26.4 C
Toronto
মঙ্গলবার, মে ২১, ২০২৪

কনের কাপড় খুলে নেওয়া, বরকে পেটানো, বিয়ের যত অদ্ভুত রীতি

কনের কাপড় খুলে নেওয়া, বরকে পেটানো, বিয়ের যত অদ্ভুত রীতি
ছবি সংগৃহীত

মানব জীবনের অন্যতম অধ্যায় বিবাহিত জীবন। এর শুরু বিয়ের মাধ্যমে। দেশ, জাতি ভেদে বিয়ের অনুষ্ঠানে ভিন্নতা লক্ষ্য করা যায়। বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা, লোকাচার বা ধর্মীয় রীতি ভিন্ন হলেও বিয়ের অনুষ্ঠানে বর কনের গায়ে ময়লা ছিটিয়ে দেওয়া বা লাঠি দিয়ে পেটানো অবাক ব্যাপার বৈকি!

কনের কাপড় খুলে নেওয়া

- Advertisement -

শুনতে খারাপ লাগলেও চীনের এক সম্প্রদায়ের মধ্যে বিয়েতে এমন প্রচলন রয়েছে। যেখানে বরের বন্ধুরা কনের বিয়ের কাপড় খুলে নেওয়ার চেষ্টা করে এবং বর তাতে বাধা দেয়। ধারণা করা হয় এই রীতি পালন না-করলে বর-কনের দাম্পত্য জীবন দ্রুত শেষ হয়ে যাবে।

বরের পায়ে আঘাত

বিয়ের এমন অদ্ভুত নিয়ম রয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ায়। বিয়ের অনুষ্ঠানে বর জুতা খুলে শুয়ে পরবে, তারপর তার দুই পা দড়ি দিয়ে বেধে লাঠি দিয়ে পায়ের পাতায় মারবে অন্যরা। এই লাঠির স্থানীয় নাম ‘গরবিনা’। এটি বিশেষ এক মাছের কাটা। তাদের বিশ্বাস এই রীতি পালন করলে বর বিয়ের রাতে দারুণ শক্তি পাবে।

এক মাস ধরে কান্না

বিয়েতে মেয়েদের কান্না নতুন কিছু নয়। তাই বলে এক মাস ধরে কান্না! এমন অদ্ভুত নিয়ম রয়েছে চীনের তুজা গোষ্ঠীর মধ্যে। শুধু কনে নয়, বিয়ের দশ দিন আগে থেকেই কান্না করতে থাকে কনের মা ও অন্যরা।

বর কনের গায়ে ময়লা

বর কনের গায়ে ময়লা ঢেলে দেওয়ার এমন অদ্ভুত রীতি পালন করা হয় স্কটল্যান্ডে যা অনেক আগে থেকেই চলে আসছে। বিয়ের কয়েকদিন আগে হুট করে তাদের শরীরে ময়লা ঢেলে সারপ্রাইজ দেওয়া হয়। তাদের বিশ্বাস, বিয়ের আগে এই রীতি পালন করলে বিয়ের পর বর কনের সংসার খারাপ আত্না থেকে রক্ষা পাবে।

কনের গায়ে থুথু দেওয়া

অদ্ভুত এই বিয়ের রীতি পালন করা হয় কেনিয়ার মাসায় সম্প্রদায়ের মধ্যে। তাদের বিয়ের অন্যতম অনুষঙ্গ এটি। কনেকে বিদায়ের আগে কনের বাবা মেয়ের গায়ে এবং স্তনে থুথু ছিটিয়ে দেন। মাসাই সম্প্রদায় মনে করে থুথু সৌভাগ্যের প্রতীক।

টাকা ছিটিয়ে বিয়ে

’বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বিয়ের সময় নাচতে দেখা যায়। কিন্তু টাকা ছিটিয়ে নাচ দেখা যায় পোল্যান্ডে। বিয়ের সময় কনে নাচতে থাকে আর বরপক্ষের লোকেরা টাকা ছেটাতে থাকে। অনেক ক্ষেত্রে বরও নাচে। তখন কনেপক্ষের লোকজন টাকা ছেটায়।

বাথরুমে যেতে মানা

ইন্দোনেশিয়া ও মালোয়েশিয়ার বর্নোয়ো সম্প্রদায় পালন করে আরো অদ্ভুত এক নিয়ম। এখানে বিয়ের পর তিন দিন তাদের ঘরে আবদ্ধ করে রাখা হয় এবং বাথরুমে যেতে দেওয়া হয় না। তাদের বিশ্বাস, এর ফলে বর কনের সন্তান সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হবে।

থালা বাটি ভাঙা

জার্মানিতে বিয়ের ক্ষেত্রে পালন করা হয় এমন রীতি। অনুষ্ঠানে আগত অতিথিরা কাচের বাসন ভেঙে একত্রে ফেলে রাখেন এরপর এসব জড়ো করতে হয় বর এবং কনেকে। এসব দেখেই আত্নীয়রা আঁচ করেন তারা কেমন সংসার সামলাবেন।

বর কনেকে চুমু

বর কনেকে চুমু খাবে এমন রীতি স্বাভাবিক। কিন্তু সুইডেনে শুধু বর কনেকে চুমু দেয় এমন নয়, ছেলেপক্ষের ছেলেরা কনেকে এবং মেয়েপক্ষের মেয়েরা বরকে চুমু খেতে পারে। অনুষ্ঠানে তাদের চোখ বেঁধে দেওয়া হয় এবং আমন্ত্রিত অতিথিরা বর কনেকে চুমু দিয়ে থাকে।

শালার জন্য পাত্রী

হবু শ্যালকের জন্য পাত্রী খোঁজার পরই একজন মধ্য আফ্রিকার ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠী পিগমি যুবক বিয়ে করতে পারবেন। শ্যালকের জন্য ঠিক করা সেই পাত্রী আবার হতে হবে তারই কোনো আত্মীয়া।

কাচ ভাঙা

ইতালিতে অদ্ভুত রীতির অনুসরণ করা হয় বিয়েতে। বিয়ের অনুষ্ঠানে একটি কাচের পাত্র ভাঙা হয়। এরপর সেসব ভাঙা টুকরো গুনে গুনে সংগ্রহ করে বর এবং কনে। তাদের ধারণা, টুকরো যত হবে তাদের সংসার ততদিন টিকবে।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles