15.7 C
Toronto
রবিবার, মে ১৯, ২০২৪

ছিনতাইয়ের টাকায় বিয়ের কেনাকাটা!

ছিনতাইয়ের টাকায় বিয়ের কেনাকাটা!
ছবি সংগৃহীত

ছিনতাইয়ের একটি মামলায় আদালতে হাজিরা দিতে যান তিন আসামি। সেখানেই তারা আরেকটি ছিনতাইয়ের পরিকল্পনা করে বসেন। পরদিন অবসরপ্রাপ্ত এক সরকারি কর্মকর্তার পেনশনের প্রায় ১৫ লাখ টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটিয়ে ফেলেন তারা। আবার ছিনতাই করা টাকা দিয়ে এক আসামি নিজের বিয়ের কেনাকাটাও করে ফেলেন।

শনিবার (৩০ সেপ্টেম্বর) ঢাকা ও চট্টগ্রামের বিভিন্নস্থান থেকে ওই তিনজনকে গ্রেপ্তারের পর জিজ্ঞাসাবাদে এসব তথ্য পায় নগর গোয়েন্দা পুলিশের (বন্দর-পশ্চিম) বিভাগ।

- Advertisement -

গ্রেপ্তার তিনজন হলেন নুরুল হক সজীব (৩৩), মো. মহিউদ্দিন (৪২) ও মো. রায়হান (২৮)। এর মধ্যে সজীবের বিরুদ্ধে নগরের বিভিন্ন থানায় অস্ত্র ও ছিনতাইয়ের অভিযোগে ৮টি, রায়হানের বিরুদ্ধে ৪টি ও মহিউদ্দিনের বিরুদ্ধে ভোলায় ৬টি মামলা আছে।

গত ১৮ সেপ্টেম্বর নগরের পাহাড়তলীতে রুহুল আমিন নামে অবসরপ্রাপ্ত এক সরকারি কর্মকর্তা স্ত্রীসহ পেনশনের টাকা তুলতে ইসলামী ব্যাংকে যান। ১৪ লাখ ৬০ হাজার টাকা তুলে তিনি একটি বাজারের ব্যাগে নেন। টাকা নিয়ে ব্যাংক থেকে বের হয়ে যখন হাঁটছিলেন, তখন পেছন থেকে একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশা থেকে অভিযুক্তরা টাকার ব্যাগটি নিয়ে চলে যান। পরে ভুক্তভোগী পাহাড়তলী থানায় একটি মামলা করেন।

মহানগর গোয়েন্দা (বন্দর-পশ্চিম) বিভাগের উপকমিশনার আলী হোসেন বলেন, ‘ঘটনাস্থল থেকে সংগ্রহ করা সিসি ক্যামেরার ফুটেজ এবং গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে ছিনতাইয়ে জড়িত তিনজনকে শনাক্ত করা হয়। মহিউদ্দিনের অবস্থান শনাক্ত করে প্রথমে তাকে ঢাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। তার তথ্যের ভিত্তিতে সজীব ও রায়হানকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের হেফাজত থেকে ছিনতাই করা ১১ লাখ ৩০ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়েছে।

এর মধ্যে সজীব থেকে ৯ লাখ, মহিউদ্দিন থেকে ২ লাখ ও রায়হান থেকে ৩০ হাজার টাকা পাওয়া গেছে। আগামী ৫ অক্টোবর রায়হানের বিয়ের দিন ধার্য আছে। তার ভাগে পাওয়া ছিনতাইয়ের টাকা দিয়ে বিয়ের কেনাকাটাও করেছেন বলে আমাদের গোয়েন্দা কর্মকর্তাদের কাছে স্বীকারও করেছে সে।

গোয়েন্দা পুলিশ কর্মকর্তা আলী হোসেন বলেন, ‘এই চক্রের নেতা সজীব। এক বছর আগেও ছিনতাই করার অপরাধে তাদের গ্রেপ্তার করেছি। ওই মামলায় গত ১৭ সেপ্টেম্বর আদালতে হাজিরা দিতে এসে আবার তারা ছিনতাইয়ের পরিকল্পনা করে পরদিন ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটায় তারা।’

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles