23.9 C
Toronto
মঙ্গলবার, মে ২১, ২০২৪

স্কুলছাত্রীর ‘আত্মহত্যা’, গোপন ছবি ফাঁসের ভয় দেখিয়ে স্বর্ণ নেওয়ার অভিযোগ

স্কুলছাত্রীর ‘আত্মহত্যা’, গোপন ছবি ফাঁসের ভয় দেখিয়ে স্বর্ণ নেওয়ার অভিযোগ
স্কুলছাত্রী তায়েবাতুন জুঁই ছবি সংগৃহীত

রাজধানীর পল্লবীর একটি ছয়তলা ভবন থেকে পড়ে তায়েবাতুন জুঁই (২০) নামের এক ছাত্রীর মৃত্যু হয়েছে। সোমবার মধ্যরাতে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ও স্বজনরা বলছেন, বাসা থেকে স্বর্ণালঙ্কার চুরি করে প্রেমিককে দিয়েছিলেন তিনি। বিষয়টি জানতে পেরে তাঁকে বকুনি দেন বাবা। এরপর অভিমান করে ওই ছাত্রী ভবন থেকে লাফ দিয়ে ‘আত্মহত্যা’ করেন। এদিকে মেয়েটির গোপন ছবি ফাঁসের ভয় দেখিয়ে তাঁর প্রেমিক স্বর্ণালঙ্কার হাতিয়ে নেন বলে জানিয়েছে পরিবার।

পল্লবী থানার ওসি মুহাম্মদ মাহফুজুর রহমান মিয়া বলেন, প্রাথমিকভাবে এ ঘটনাকে আত্মহত্যা বলেই ধারণা করা হচ্ছে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পেলে এ বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া যাবে। স্বজনরা এ বিষয়ে যেভাবে অভিযোগ করতে চান, সেই অনুযায়ীই মামলা নেওয়া হবে। আপাতত মেয়েটির কথিত প্রেমিককে খুঁজছে পুলিশ।

- Advertisement -

সংশ্লিষ্টরা জানান, পল্লবীর ৬ নম্বর সেকশনের ৫১ নম্বর বাসার ছয় তলায় পরিবারের সঙ্গে থাকতেন জুঁই। তিনি রাজধানীর বাংলা স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে এ বছর এসএসসি পাস করেন। তাঁর বাবার নাম জুলহাস খান। তাঁর গ্রামের বাড়ি মুন্সিগঞ্জের টঙ্গীবাড়ি। সম্প্রতি জুঁই তাঁর চাচীর কিছু স্বর্ণালঙ্কার গোপনে সরিয়ে তাঁর প্রেমিককে দেন। বাসায় সেগুলো খুঁজতে গিয়ে না পেয়ে পরিবারের সদস্যরা হৈ–চৈ শুরু করেন। সবাইকে জিজ্ঞেস করেও কোনো সমাধান হয়নি। সোমবার মেয়েটির দাদা সবাইকে ‘চাল পড়া’ খাওয়ানোর পরামর্শ দেন। প্রচলিত বিশ্বাস অনুযায়ী চাল পড়া খেলে প্রকৃত চোরের মুখ দিয়ে রক্ত বেরিয়ে আসে। এ কথা শুনে ভয় পেয়ে জুঁই স্বীকার করেন যে তিনিই স্বর্ণ নিয়েছেন।

এরপর সবাই তাঁকে ছেঁকে ধরে জানতে চান, কেন তিনি এমন কাজ করেছেন? আর স্বর্ণাললঙ্কারই বা কোথায়? তখন তিনি জানান, সেগুলো তাঁর প্রেমিককে দিয়েছেন। এ কথা শুনে সবাই ক্ষেপে যান। তাঁর বাবা জুলহাস খান তাঁকে প্রচণ্ড বকুনি দেন এবং চড় মারেন। এ ঘটনার পর সোমবার রাত পৌনে ১২টার দিকে বাসার ছাদ থেকে লাফ দেন জুঁই। দ্রুত তাঁকে উদ্ধার করে প্রথমে জাতীয় অর্থোপেডিক (পঙ্গু) হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠানে নেওয়া হয়। পরে চিকিৎসকদের পরামর্শে তাঁকে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক। খবর পেয়ে পুলিশ তাঁর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles