পরিবারের সঙ্গে ছুটির দিনে কানাডার ব্যস্ততম একটি মলে বহু সময় ঘুরে বেড়িয়ে কাটিয়েছেন। চার দশক আগেও টরন্টোর ইটন সেন্টারে সেরকমই একটি গমন ছিল। মায়ের সঙ্গে গিয়ে সেবার ওয়ালেটটি হারিয়ে ফেলেছিলেন অস্টিন। ওই ঘটনা সম্পর্কে পরিবারের কারোরই তেমন কিছু মনে নেই। কিন্তু গত মাসে অপিরিচিত এক ব্যক্তি অক্ষত অবস্থায় ওয়ালেটটি অস্টিনের গুয়েল্ফের অফিসে অক্ষত অবস্থায় ফেলে যওয়ার পর সেই স্মৃতি ফিরে এসেছে।

অস্টিন বলেন, প্রথমে আমি যখন ওয়ালেটটি দেখি তখন বিশ্বাসই হচ্ছিল না। এটা অনেকটা টাইম ক্যাপসুলের মতো এবং আমি এটা বলেই যাচ্ছি। কারণ, ওয়ালেটটি খুবই সুরক্ষিত অবস্থায় রয়েছে।

- Advertisement -

ফুলের মোটিফসম্বলিত ওয়ালেটটিতে তার মায়ের অভিবাসন সংক্রান্ত নথিপত্র ছিল। পাশাপাশি ছিল অস্টিনের ছোটবেলার একটি ছবি, তার মায়ের একটি ছবি, একটি ব্যাংক কার্ড এবং টরন্টো পাবলিক লাইব্রেরির একটি কার্ড। সেই সঙ্গে ছিল একটি কিনলে একটি ফ্রি কুপন।

হাসতে হাসতে অস্টিন বলেন, আহা! আমি যদি কুপনটি ব্যবহার করতে পারতাম।

অন্টারিওর ফারগাসের এই নারী বলেন, তার কোম্পানির প্রধান কার্যালয়ের সিকিউরিটি ডেস্ক থেকে তাকে ও তার স্বামীকে যখন ওয়ালেটটির বিষয়ে জানানো হয় তখন তিনি হতবুদ্ধি হয়ে পড়েছিলেন।

অস্টিন বলেন, অ্যান্ড্রু মেডলি নামে এক ব্যক্তি জানুয়ারিতে ইটন সেন্টারে কিছু একটা কাজ করার সময় ওয়ালেটটি খুঁজে পান। অস্টিনকে খুঁজে পেতে তিনি ওয়ালেটে থাকা তথ্যের সাহায্য নেন এবং ফেসবুকের মাধ্যমে তার সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেন। কিন্তু অস্টিন তার মেসেজগুলো দেখেননি।

যেভাবেই হোক ওয়ালেটটি ফেরত দেওয়ার তীব্র আকাক্সক্ষা থেকে মেডলি কোন কোম্পানিতে অস্টিন কাজ করেন তা খুঁজে বের করেন এবং ডেট্রয়েটে বাড়ি ফেরার আগে গুয়েল্ফে তার অফিসে যান। বহু গল্প থাকে যা মানুষকে তার কাছে পৌঁছে দেয়। আপনার জীবনে যখন এরকম কিছু ঘটবে তখন আপনার মনে হবে এই পৃথিবীতে ভালো অনেক কিছু আছে এবং মানুষ এখনো অন্যের ভালোর জন্য কিছু করে। ঘটনা হচ্ছে কোনো কিছুর আশা ছাড়াই তিনি এটা করেছেন। এর প্রতিক্রিয়া কী হয় কেবল সেটা জানতে চেয়েছিলেন। ব্যাপারটা খুবই নিষ্পাপ।

অস্টিন বলেন, ৪০ বছরের মধ্যে প্রথমবারের মতো তার বাবা-মা ওয়ালেটটি দেখছেন এমন একটি ভিডিও তিনি মেডলিকে পাঠিয়েছেন। প্রথমে তার দ্বিধান্বিত ছিলেন, যেমনটা আমি ছিলাম। এরপর তারা কখন ও কীভাবে ব্যাপারটা ঘটেছিল সেটা মনে করার চেষ্টা করেন। তাদের যখন মনে পড়ে তখন তারা বলেন, হায় খোদা! এটার দিকে তাকাও।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles