6.1 C
Toronto
সোমবার, ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২৪

সহায়তা চেয়ে ফোন করা নারী মারা গেলেন পুলিশের গুলিতেই

সহায়তা চেয়ে ফোন করা নারী মারা গেলেন পুলিশের গুলিতেই
ছবি সংগৃহীত

যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলেসে পারিবারিক সহিংসতার বিষয়ে জরুরি সহায়তা নম্বর ৯১১-এ ফোন করে পুলিশের সহায়তা চেয়েছিলেন এক কৃষ্ণাঙ্গ নারী। জরুরি নম্বরে ফোন পেয়ে পুলিশ তার বাসাতেও পৌঁছায়। পুলিশের সহায়তা চেয়ে ফোন করলেও শেষ পর্যন্ত পুলিশ সদস্যদের গুলিতে মারা গেছেন ওই নারী।

লস অ্যাঞ্জেলেসের কাউন্টি শেরিফের কার্যালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, গত ৪ ডিসেম্বর সন্ধ্যার দিকে ২৭ বছর বয়সী নিয়ানি ফিনলেসন নামের ওই নারীর ৯১১-এ পারিবারিক সহিংসতার বিষয়ে টেলিফোন আসে। প্রেমিক ‘‘তাকে ছেড়ে যাবেন না’’ বলে পুলিশের কাছে অভিযোগ করেন তিনি। টেলিফোনে চিৎকার ও ধস্তাধস্তির শব্দ শোনা যায়।

- Advertisement -

পরে লস অ্যাঞ্জেলেসের কাউন্টি শেরিফের ডেপুটিরা ল্যাঙ্কাস্টারের ইস্ট অ্যাভিনিউয়ে ওই নারীর বাসায় যান। সেখানে পৌঁছে তারা লোকজনের তর্ক-বিতর্ক ও চিৎকার শুনতে পান। পুলিশের সদস্যরা জোর করে দরজা খুলে ওই নারী ঘরে প্রবেশ করেন। এ সময় তারা তাকে বড় আকারের একটি ছুরি ধরে থাকতে দেখেন।

৯ বছর বয়সী মেয়েকে আঘাত করায় প্রেমিককে ছুরিকাঘাত করবেন বলে ওই নারী পুলিশকে জানান। পরে তার প্রেমিক বাসার যে কক্ষে ছিলেন, সেদিকে ৮ ইঞ্চি লম্বা ছুরি হাতে দৌড়ে যান তিনি। এ সময় তাকে থামাতে পুলিশ গুলি চালায়। মেয়ের সামনে কয়েক রাউন্ড গুলির আঘাতে মেঝেতে লুটিয়ে পড়েন তিনি।

নিয়ানি ফিনলেসনকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে তাৎক্ষণিকভাবে হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এই ঘটনায় তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছে লস অ্যাঞ্জেলেস পুলিশ।

ওই নারীর পরিবারের আইনজীবীর বরাত দিয়ে ব্রিটিশ দৈনিক দ্য গার্ডিয়ান বলেছে, ৯ বছর বয়সী মেয়েকে নিয়ে বাসায় ছিলেন নিয়ানি ফিনলেসন। এ সময় তার সাবেক প্রেমিক সেখানে পৌঁছে তাদের দুজনকে পিটিয়ে আহত করেন। প্রেমিককে বাসা থেকে বের করে দিতে পুলিশের কাছে ফোন করে সহায়তা চেয়েছিলেন তিনি।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles