6.4 C
Toronto
রবিবার, মার্চ ৩, ২০২৪

বিয়ে, বিদ্রুপ ও সমালোচনা সামলে যা বললেন পরমব্রতর স্ত্রী পিয়া

বিয়ে, বিদ্রুপ ও সমালোচনা সামলে যা বললেন পরমব্রতর স্ত্রী পিয়া
পরমব্রত ও পিয়া চক্রবর্তী

এই মুহূর্তে দুই বাংলায় সবচেয়ে আলোচিত বিষয় হচ্ছে পরমব্রত-পিয়ার বিয়ে। টলিউডের জনপ্রিয় গায়ক অনুপম রায়ের প্রাক্তন স্ত্রী, সংগীতশিল্পী তথা সমাজকর্মী ও মানসিক স্বাস্থ্যকর্মী পিয়া চক্রবর্তী বিয়ে করেছেন জনপ্রিয় নায়ক ও পরিচালক পরমব্রতকে। যা নিয়ে আলোচনায় মুখর অনলাইন। দুজনকে ঘিরে ব্যঙ্গ-বিদ্রুপও কম হচ্ছে না।

তবে এসব আলোচনা-বিদ্রুপকে মোটেও আমলে নেননি পরমব্রত-পিয়া। কারণ বিয়ের পরপরই এই জুটি হাসপাতালে ছুটতেই ব্যস্ত ছিলেন!
বিয়ের রাত পোহাতেই হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়েছে পিয়া চক্রবর্তীকে। বহুদিন ধরেই কিডনি স্টোনের সমস্যায় ভুগছেন পিয়া। একাধিকবার চিকিৎসকের কাছেও যেতে হয়েছে।

- Advertisement -

চিকিৎসকের পরামর্শমতোই মঙ্গলবার শহরের এক বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়ে অস্ত্রোপচার করিয়েছেন। বুধবার নিজের বাড়িতে ফিরেছেন পিয়া। আর ফিরেই সামাজিক মাধ্যমে উঁকি দিয়ে অনুরাগীদের জানালেন ধন্যবাদ।
বৃহস্পতিবার রাতে ইনস্টাগ্রামে একটি ছবি পোস্ট করেছেন পিয়া চক্রবর্তী।

ছবিতে দেখা যাচ্ছে, ফুলদানিতে রাখা সাদা ফুল, টেবিল ল্যাম্প আর একটি হাতে আঁকা ছবি। সেই ছবিতে আঁকা এক যুগল। একটি পুরুষকে আলিঙ্গন করে রয়েছেন এক নারী। সঙ্গে লেখা ফরাসি শব্দ ‘Merci’।

ছবিটি শেয়ার করে ক্যাপশনে পিয়া লিখেছেন, ‘ভালোবাসা আর উষ্ণতা ছড়িয়ে পড়েছে।

’ এরপর ফরাসি শব্দে ‘ধন্যবাদ’ জানালেন সবাইকে। পিয়ার এই পোস্ট দেখে বোঝাই যাচ্ছে, বিদ্রুপ-সমালোচনার ঝড়ঝাপ্টা সামলে পরম ভালোবাসার ঠিকানা খুঁজে পেয়েছেন পিয়া।

সোমবার দুপুরে রেজিস্ট্রি বিয়ে করেন পরম ও পিয়া। এদিন সন্ধ্যায় রিসেপশনও রেখেছিলেন তিনি। রিসেপশন পার্টি শুরুর আগে সংবাদমাধ্যমকে পরমব্রত জানিয়ে ছিলেন, ‘বেশি বয়সে বিয়ে হলে যেমন লাগে, ঠিক তেমনই লাগছে। এই বিয়েটা প্রথম থেকেই প্রাইভেট রাখতে চেয়েছিলাম। শুধু পরিবারের লোকজনই উপস্থিত ছিল। দেখি পরে হয়তো একটা অনুষ্ঠান করব। সেখানে সবাই নিমন্ত্রণ পাবেন।’

সোমবার (২৭ নভেম্বর) পরমব্রতের যোধপুর পার্কের বাড়িতে বিয়ে হয় এই জুটির। কাছের ও ঘনিষ্ঠজনদের নিয়ে খাওয়াদাওয়ার আয়োজন করা হয়েছিল সে রাতেই। তারপর মধ্যরাতে হঠাৎ কোমর-পিঠে যন্ত্রণা শুরু হয় পিয়ার। সেই কষ্ট সহ্য করতে না পেরেই পরদিন হাসপাতালে ছুটতে হয় তাকে। তার পরেই সন্ধ্যার দিকে ঢাকুরিয়ার এক বেসরকারি হাসপাতালে অস্ত্রোপচার করা হয়। তবে শারীরিক তেমন কোনো জটিলতা না থাকলেও পুরোপুরি সুস্থ হতে বেশ কিছুদিন বিশ্রামে থাকতে হবে। এই পরিস্থিতিতে সহকর্মী-বন্ধুদের নিয়ে বিয়ের পর যে অনুষ্ঠান করার ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন যুগল, তা হয়তো এখনই সম্ভব হবে না।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles